ঢাকা, বুধবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৮, ৩০ কার্তিক ১৪২৫ অাপডেট : ৪ ঘন্টা আগে English

প্রকাশ : ০৩ জুলাই ২০১৮, ১৭:৩৭

প্রিন্ট

একনেকে ৬৪৯৩ কোটি টাকার ৮ প্রকল্প অনুমোদন

আরো ১৬ জেলায় পাসপোর্ট অফিস নির্মাণ হবে

আরো ১৬ জেলায় পাসপোর্ট অফিস নির্মাণ হবে
অনলাইন ডেস্ক

দেশের ১৬ জেলায় ১৬টি আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস নির্মাণ প্রকল্পের অনুমোদন দিয়েছে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক)। পাসপোর্ট সেবা মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছে দেওয়ার উদ্দেশ্যেই ৮৭ কোটি টাকা ব্যয়ে এই অফিসগুলো নির্মাণ করা হচ্ছে। মঙ্গলবার (৩ জুলাই) একনেক সভায় এই অনুমোদন দেওয়া হয়। সভায় মোট ৮টি প্রকল্পের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এতে মোট ব্যয় হবে ৬ হাজার ৪৯৩ কোটি ৮ লাখ টাকা।

সভা শেষে পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তাফা কামাল প্রেস ব্রিফিংয়ে, এই বছর থেকে ২০২১ সালের জুনের মধ্যে প্রকল্পটি যৌথভাবে বাস্তবায়ন করবে বহিরাগমন ও পাসপোর্ট অধিদফতর এবং গণপূর্ত অধিদফতর। তিনি বলেন, এ প্রকল্পটিসহ একনেকে মোট ৮টি প্রকল্পের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। একনেকে উপস্থাপিত ৮টি (নতুন ও সংশোধিত)) প্রকল্পের মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ৬ হাজার ৪৯৩ কোটি ৮ লাখ টাকা। এর মধ্যে জিওবি ৩ হাজার ২৭৯ কোটি ২২ লাখ টাকা, সংস্থার নিজস্ব তহবিল ১৭৯ কোটি ৯৮ লাখ টাকা ও প্রকল্প সাহায্য ৩ হাজার ৩৩ কোটি ৮৮ লাখ টাকা।

পরিকল্পনামন্ত্রী জানান, পাসপোর্ট অফিস নির্মাণ প্রকল্প ছাড়াও একনেকে জামালপুরের মাদারগঞ্জ উপজেলায় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী ‘শেখ হাসিনা স্পেশালাইজড জুট টেক্সটাইল মিল’ নির্মাণের উদ্যোগ নিচ্ছে সরকার। এ প্রকল্পটি বাস্তবায়নে খরচ হবে ৫১৮ কোটি ৮৫ লাখ টাকা। এটি নির্মিত হলে পোশাক শিল্পের জন্য তিন স্তরের জিএসপি সুবিধা আদায় করার জন্য পরিবেশবান্ধব সংমিশ্রিত সুতা ও কাপড় উৎপাদন করা যাবে। তিনি আরও জানান, ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের আওতায় ‘কমিউনিটি সেন্টার নির্মাণ’ প্রকল্প অনুমোদন করেছে একনেক। এ প্রকল্পটির প্রাক্কলিত ব্যয় ধরা হয়েছে ২৬৮ কোটি ৭৬ লাখ টাকা। এর মধ্যে জিওবি ১৮৮ কোটি ১৩ লাখ টাকা। সংস্থার নিজস্ব তহবিল থেকে ব্যয় হবে ৮০ কোটি ৬৩ লাখ টাকা।

ইনস্টিটিউট অব নিউক্লিয়ার মেডিসিন অ্যান্ড অ্যালায়েড সায়েন্সেস (ইনমাস) ময়মনসিংহ ও চট্টগ্রামে সাইক্লোট্রন ও পেট-সিটি এবং ইনস্টিটিউট অব নিউক্লিয়ার মেডিক্যাল ফিজিক্স (আইএনএমপি), সাভারে সাইক্লোট্রন সুবিধাদি স্থাপন প্রকল্প অনুমোদন করেছে একনেক।

এছাড়া, একনেকে অনুমোদন পাওয়া অন্যন্য প্রকল্পগুলো হলো—স্থানীয় সরকার বিভাগের ‘পদ্মা (যশলদিয়া) পানি শোধনাগার নির্মাণ (ফেজ-১)’ প্রকল্প, বিদ্যুৎ বিভাগের ‘ঢাকাস্থ গুলশানে ১৩২/৩৩/১১ কেভি ভূ-গর্ভস্থ গ্রিড উপকেন্দ্র নির্মাণ’ প্রকল্প, বিদ্যুৎ বিভাগের ‘মোল্লাহাট ১০০ মে. ও. সৌর বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণের জন্য ভূমি অধিগ্রহণ ও ভূমি উন্নয়ন’ প্রকল্প। সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের ‘সোনাইমুড়ী-সেনবাগ-কল্যানদী-চন্দেরহাট-বসুরহাট সড়ক উন্নয়ন’ প্রকল্প।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন পরিকল্পনা সচিব জিয়াউল ইসলাম, সাধারণ অর্থনীতি বিভাগের সদস্য ড. শামসুল আলম প্রমুখ।

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • অালোচিত