ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৮, ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ অাপডেট : ১ ঘন্টা আগে English

প্রকাশ : ১৬ অক্টোবর ২০১৮, ১৪:১৬

প্রিন্ট

পুলিশকে লক্ষ্য করে জঙ্গি আস্তানা থেকে গুলি ছোঁড়া হচ্ছে

জঙ্গি আস্তানা থেকে গুলি ছোঁড়া হচ্ছে
নিজস্ব প্রতিবেদক

নরসিংদীর শেখেরচরের ভগীরথপুরে জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে ঘিরে রাখা সাততলা বাড়িতে চলছে কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিট (সিটিটিসি), সোয়াত ও পুলিশের অভিযান।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত মঙ্গলবার দুপুর পৌনে ২টা পর্যন্তও সন্দেহভাজন জঙ্গিদের সঙ্গে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাবাহিনীর পাল্টাপাল্টি গোলাগুলি চলছিল।

মঙ্গলবার দুপুরে ঘটনাস্থলে আসেন পুলিশ মহাপরিদর্শক ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী। অভিযানস্থল থেকে বেরিয়ে তিনি সাংবাদিকদের গোলাগুলির কথা জানান।

আইজিপি বলেন, ওই ভবনে অবস্থান করে থাকা নব্য জেএমবির সদস্যদের আত্মসমর্পনের আহ্বান জানালেও তারা সেটা করেননি। এক পর্যায়ে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের সঙ্গে তাদের গোলাগুলি শুরু হয়। এখন দুই পক্ষই পাল্টাপাল্টি গুলি চালাচ্ছে।

ভেতরে কতজন জঙ্গি রয়েছে জানতে চাইলে আইজিপি বলেন, অভিযান শেষ হওয়ার আগে সেটি বলা সম্ভব নয়। অভিযান শেষ হলে বোঝা যাবে তাদের সদস্যসংখ্যা কতজন ছিল বা কী পরিমান অস্ত্র-গুলি মজুদ ছিল।

এর আগে সকাল ১০টার দিকে সিটিটিসির প্রধান অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার মো. মনিরুল ইসলাম ঘটনাস্থলে উপস্থিত সাংবাদিকদের জানান, অভিযানের আগেই ওই বাড়ির অন্য বাসিন্দাদের নিরাপদে বের করে আনা হয়েছে। অভিযান শুরুর আগে জঙ্গিদের আত্মসমর্পনের আহ্বান জানানো হবে। তারা যদি স্বেচ্ছায় আত্মসমর্পন না করে তাহলে অভিযান শুরু হবে। এক্ষেত্রে সাধারণ মানুষের জানমালের যেন কোনো ক্ষতি যেন না হয় সেদিকে লক্ষ্য রাখা হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

এদিকে অভিযান শুরু আগে ঘটনাস্থলে এসে উপস্থিত হয়েছেন ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা। প্রস্তুত রাখা হয়েছে অ্যাম্বুলেন্সও। ঘটনাস্থলের ৫০০ গজের মধ্যে ১৪৪ ধারাও জারি করা হয়েছে। তবে সকাল থেকে ঘটনাস্থলে গেছেন জেলা প্রশাসক, সিভিল সার্জন, জেলা হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা।

সোমবার (১৫ অক্টোবর) রাত ৯টার পর সন্দেহজনক বাড়ি দুইটি ঘেরাও করে রাখা হয়।

কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিট, সোয়াত ও পুলিশ সদর দফতর এই অভিযান যৌথভাবে পরিচালনা করছে বলে নরসিংদী পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

আস্তানা দুইটির অন্যটি হলো মাধবদীর গাঙপাড় এলাকার ৭ তলা একটি ভবন। এই ভবনের সপ্তম তলায় অন্তত দুই জন নারী ও একজন পুরুষ রয়েছে বলে পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • অালোচিত