ঢাকা, বুধবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৮, ২ কার্তিক ১৪২৫ অাপডেট : ২ ঘন্টা আগে English

প্রকাশ : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১:২৮

প্রিন্ট

বেনাপোল বন্দরে আমদানি-রফতানি বন্ধ

বেনাপোল বন্দরে আমদানি-রফতানি বন্ধ
বেনাপোল প্রতিনিধি

যশোরের বেনাপোলের বিপরীতে ভারতের পেট্রাপোল বন্দরে বাংলাদেশি এক সিঅ্যান্ডএফ কর্মচারীকে মারপিটের ঘটনায় বুধবার বিকেল সাড়ে ৪টা থেকে বেনাপোল-পেট্রাপোল বন্দর দিয়ে দুই দেশের মধ্যে আমদানি-রফতানি বন্ধ রয়েছে। সিঅ্যান্ডএফ এজেন্টের উভয় দেশের প্রতিনিধি বিষয়টি মীমাংসার জন্য বৈঠকে বসছে বলে জানা গেছে।

বেনাপোল সিঅ্যান্ডএফ এজেন্টস স্টাফ অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দিন জানান, বেনাপোলের এম আর ট্রেডিং ফ্রেশ নামের একটি সিঅ্যান্ডএফের কর্মচারী শাহ আলম (৩০) বিকেল ৪টার দিকে পেট্রাপোল বন্দরে যায়। সেখানে রফতানি পণ্যের ট্রাক ভাড়া নিয়ে বাকবিতণ্ডার এক পর্যায়ে ভারতের পেট্রাপোল বন্দরের সিঅ্যান্ডএফ কর্মচারীরা তাকে বেদম মারপিট করে আহত করে। এ ঘটনা জানতে পেরে বেনাপোল সিঅ্যান্ডএফ এজেন্টস স্টাফ অ্যাসোসিয়েশনের চেকপোস্টে কর্মরত কর্মচারীরা উত্তেজিত হয়ে বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে আমদানি-রফতানি বন্ধ করে দিয়ে বিক্ষোভ করে। পরে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) ও ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিএসএফ) এবং সে দেশের সিঅ্যান্ডএফ কর্মচারীরা প্রাথমিক আলোচনার মাধ্যমে বাংলাদেশি সিঅ্যান্ডএফ কর্মচারী শাহ আলমকে ফেরত দেয়ার কথা জানান।

বিকেল সাড়ে সাড়ে ৪টার দিকে ভারতের বনগাঁও মোটর শ্রমিক নেতা প্রভাস কুমার শাহ আলমকে নিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করলে উত্তেজিত বেনাপোল সিঅ্যান্ডএফ কর্মচারীরা তাকে মারপিট করে। এরপর থেকে দু‘দেশের মধ্যে সকল প্রকার আমদানি-রফতানি বাণিজ্য বন্ধ হয়ে যায়। এ সময় বেনাপোল চেকপোস্ট ও পেট্রাপোল চেকপোস্টে কয়েকশ সিঅ্যান্ডএফ কর্মচারীদের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। বিজিবি ও বিএসএফ তাদের সরিয়ে দেয়।

বেনাপোল সিঅ্যান্ডএফ এজেন্টস স্টাফ অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মুজিবর রহমান জানান, এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বেনাপোল ও পেট্রাপোল চেকপোস্টে উত্তেজনা দেখা দিলেও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। উভয়পক্ষ আলোচনায় বসে বিষয়টি মীমাংসা করা হবে।

বেনাপোল চেকপোস্ট বিজিবি ক্যাম্পের সুবেদার আব্দুল ওহাব বলেন, বাংলাদেশি সিঅ্যান্ডএফ কর্মচারীকে ওপারে মারপিট করা ও ভারতের মোটর শ্রমিক নেতার ওপর বাংলাদেশে সিঅ্যান্ডএফ কর্মচারীদের হাত তোলা নিন্দনীয় অপরাধ। এটা অত্যান্ত দুঃখজনক।

বেনাপোল কাস্টমস চেকপোস্ট কার্গো শাখার রাজস্ব কর্মকর্তা হাবিবুর রহমান জানান, বিকেল থেকে দুই দেশের সিঅ্যান্ডএফ কর্মচারীদের মারধরের ঘটনায় বেনাপোল-পেট্রাপোল বন্দর দিয়ে আমদানি-রফতানি বাণিজ্য বন্ধ রয়েছে। আলোচনা চলছে। মীমাংসা হলে আমদানি-রফতানি বাণিজ্য পুনরায় চালু হবে।

বাংলাদেশ জার্নাল/এসকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • অালোচিত