ঢাকা, শুক্রবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৭, ১ পৌষ ১৪২৪ অাপডেট : ১৪ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১৫ আগস্ট ২০১৭, ১২:১৯

প্রিন্ট

ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত বঙ্গবন্ধুর পলাতক খুনিরা কে কোথায়?

বিশেষ প্রতিবেদক

বিদেশে পলাতক  জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছয় খুনিকে আজও ফেরত আনা গেল না। ফাঁসির দন্ড নিয়ে তারা বিদেশে পলাতক রয়েছে। স্বরাষ্ট্র-পররাষ্ট্র ও আইন মন্ত্রনালয়ের নানা উদ্যোগ নেয়া সত্বেও পলাতক এসব খুনিদেরকে দেশে ফিরিয়ে আনা যাচ্ছে না। ফাঁসির দন্ডও কার্যকর করা যাচ্ছে না।

পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের বিভিন্ন সুত্র জানায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের খুনি লে. কর্নেল (বরখাস্ত) খন্দকার আবদুর রশিদ, মেজর (বরখাস্ত) শরিফুল হক ডালিম, লে.কর্নেল (অব:) এএম রাশেদ চৌধুরী, মেজর (অব:) এসএইচএম বি নূর চৌধুরী, ক্যাপ্টেন (অব) আবদুল মাজেদ ও রিসালদার মোসলেহ উদ্দিন খান এখনো বিদেশে পালিয়ে রয়েছেন।

এদের মধ্যে নূর চৌধুরী কানাডায়, রাশেদ চৌধুরী যুক্তরাষ্ট্রে ও মোসলেহ উদ্দিন জার্মানিতে রয়েছেন বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে। কিন্তু বাকি তিনজন কোথায় রয়েছেন সে ব্যাপারে নিশ্চিত তথ্য নেই। তবে ভিন্ন একটি সূত্র জানায় এ তিনজনের একজন ভারতে পলাতক রয়েছেন। খন্দকার আবদুর রশিদ লিবিয়ার বেনগাজি বা পাকিস্তানে থাকতে পারেন। শরিফুল হক ডালিমের ব্যবসাসহ বিভিন্ন কর্মকাণ্ড কেনিয়াকে কেন্দ্র করে পরিচালিত হলেও তিনি মাঝে মধ্যে লিবিয়া ও পাকিস্তানে আসা-যাওয়া করেন। আবদুল মাজেদ সেনেগালে বা লিবিয়ায় থাকতে পারেন।

পলাতক খুনিদের দেশে ফিরিয়ে আনার বিষয় নিয়ে আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, নূর চৌধুরী কানাডায়। সে দেশের আইন অনুসারে ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিদের ফিরিয়ে দেওয়ার বিষয়ে জটিলতা বেশি। তারা আমাদের সাজা কমাতে বলেছিলো। রাশেদ চৌধুরীকে ফিরিয়ে আনার ব্যাপারেও যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আলোচনা চলছে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেন, পলাতক ছয় খুনিকে দেশে ফিরিয়ে আনতে কূটনৈতিক ও আইনি প্রচেষ্টা চালানো হচ্ছে। মোসলেহ উদ্দিনকে জার্মানিতে বসবাসকারী বাংলাদেশিরা দেখেছেন। তবে দেশটির ঠিক কোথায় তিনি বাস করছেন, এ ব্যাপারে এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি। বিষয়টি তদন্ত করে দেখার জন্য গোয়েন্দা সংস্থাগুলোকে নির্দেশ দিয়েছি। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধুর খুনিদের ফিরিয়ে আনতে কূটনৈতিক পর্যায়ে তৎরতা অব্যাহত আছে। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এই বিষয়ে সার্বক্ষণিক কাজ করছে। আমরা আশা করছি খুব কম সময়ের মধ্যেই খুনিদের ফিরিয়ে আনতে পারবো। মন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধুর পলাতক খুনিদের ফিরিয়ে আনতে সরকারের একটি টাস্কফোর্স কমিটি আছে। যে কমিটির প্রধান আইনমন্ত্রী আনিসুল হক,আমি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে এই কমিটির সদস্য। পররাষ্ট্রমন্ত্রী, আইজিপি এই কমিটির সদস্য। সংশ্লিষ্ট তিন মন্ত্রণালয়ের সচিবরাও পদাধিকার বলে এই কমিটির সদস্য। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরো বলেন,সম্প্রতি আমরা এই কমিটির মিটিং করেছি। সেই মিটিংয়ে পলাতক খুনিদের ফিরিয়ে আনার বিষয়ে কিভাবে কূটনৈতিক তত্পরতা চালানো হবে,সে বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়েছে।

পররাষ্ট্র ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, পলাতক এসব আত্মস্বীকৃত খুনিদেরকে দেশে ফিরিয়ে আনতে সরকার নানামুখী উদ্যোগ অব্যাহত রেখেছে। যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা ও লিবিয়ার কাছে চিঠিও দেওয়া হয়েছে। ইন্টারপোলের সহায়তা চাওয়া হয়েছে। এদিকে ১৫ আগস্ট জাতির জনক বঙ্গবন্ধুকে যারা হত্যার সঙ্গে জড়িত ছিল শুধু তাদেরেই নয়,যারা এর পেছনে ষড়যন্ত্র করেছিল তাদেরও বিচার হওয়া দরকার বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের  প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ। তিনি বলেন, ১৫ আগস্টের হত্যাকান্ডে যারা সরাসরি অংশ নিয়েছিলেন শুধু তাদের মাধ্যমেই এই হত্যাকাণ্ড সংঘটিত হয়নি। এই হত্যাকাণ্ড দেশি-বিদেশি ষড়যন্ত্রের ফল।

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • অালোচিত