ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৮, ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ অাপডেট : ২৪ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১৮ অক্টোবর ২০১৮, ১৮:২৫

প্রিন্ট

ট্রান্সকমের লতিফুর রহমানকে দুদকের জিজ্ঞাসাবাদ

ট্রান্সকমের লতিফুর রহমানকে দুদকের জিজ্ঞাসাবাদ
নিজস্ব প্রতিবেদক

অবৈধ সম্পদ অর্জন ও বিদেশে অর্থ পাচারের অভিযোগে ট্রান্সকম গ্রুপের চেয়ারম্যান ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা লতিফুর রহমানকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। দুদকের তলবে বৃহস্পতিবার বিকালে তিনি সেগুনবাগিচায় কমিশনের প্রধান কার্যালয়ে হাজির হলে অনুসন্ধান কর্মকর্তা দুদকের উপ-পরিচালক মো. নাসির উদ্দিন তাকে দুই ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করেন।

বিকেল তিনটা থেকে পাঁচটা পর্যন্ত জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে বেরিয়ে যাওয়ার সময় বাইরে অপেক্ষায় থাকা সাংবাদিকদের সঙ্গে কোনো কথা বলেননি লতিফুর রহমান। তার ব্যক্তিগত আইনজীবী ফখরুজ্জামান ও চিকিৎসক মুজাহিদুল ইসলাম এসময় তার সঙ্গে ছিলেন।

লতিফুর রহমানকে তলব করে গত ১১ অক্টোবর নোটিস পাঠায় দুদক। জাতীয় পরিচয়পত্র ও পাসপোর্টের সত্যায়িত ফটোকপিসহ তাকে ১৮ অক্টোবর উপস্থিত হতে বলা হয়। ওই নোটিসে বলা হয়, ট্রান্সকম গ্রুপভুক্ত বিভিন্ন শিল্প প্রতিষ্ঠানের গ্যাস বিল, বিদ্যুৎ বিল, ভ্যাট ফাঁকি দিয়ে শত শত কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জন ও বিভিন্ন দেশে অর্থ পাচার এবং অবৈধ উপায়ে সরকারি জমি দখলে রাখার অভিযোগ রয়েছে লতিফুর রহমান ও তার পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে।

ট্রান্সকম গ্রুপের প্রতিষ্ঠানের মধ্যে রয়েছে- ট্রান্সকম ফুড লিমিটেড, ট্রান্সকম ইলেকট্রনিক লিমিটেড, ট্রান্সকম কাস্টমার প্রডাক্টস লিমিটেড, বাংলাদেশ ল্যাম্পস লিমিটেড, মিডিয়া ওয়ার্ল্ড লিমিটেড, টি হোল্ডিং লিমিটেড, রিলায়েন্স ইন্স্যুরেন্স লিমিটেড, ট্রান্স ক্র্যাফট লিমিটেড, বাংলাদেশ ইলেকট্রিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড।

বাংলাদেশের অন্যতম বড় ব্যবসায়ী গ্রুপ ট্রান্সকমের ব্যবসা ছড়িয়ে আছে বেভারেজ, ফার্মাসিউটিক্যালস, ইলেকট্রনিকস, ভোগ্যপণ্য, শিশুখাদ্যসহ বিভিন্ন খাতে। আর এর চেয়ারম্যান লতিফুর রহমান দৈনিক প্রথম আলো, ডেইলি স্টার এবং এফএম রেডিও এবিসির কর্ণধার।

তিনি নেসলে বাংলাদেশ লিমিটেড, হোলসিম সিমেন্ট বাংলাদেশ লিমিটেড এবং ন্যাশনাল হাউজিং ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেডের চেয়ারম্যান। বাংলাদেশে পেপসি, কেএফসি, পিজা হাটের ব্যবসাও রয়েছে তার নিয়ন্ত্রণ।

বাংলাদেশ জার্নাল/এসকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • অালোচিত