ঢাকা, শনিবার, ২৩ জুন ২০১৮, ৯ আষাঢ় ১৪২৫ অাপডেট : ১২ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১২ মার্চ ২০১৮, ১৬:০৯

প্রিন্ট

নড়াইলে পোকা দমনে জনপ্রিয় হচ্ছে পাচিং পদ্ধতি

নড়াইলে পোকা দমনে জনপ্রিয় হচ্ছে পাচিং পদ্ধতি
নড়াইল প্রতিনিধি

কীটনাশকমুক্ত ধান উৎপাদনের লক্ষ্যে নড়াইলে কৃষকদের মাঝে পাচিং পদ্ধতি জনপ্রিয় হচ্ছে। কৃষি বিভাগের আয়োজনে বিভিন্ন মাঠে পাচিং পদ্ধতিতে পোকা দমন করছে কৃষকরা। 

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, বোরোধানে পোকা দমনে কৃষকরা ক্ষতিকর কীটনাশক ব্যবহার করে থাকে। মাত্রাতিরিক্ত কীটনাশক ব্যবহারের কারণে শত্রু পোকা নিধনের সাথে বন্ধুপোকা গুলিও মারা যায়। এছাড়া কীটনাশকের ব্যবহারে মানবদেহে রোগব্যাধিসহ নানা ধরনের ক্ষতি হয়ে থাকে। ধানসহ ফসলে কীটনাশকের ব্যবহার কমাতে কৃষি মন্ত্রীর নির্দেশে সারাদেশে পাচিং উৎসবের আয়োজন করা হয়েছে।

সদর উপজেলার ভদ্রবিলা ইউনিয়নে কর্মরত উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মীর্জা ইমরুল ইসলাম, চন্দনা রানী বিশ্বাস ও মুলিয়া ইউনিয়নে কর্মরত উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মাহাবুবুর রহমান ও তহমিনা হোসাইন জানান, ভদ্রবিলা ইউনিয়নের বিভিন্ন বিলে কৃষকদের নিয়ে পাচিং পদ্ধতিতে পোকা দমন করার লক্ষ্যে কাজ করছে। 

বোরো ধানের জমির মধ্যে বাঁশের কঞ্চি, গাছের ডালা পুঁতে দেওয়া হচ্ছে। যার কারণে পাখিরা এসব ডালে বসে পোকাগুলি ধরে খেয়ে ফেলবে। এর মাধ্যমে পোকার আক্রমণ কমে যাবে এবং কৃষকদের কীটনাশক ব্যবহার কমে আসবে। এতে ধান উৎপাদনে কৃষকদের খরচের পরিমাণ কমে আসবে।
ভদ্রবিলা ইউনিয়নের পাইকড়া গ্রামের কৃষক আবজাল শেখ জানান, কৃষি অফিসারের পরামর্শ অনুযায়ী ধানক্ষেত্রে গাছের ডাল পুঁতে দেওয়া হয়েছে। পাখি বসে পোকা ধরে খেয়ে ফেলছে। পোকার আক্রমণ কমে গেলে এখন থেকে কীটনাশক ব্যবহার করা লাগবে না।

সদর উপজেলার সিবানন্দপুর গ্রামে কৃষক মনিরুল ইসলাম জানান, বোরো ধানে পোকার আক্রমনের কারণে ৩/৪ বার কীটনাশকের ব্যবহার করতে হয়। পাচিং পদ্ধতিতে যদি পোকার আক্রমণ কমে যায় তাহলে খুবই ভাল হবে। বিষমুক্ত ধান উৎপাদনের মাধ্যমে স্বাস্থ্য ঝুঁকি কমে আসবে।

নড়াইল জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর উপ-পরিচালক চিন্ময় রায় জানান, জেলার তিনটি উপজেলা পর্যায়ের বিভিন্ন ইউনিয়নের মাঠ পর্যায়ে কর্মরত উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তারা কৃষকদের নিয়ে পাচিং পদ্ধতি নিয়ে কাজ করেছে। মাননীয় কৃষি মন্ত্রীর নির্দেশনায় এই কর্মসূচির মাধ্যমে নড়াইলসহ সারাদেশে কীটনাশকের ব্যবহার কমে আসবে বলে জানান তিনি।

তিনি আরো বলেন, এ পদ্ধতিতে পোকা দমন করলে কৃষকের রাসায়নিক ওষুধ ব্যবহার করতে হয়না এতে করে খচর কম হয় কৃষক লাভবান হয়।
/আরএস/

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • অালোচিত