ঢাকা, বুধবার, ২৪ অক্টোবর ২০১৮, ৯ কার্তিক ১৪২৫ অাপডেট : ১ ঘন্টা আগে English

প্রকাশ : ১০ আগস্ট ২০১৮, ১৬:৫২

প্রিন্ট

কমতে শুরু করেছে মরিচ ও সবজির দাম

কমতে শুরু করেছে মরিচ ও সবজির দাম
অনলাইন ডেস্ক

সিটি কর্পোরেশনের বেঁধে দেওয়া দাম ৪৮০ টাকা হলেও নিজস্ব চার্ট তৈরি করে ৫০০ টাকা দরে মাংস বিক্রি করছে রাজধানীর মিরপুর-১ কাঁচাবাজারসহ অধিকাংশ বাজারের মাংস বিতানগুলো। তবে সিটি কর্পোরেশনের আলাদা কোনো চার্ট চোখে পড়েনি। তবে কেউ কেউ ৪৮০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে বলে দাবি করলেও ক্রেতারা দাবি করছেন ৫০০ টাকাতেই বিক্রি হচ্ছে গরুর মাংস।

অন্যদিকে বেশ আগেভাগেই বাজারে চলে এসেছে শীতকালীন সবজি হিসেবে সমধিক পরিচিত শিম। তবে দাম বেশ চড়া। রাজধানীর বিভিন্ন বাজারে প্রতিকেজি শিম বিক্রি হচ্ছে ১৬০-১৮০ টাকায়। শিমের পাশাপাশি চড়া দামে বক্রি হচ্ছে ফুলকপি, পাকা টমেটো ও উস্তে। তবে দেশের পরিবহন ব্যবস্থায় স্বাভাবিক পরিস্থিতি ফিরে আসায় রাজধানীব্যাপী কমতে শুরু করেছে সবজিসহ নিত্যপণ্যের দাম। গত সপ্তাহের চেয়ে ৫ থেকে ১০ টাকা কমে বিক্রি হচ্ছে বিভিন্ন ধরনের সবজি। মরিচের ঝাঝও কমে এসেছে।

শুক্রবার রাজধানীর কারওরানবাজার, মিরপুর-১ কাঁচাবাজার, রামপুরা, মালিবাগ হাজীপাড়া, খিলগাঁও, সেগুনবাগিচা এবং শান্তিনগরের বিভিন্ন বাজার ঘুরে এমন তথ্য পাওয়া গেছে।

নিজেদের বেঁধে দেওয়া দামে মাংস বিক্রি প্রসঙ্গে বিক্রেতা বেলাল হোসেন বলেন, সিটি কর্পোরেশন ওয়ালারা আমাদের গরু দেয় না। শুধু দাম বেঁধে দেয়। তাদের দামে আমরা বাজারে গরু পাই না। মাংস কিভাবে ৪৮০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করবো।

এদিকে বন্যা, অতিবৃষ্টি ও সরবরাহ কম থাকার অজুহাতে উচ্চমূল্যে বিক্রি হলেও অবশেষে বাজারে সরবরাহ ভালো থাকায় কমে এসেছে কাঁচা মরিচের দাম। সরবরাহ ঠিক থাকলে মরিচসহ নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের দাম বাড়বে না বলে জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা।

মরিচের বাজার ঘুরে দেখা যায়,গত সপ্তাহে ১৫০ থেকে ১৬০ টাকা দরে বিক্রি হওয়া মরিচ বাজারভেদে ১০০ থেকে ১২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। গত সপ্তাহে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভের অজুহাতে প্রায় দ্বিগুন দামে বিক্রি হয়েছে প্রতিটি সবজি। গত সপ্তাহে বাজারে ৬০-৮০ টাকায় বিক্রি হওয়া সবজি বর্তমানে বিক্রি হচ্ছে ৩৫-৪৫ টাকায়।

ব্যবসায়ীরা বলছেন, গত সপ্তাহে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভের কারণে বাজারে সবজির সরবরাহ কম ছিল। মালিকরা ঢাকায় ট্রাক পাঠাতে আতঙ্কে ছিল। কিন্তু বর্তমানে রাজধানীসহ সারাদেশে স্বাভাবিক অবস্থা বিরাজ করায় বাজারে সব রকম সবজির সরবরাহ ভালো। তাই দাম কমতে শুরু করেছে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, বাজারে প্রতি কেজি চিচিঙ্গা বিক্রি হচ্ছে ৪০ টাকা, পটল ৪০ টাকা, ঢেঁড়স ৫০ টাকা, কাকরোল ৫০ টাকা, পেঁপে ৩০ টাকা, লম্বা বেগুন ৪০ টাকা, গোল বেগুন ৫০ টাকা, শসা ৪০ টাকা, টমেটো ৮০ টাকা, করলা ৫০ টাকা এবং প্রতি হালি লেবু বিক্রি হচ্ছে ২৫-৩০ টাকায়।

গত সপ্তাহের মতোই খুচরা বাজারে প্রতি ডজন ডিম বিক্রি হচ্ছে ১১০-১২০ টাকায়। আর পাইকারি বাজারে প্রতি ডজন ডিম বিক্রি হচ্ছে ১০৫-১১০ টাকায়। খুচরা বাজারগুলোতে প্রতি হালি ডিম ৩৫ থেকে ৪০ টাকায় বিক্রি হতে দেখা যায় আজ।

এদিকে স্থিতিশীল রয়েছে মাছ ও মুরগির দাম। বাজারে গত সপ্তাহের মতো বয়লার মুরগি ১৫০-১৫৫ টাকা এবং লাল লেয়ার মুরগি ২৫০-২৬০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। আর প্রতি জোড়া কর্ক মুরগি বিক্রি হচ্ছে ৩৫০-৩৬০ টাকা।

রাজধানীর মাছের বাজার ঘুরে দেখা গেছে, প্রতি কেজি রুই ৩৬০-৪০০ টাকা, কাতলা ৪০০ টাকা, তেলাপিয়া ১৪০-২০০, আইড় ৪০০-৬০০ টাকা, বাইলা ৩৬০-৫০০ টাকা, বাইন ৪০০-৬০০ টাকা, গলদা চিংড়ি ৪৫০-৬০০ টাকা, পুঁটি ১৮০-২০০ টাকা, পোয়া ৪০০-৬০০ টাকা, মলা ৩২০-৪০০ টাকা, পাবদা ৪০০-৫০০ টাকা, বোয়াল ৪৫০-৫০০ টাকা, শিং ৪০০-৭০০, দেশি মাগুর ৫০০-৭০০ টাকা, শোল ৫০০-৭০০ টাকা, পাঙ্গাস ১৪০-১৬০ টাকা, চাষের কৈ ২০০-২৮০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া ৭০০ থেকে ৮০০ গ্রামের ইলিশ বিক্রি হচ্ছে ৫০০ থেকে ৭০০ টাকায়।

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • অালোচিত