ঢাকা, বুধবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৮, ২ কার্তিক ১৪২৫ অাপডেট : ৩ ঘন্টা আগে English

প্রকাশ : ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২০:৫৫

প্রিন্ট

কোটালীপাড়ায় জমি দখল করে প্রভাবশালীর দেয়াল!

কোটালীপাড়ায় জমি দখল করে প্রভাবশালীর দেয়াল!
বয়স ৮০ ছুঁই ছুঁই, এই বয়সে তাকে পানি ভর্তি বালতি নিয়ে পাড়ি দিতে হচ্ছে উচু দেয়াল। ছবি- বাদল সাহা, বাংলাদেশ জার্নাল।
গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি

গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া উপজেলার নয়াকান্দি তুরুর বাজারে জমি দখল করে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করার অভিযোগ পাওয়া গেছে এক প্রভাবশালীর বিরুদ্ধে। জায়গা দখল করে দেয়াল দেয়ায় বিপাকে পড়েছেন কয়েকটি পরিবার।

দ্রুত জমি ফেরত পাওয়াসহ এসব পরিবার ও ব্যবসায়ীদের ভোগান্তির কথা বিবেচনা করে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য প্রশাসনের কাছে দাবি জানিয়েছেন ক্ষতিগ্রস্তরা।

তবে অভিযুক্ত ব্যক্তিরা অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানিয়েছেন।

এখনো গাছে ওঠার বয়স হয়নি, কিন্তু বাধ্য হয়েই পিঠে ভারী ব্যাগ নিয়ে মই বেয়ে পার হতে হচ্ছে উচু দেয়াল। গন্তব্য তার স্কুল।

সরেজমিনে দেখা গেছে, টুঙ্গিপাড়া উপজেলার করফা গ্রামের প্রভাবশালী ব্যবসায়ী নুর ইসলাম শেখ নয়াকান্দির তুরুর বাজারে ব্যক্তিগত জমিসহ সরকারি জমিও দখল করে নিয়েছেন।সেই জমির উপর আবার দেয়ালও দিয়েছেন। এতে কয়েকটি পরিবারের সদস্য ও শিক্ষার্থীদের মই দিয়ে দেয়াল পার হয়ে যাতায়াত করতে হচ্ছে। বিপাকে পড়েছেন ৬১টি পরিবার ও ব্যবসায়ীরা।

ওই গ্রামের ভুক্তভোগী আলোমতি বিশ্বাস, আরতি বিশ্বাস, শাজাহান ব্যাপারী জানান, কয়েকটি পরিবার ও শিক্ষার্থীকে মই দিয়ে দেয়াল পার হয়ে যাতায়াত করতে হয়। এতে ভোগান্তিতে পড়েছেন তারা।

সুবোধ সমাদ্দার, বিশ্বনাথ জয়ধর, সুখ রঞ্জন জয়ধর বলেন, প্রতিবাদ করলে তাদের হুমকি দেয়া হয়। যে কারণে কেউ ভয়ে কথা বলতে চান না। দ্রুত জমি ফেরতসহ দোষীদের শাস্তির দাবি জানিয়েছেন তারা।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত নুর ইসলাম শেখকে পাওয়া না গেলেও তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ অস্বীকার করে তার ভাই রফিকুল ইসলাম বলেন, তাদের কেনা বৈধ জমি তারা ভোগ-দখল করছেন। গ্রামের মানুষকে হুমকি দেয়ার প্রশ্নই আসে না।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান উত্তম কুমার বাড়ৈ বলেন, তুরুর বাজারের সরকারি জমির উপর তারা সরকারি স্থাপনা করতে গেলে নুর ইসলাম শেখ খারাপ ভাষায় কথা বলেন। তিনি শুধু সরকারি জমি নয়, ব্যক্তিগত জমিও দখল করেছেন। দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার জন্য তিনি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে দাবি জানিয়েছেন।

এ ব্যাপারে কোটালীপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এস এম মাহফুজুর রহমান জানান, নুর ইসলাস যে সরকারি জায়গা দখলের চেষ্টা করেছেন, সেটি পানি উন্নয়ন বোর্ডের জায়গা। ইতিমধ্যে বিষয়টি পানি উন্নয়ন বোর্ডকে জানানো হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, ব্যক্তিগত যে জায়গা দখল করার অভিযোগ পাওয়া গেছে, তা তদন্ত করে দোষী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বাংলাদেশ জার্নাল/কমল

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • অালোচিত