ঢাকা, বুধবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৮, ৩০ কার্তিক ১৪২৫ অাপডেট : ১৬ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ২৮ অক্টোবর ২০১৮, ১১:৩৭

প্রিন্ট

আটক জেলার সোহেলকে ৭ দিনের রিমান্ডের আবেদন

আটক জেলার সোহেলকে ৭ দিনের রিমান্ডের আবেদন
কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি

কিশোরগঞ্জের ভৈরবে ট্রেন থেকে প্রায় ৪ কোটি টাকার চেক, এফডিআর ও নগদ টাকা এবং ফেনসিডিলসহ আটক হওয়া চট্টগ্রাম কারাগারের কারাধ্যক্ষ সোহেল রানা বিশ্বাসের (৪২) বিরুদ্ধে ভৈরব জিআরপি থানায় মানি লন্ডারিং ও মাদকের পৃথক দু’টি মামলা হয়েছে।

মাদকের মামলায় সাতদিনের রিমান্ড আবেদন করে ভৈরব জিআরপি থানার পুলিশ শনিবার সন্ধ্যায় সোহেল রানাকে হেলমেট পরিয়ে কিশোরগঞ্জের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুন নূরের আদালতে সোপর্দ করলে বিচারক সোমবার রিমান্ড আবেদনের শুনানির দিন ধার্য করে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন।

তবে মানি লন্ডারিংয়ের মামলার তদন্ত দুদক করবে বলে জানিয়েছেন জিআরপি থানার ওসি মো. আব্দুল মজিদ।

প্রসঙ্গত, শুক্রবার দুপুর গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ভৈরব রেলওয়ে থানার পুলিশ ভৈরব জংশনে চট্টগ্রাম থেকে ময়মনসিংহগামী বিজয় এক্সপ্রেস ট্রেনে অভিযান চালিয়ে সোহেল রানাকে আটক করা হয়।

সোহেল রানা বিশ্বাস ময়মনসিংহ শহরের ১১৯, আর কে মিশন রোডের বাসায় যাচ্ছিলেন। তার কাছ থেকে পুলিশ নগদ ৪৪ লাখ ৪৩ হাজার টাকা, বিভিন্ন ব্যাংকের চেক, স্ত্রী হোসনে আরা পপির নামে এক কোটি টাকার এফডিআর, শ্যালক রকিবুল হাসানের নামে ৫০ লাখ টাকার এফডিআর ও ১২ বোতল ফেনসিডিল জব্দ করে।

এ ঘটনায় ভৈরব রেলওয়ে থানার এসআই আশরাফ উদ্দিন ভূঁইয়া বাদী হয়ে মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ আইন-২০১২ এর ৪ ধারায় এবং ১৯৯০ সালের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের ১৯(১) টেবিল ৩/ক ধারায় দু’টি পৃথক মামলা দায়ের করেছেন।

সোহেল রানার বাসা ময়মনসিংহ শহরে হলেও তিনি ময়মনসিংহের ধোবাউড়া উপজেলার পেড়াগন্ধালিয়া গ্রামের জিন্নত আলী বিশ্বাসের ছেলে। তিনি চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারে জেলার (কারাধ্যক্ষ) পদে কর্মরত রয়েছেন।

ওয়াইএ/

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • অালোচিত