ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ১০ ফাল্গুন ১৪২৫ অাপডেট : ১০ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ২১ জানুয়ারি ২০১৮, ০২:০৩

প্রিন্ট

হোটেলে যেতে অস্বীকৃতি জানানোয় প্রেমিকাকে কুপিয়ে জখম

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি
হোটেলে যেতে অস্বীকৃতি জানানোয় ময়মনসিংহের গাঙ্গিনারপাড় এলাকার এক তরুণীকে কুপিয়ে জখম করেছেন তার প্রেমিক আবুল কাশেম। তাকে উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।  
 
বিষয়টি নিশ্চিত করে কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খন্দকার শাকের আহমেদ জানান, ময়মনসিংহের ফুলবাড়িয়া উপজেলার তেজপাটুলি গ্রামের আব্দুল হাকিমের ছেলে আবুল কাশেমের সঙ্গে দীর্ঘদিনের প্রেমের সম্পর্ক ছিল ওই কলেজ ছাত্রীর। তারা সম্পর্কে মামাতো-ফুপাতো ভাই-বোন।
 
তিনি আরো জানান, সম্প্রতি মেয়েটি আবুল কাশেমকে এড়িয়ে চলতে শুরু করে। শুক্রবার রাতে কৌশলে মেয়েটিকে গাঙ্গিনারপাড় মোড়ে ডেকে আনেন প্রেমিক আবুল কাশেম। এ সময় তিনি মেয়েটিকে হোটেলে নিয়ে যাওয়ার জন্য চাপ প্রয়োগ করলে তিনি যেতে অস্বীকৃতি জানান। এতে রাজি না হওয়ায় ছেলেটি তার সঙ্গে থাকা ধারালো অস্ত্র দিয়ে মেয়েটির গলায়, হাতে ও মাথায় কুপিয়ে পালিয়ে যান।
 
ওই ছাত্রীর মা বাদী হয়ে নারী শিশু-১০, দণ্ডবিধির ২৩, ২৪, ২৬, ৩০৭  ও ৪০৬ ধারায় আবুল‍ কাশেমকে আসামি করে মামলা দায়ের করেছেন। ওসি জানান, আহত ছাত্রীর জবানবন্দি নেওয়া হয়েছে এবং আসামিকে গ্রেপ্তারে পুলিশি অভিযান অব্যাহত আছে। 
 
ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ক্যাজুয়ালটি বিভাগের কনসালটেন্ট ডা.এম কামরুজ্জামান জানান, ধারালো অস্ত্রের আঘাতে ফারহানার ডান হাতের বেশ কয়েকটি রগ কেটে গেছে। কেটে যাওয়া রগগুলো অপারেশন করে জোড়া লাগানো হয়েছে। তবে বর্তমানে মেয়েটি আশঙ্কামুক্ত।
 
ওই ছাত্রীর মা জানান, বখাটে কাশেম তার মেয়েকে পছন্দ করতো এবং দীর্ঘদিন ধরে প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে আসছিল। শুক্রবার সন্ধ্যায় কাশেম তার মেয়েকে কৌশলে শহরের গাঙ্গিনারপাড় মার্কেটে ডেকে নিয়ে যায়। সেখানে যাওয়ার পর কাশেম তাকে হোটেলে যাওয়ার জন্য প্রস্তাব দেয় এবং জোরাজুরি করে। তার প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় তার কাছে থাকা ধারালো অস্ত্র দিয়ে তার মেয়েকে কুপিয়ে পালিয়ে যায় কাশেম। বখাটে কাশেমের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেছেন তিনি।
 
/এসকে/
  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • অালোচিত