ঢাকা, রবিবার, ২৭ মে ২০১৮, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫ অাপডেট : ২ ঘন্টা আগে English

প্রকাশ : ১৭ জানুয়ারি ২০১৮, ১৩:৪০

প্রিন্ট

৩ দিন ধরে প্রেমিকের বাড়িতে প্রেমিকার অনশন

৩ দিন ধরে প্রেমিকের বাড়িতে প্রেমিকার অনশন
গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি

গোপালগঞ্জে স্ত্রীর স্বীকৃতির দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে গত তিনদিন ধরে অনশন পালন করছে প্রেমিকা কাকলী খানম (১৯)। কোটালীপাড়া উপজেলার সিতাইকুণ্ডু গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ নিয়ে এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

জানা গেছে, উপজেলার সিতাইকুণ্ডু গ্রামের আকবর আলী শেখের ছেলে আরমান শেখ নিক্সন (২৫) এর সাথে মান্দ্রা গ্রামের সিদ্দিক তালুকদারের মেয়ে কাকলী খানমের (১৯) দীর্ঘদিন ধরে প্রেমের সম্পর্ক চলে আসছিল। বিষয়টি জানাজানি হয়ে যাবার পরে গত চার মাস আগে সিদ্দিক তালুকদার তার মেয়ে কাকলীকে জোর করে পার্শ্ববর্তী আশুতিয়া গ্রামে বিয়ে দেন।

বিয়ের দু’দিন পরে প্রেমিক আরমানের কথায় কাকলী স্বামীর ঘর ছেড়ে আরমানের হাত ধরে ঢাকায় পালিয়ে যায়। ঢাকা পালিয়ে থাকা অবস্থায় আরমানের কথায় কাকলী স্বামীকে ডিভোর্স দেয়। এ ভাবে কিছু দিন যাওয়ার পর কাকলী বিয়ের জন্য আরমানকে চাপ দিলে গত ডিসেম্বরের ১৮ তারিখ আরমান কাকলীকে বিয়ে করে। বিয়ের কিছুদিন পর আরমান কাকলীকে তার ভাইয়ের বাসায় রেখে এসে কাকলীর সাথে যোগাযোগ বন্ধ করে দেয়। এর পরে কাকলী বিভিন্ন ভাবে আরমানের সাথে যোগাযোগ করতে ব্যর্থ হয়ে কোটালীপাড়ার সিতাইকুণ্ডু গ্রামে আরমানদের বাড়িতে এসে উঠে।

সরেজমিনে সিতাইকুণ্ডু গ্রামে গিয়ে আরমানের ঘরের সামনে কাকলীকে বসে থাকতে দেখা যায়। সেখানে কাকলী বলেন, আমার এভাবে চলে আসা ছাড়া কোন উপায় ছিল না। আমাকে এ বাড়ীতে দেখে আরমান আমাকে কিছু না বলে পালিয়ে গেছে। ও যদি আমাকে স্ত্রীর স্বীকৃতি না দেয় তাহলে আমি আত্মহত্যা করবো।

আরমানের পিতা আকবার আলী শেখ বাংলাদেশ জার্নালকে বলেন, আরমান ও কাকলীর বিয়ের বিষয়ে আমাদের কিছু জানা নেই। আমরা আরমানের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করছি। কিন্তু তার মোবাইল ফোন বন্ধ পাচ্ছি। আরমানের সাথে যোগাযোগ না করা পর্যন্ত আমরা কাকলীর ব্যাপারে কোন সিদ্ধান্ত নিতে পারবো না।

/এসকে/

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • অালোচিত