ঢাকা, সোমবার, ১৫ অক্টোবর ২০১৮, ৩০ আশ্বিন ১৪২৫ অাপডেট : কিছুক্ষণ আগে English

প্রকাশ : ১৭ জুলাই ২০১৮, ১৩:৩৫

প্রিন্ট

আন্দোলনের যৌক্তিকতা নেই, মুক্তিযোদ্ধা কোটা থাকবে: প্রধানমন্ত্রী

আন্দোলনের যৌক্তিকতা নেই, মুক্তিযোদ্ধা কোটা থাকবে: প্রধানমন্ত্রী
অনলাইন ডেস্ক

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, কোটা বিষয়ে উচ্চ আদালতের রায় মানা হবে। তবে আন্দোলনের কোনো যৌক্তিকতা নেই। কোটাবিরোধী আন্দোলনের নামে ভিসির বাস ভবন ভাঙচুর ও লুটপাট করে ঘৃণ কাজ করেছে আন্দোলনকারীরা। উচ্চ আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী কোটা পদ্ধতি চালু আছে। হাইকোর্টের রায় মেনে ৩০ শতাংশ মুক্তিযোদ্ধা কোটা থাকবে। বঙ্গবন্ধু মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য ৩০ শতাংশ চাকরির ব্যবস্থা করেছিলেন। সরকারি চাকরিতে মুক্তিযোদ্ধা কোটা রাখতে হাইকোর্টের রায় সরকার অবমাননা করতে পারে না

মঙ্গলবার গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে কক্সবাজার জেলার ভাতাভোগী মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানী ভাতা জিটুপি পদ্ধতিতে প্রদান কার্যক্রমের উদ্বোধন করে একথা বলেন তিনি।

এই পদ্ধতিতে মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতা সরাসরি মুক্তিযোদ্ধাদের ব্যাংক হিসাবে প্রদান করা হবে।

আদালতের নির্দেশনা থাকার পরও শিক্ষক ও জ্ঞানীজনরা কীভাবে কোটা আন্দোলনকে সমর্থন দেন বলে প্রশ্ন তোলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, যুদ্ধাপরাধী ও তাদের অনুসারীরা যেন আর রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা বা গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে আসতে না পারে, সেদিকেও লক্ষ্য রাখতে হবে।

প্রধানমন্ত্রী গত এপ্রিলে সংসদে তার কোটা বাতিলের ঘোষণার কথা তুলে ধরে বলেন, কোটা আন্দোলনের নামে যখন ভিসির বাড়িতে আক্রমণ, তাদের হত্যার প্রচেষ্টা, ভাঙচুর, লুটপাট, একেবারে বেডরুমে ঢুকে গিয়ে লুটপাট করেছে, গয়নাগাটি, টাকা পয়সা সব লুটপাট করেছে, অরাজক পরিস্থিতি, আমি বললাম, ঠিক আছে, কোটা থাকবে না। মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রী যখন বললেন, এ নিয়ে হাইকোর্টে একটা রায় আছে, আমি তখন পার্লামেন্টে বললাম, যেহেতু এটা হাইকোর্টের রায়, আমরা তো এটা সম্পূর্ণভাবে বাতিল করতে পারব না। তারপরেও প্রিন্সিপাল সেক্রেটারিকে দিয়ে একটা কমিটি করে দিয়েছি, তারা এটা দেখবে। কিন্তু হাইকোর্টের রায়কে আমরা অবমাননা করতে পারি না।

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • অালোচিত