ঢাকা, বুধবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৮, ২ কার্তিক ১৪২৫ অাপডেট : ৪ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৭:৩১

প্রিন্ট

মেয়ের গলায় ছুরি ধরে মাকে ধর্ষণচেষ্টা, ব্যর্থ হয়ে মাথা ন্যাড়া

মেয়ের গলায় ছুরি ধরে মাকে ধর্ষণচেষ্টা, ব্যর্থ হয়ে মাথা ন্যাড়া
টাঙ্গাইল প্রতিনিধি

স্বামী প্রবাসে। ৫ বছরের একমাত্র মেয়েকে নিয়েই জীবনসংসার। বখাটেদের নজরে পড়ে যান। কটূক্তি আর প্রলোভন থেকে নিজেকে রক্ষার সব চেষ্টায় করেন। তারপরও শেষ রক্ষা হলো না গৃহবধূর। বখাটেরা রাতে তার ঘরে ঢুকে মেয়ের গলায় ছুরি ধরে। সবচেয়ে মূল্যবান সম্ভ্রম লুটের চেষ্টা করে। উপায়ন্তর না দেখে আর্তচিৎকার করেন।

এরপরই ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে ক্ষিপ্ত বখাটেরা তার মাথা ন্যাড়া করে পালিয়ে যান। যাবার আগে হুমকি দিয়ে যান, ঘটনা প্রকাশ করলে সংসার টিকবে না। সবাইকে হত্যা করা হবে।

গত ৯ সেপ্টেম্বর ঘটনাটি ঘটেছে টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার ইচাইল গ্রামে। অপমান-গঞ্জনা সয়ে গত ১৫ সেপ্টেম্বর ওই গৃহবধূ থানায় বখাটেদের নামে অভিযোগ দেন। সেটিকে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন মামলা হিসেবে নিয়ে পুলিশ দু’জনকে গ্রেপ্তার করেছে।

তারা হলেন, ইচাইল গ্রামের শামছুল ইসলামের ছেলে শরীফুল ইসলাম (২৮) ও বিল্লাল মিয়ার ছেলে শফিকুল ইসলাম (২৩)।

রোববার তাদের আদালতে হাজির করে রিমান্ডে নেয়ার আবেদন করেছেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা। বিষয়টি সোমবার জানাজানি হয়।

মির্জাপুর থানার ওসি একেএম মিজানুল হক জানান, ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে প্রবাসীর স্ত্রীকে ন্যাড়া করার ঘটনায় দায়ের মামলায় অভিযান চালিয়ে গত শনিবার রাতে শরীফুল ও শফিকুলকে গ্রেপ্তার করা হয়।

তিনি জানান, রোববার গ্রেপ্তার দু’জনের ৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে পাঠানো হয়। এ ব্যাপারে এখনো তদন্ত চলছে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, কাতার প্রবাসীর স্ত্রী তার ৫ বছর বয়সী মেয়েকে স্কুলে নিয়ে যাওয়া-আসার পথে প্রায় এলাকার কয়েক বখাটে উত্ত্যক্ত করতো। কিন্তু, তিনি তাতে কখনো সাড়া দেননি। গত ৯ সেপ্টেম্বর রাতের খাবার খেয়ে মেয়েকে নিয়ে ঘুমাতে যান ওই গৃহবধূ। রাত অনুমানিক ১১টার দিকে বখাটেরা কৌশলে তার ঘরে ঢোকে।

এ সময় মেয়ের গলায় ছুরি ধরে তারা তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করে। এ সময় গৃহবধূ আর্তচিৎকার করলে মেয়েকে খুন করার হুমকি দেয়া হয়। ধর্ষণে ব্যর্থ হলে এক পর্যায়ে বখাটেরা তার হাত-পা বেঁধে মেশিন দিয়ে মাথা ন্যাড়া করে দেয়। এ ঘটনা প্রকাশ করলে তার সংসার টিকবে না ও হত্যার হুমকি দিয়ে যায়।

পরে এ ঘটনায় ওই গৃহবধূ চারজনের বিরুদ্ধে মির্জাপুর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন।

ওসি জানান, মামলার দুই আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বাকিদের গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত আছে।

গ্রেপ্তারদের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। তদন্তের স্বার্থে বাকি দুই আসামির নাম প্রকাশ করেননি তিনি।

বাংলাদেশ জার্নাল/এসকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • অালোচিত