ঢাকা, সোমবার, ২০ আগস্ট ২০১৮, ৫ ভাদ্র ১৪২৫ অাপডেট : ৭ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১৭ জুলাই ২০১৮, ১৯:৩২

প্রিন্ট

ঘুষ খাওয়াই তার চাকরি

ঘুষ খাওয়াই তার চাকরি
শরীয়তপুর প্রতিনিধি

নাম তার দলিল উদ্দিন। শরীয়তপুর জেলা হিসাব রক্ষণ অফিসের অডিটর। অভিযোগ, এই লোকটি ঘুষ ছাড়া কোনো কাজ করেন না। সরাসরিই ঘুষ গ্রহণ করেন। তার ঘুষ খাওয়ায় অতিষ্ঠ হয়ে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) কাছে অভিযোগ করেছেন জেলার ১২টি সরকারি অফিসের হিসাব শাখায় নিয়োজিত কর্মচারীরা। তারা এখন দলিল উদ্দিনের হাত থেকে রক্ষা পেতে চান।

 

ভুক্তভোগীদের অভিযোগ, জুন মাসের বিল পাশ করতে দলিল উদ্দিনকে দিতে হয় উৎকোচ। টাকা না দিলে মাসের পর মাস বিলের টোকেন না দিয়ে ঘুরাতে থাকেন তিনি। আর টাকা দিলেই বিল পাস। যে সকল কর্মচারী বদলি হয়ে যান, তাদের এলপিসি তৈরির জন্য তাদের প্রত্যেকের কাছ থেকে ১ থেকে ৫ হাজার টাকা পর্যন্ত ঘুষ নেন দলিল উদ্দিন। 

 

এছাড়া নতুন চাকরিপ্রাপ্তদের জিপিএফ খোলার জন্য ২-৫ হাজার টাকা নেন। কোন পেনশন কেস হলেই ২০ হাজার টাকা থেকে শুরু করে ৫০ হাজার টাকা পর্যন্ত ঘুষ দিতে হয় তাকে। নতুন কোন কর্মকর্তা বা কর্মচারী বদলি হয়ে শরীয়তপুর আসলে তাদের বেতন ভাতা ও নাম রেজিস্ট্রারে উত্তোলনের জন্য মোটা অঙ্কের টাকা দাবি করেন দলিল উদ্দিন। টাকা না দিলে মাসের পর মাস ঘুরাতে থাকেন।  বন্ধ রাখেন বেতন ভাতা। 

 

ভুক্তভোগীদের আরো জানান, এসব অপকর্মের প্রতিবাদ করলে দলিল উদ্দিন বলেন, ‘আমার বাড়ি শরীয়তপুর জেলায়, বেশি বাড়াবাড়ি করলে দেখিয়ে দিব।’

 

সদর উপজেলা প্রকৌশলী তৈয়বুর রহমান জানান, ৪র্থ শ্রেণির কর্মচারী এসকেন্দারের কাছে দলিল উদ্দিন টাকা চেয়েছিল। তিনি টাকা চান অনেক। এটা নিয়ে দলিল উদ্দিন সাহেব খুবই জ্বালাচ্ছেন। একটা গরিব মানুষ এলপিয়ারে গেছেন। এখন তিনি এত টাকা কোথা থেকে দিবেন। টাকা দিতে না পারায় ফাইল পরে আছে। কি করবো বলেন!  মহা বিপদে আছি। 

 

উপজেলা প্রকৌশলী কার্যালয়ের কার্য সহকারী এসকেন্দার আলী জানান, পেনশনের ৪ ভাগের ১ ভাগ টাকা দলিল উদ্দিন চেয়েছিলেন। তার চাওয়া ঘুষের পরিমাণ ৮০ হাজার টাকা। 

 

এ ব্যাপারে দলিল উদ্দিনের কাছে মুঠোফোনে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘অভিযোগ পেয়েছেন, আপনি নিউজ করেন। ’

 

এ বিষয়ে জেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সাধারণ সম্পাদক মো. বিলাল হোসেন খান জানান, দলিল উদ্দিনের নামে দুদকের ফরিদপুর জোনে সরাসরি অভিযোগ দিয়েছেন সরকারি কর্মচারীরা। আমাদের কাছেও কপি দিয়েছেন। আমার জানা মতে অফিসের প্রত্যেক লোক তার বিরুদ্ধে। দলিল উদ্দিনের বিরুদ্ধে প্রতিদিনই অভিযোগ আসে।  আমরা চেষ্টায় আছি তার এই ঘুষ দুর্নীতি ধরতে।

 

বাংলাদেশ জার্নাল/জেডএইচ

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • অালোচিত