ঢাকা, বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৪ আশ্বিন ১৪২৫ অাপডেট : ৫ ঘন্টা আগে English

প্রকাশ : ১৯ মার্চ ২০১৮, ২০:৩৭

প্রিন্ট

বাংলা চ্যানেল পাড়ি দিয়ে ঢাবি ছাত্রের রেকর্ড

বাংলা চ্যানেল পাড়ি দিয়ে ঢাবি ছাত্রের রেকর্ড
জোবায়ের আবদুল্লাহ

টেকনাফের শাহপরীর দ্বীপ থেকে সেন্টমার্টিনের বাংলা চ্যানেল পাড়ি দিতে গিয়ে অনন্য রেকর্ড গড়লেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) শিক্ষার্থী সাইফুল ইসলাম রাসেল। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের মৃত্তিকা, পানি ও পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের স্নাতক পরীক্ষার ফলপ্রার্থী।

বাংলা চ্যানেলে সাঁতার প্রতিযোগিতার এটি ছিলো ১৩তম আয়োজন। এ আয়োজনে প্রথমবারের মতো অংশগ্রহণ করেই সবাইকে তাক লাগিয়ে দিয়ে অনন্য এ রেকর্ড গড়েন রাসেল।

এ চ্যানেল পাড়ি দিতে রাসেল সময় নেন মাত্র ৩ঘন্টা ৮মিনিট ৭সেকেন্ড। এর আগে বাংলা চ্যানেল পাড়িতে রেকর্ড ছিলো ইন্ডিয়ার একজনের। তিনি সময় নিয়েছিলেন ৩ঘন্টা ৪০ মিনিট। তারও আগে ছিলো নেদারল্যান্ডের একজনের। তিনি সময় নিয়েছিলেন ৩ঘন্টা ৪৭ মিনিট।

সোমবার (১৯ মার্চ) সকাল ১১টা ২০মিনিটে টেকনাফের শাহপরীর দ্বীপ জেটি থেকে ১৩তম সাঁতার প্রতিযোগিতা শুরু হয়। এবারই প্রথম দেশের দু’জন নারীসহ ২৮ জন সাঁতারু টেকনাফের শাহপরীর দ্বীপ থেকে সেন্টমার্টিনের বাংলা চ্যানেলটি পাড়ি দিয়েছেন। রাসেলের সাথে এ প্রতিযোগিতায় ঢাবির আরো এক শিক্ষার্থী অংশ নেয়। তিনি হলেন ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী শাহাদাত বাশার।

এ আসরে শাহ পরীর দ্বীপ থেকে শুরু হয়ে সেন্ট মার্টিন পর্যন্ত মোট ১৬.০১ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে এবং তিন ঘণ্টা ৮ মিনিট ৭ সেকেন্ড সাঁতার কেটে সর্বপ্রথম সেন্টমার্টিনে এসে পৌঁছান সাইফুল ইসলাম রাসেল। এরপর একে একে সোয়া ৪টায় সাঁতারুরা তীরে উঠে আসেন। এ প্রতিযোগিতায় প্রথমবারের মতো যোগ দিয়েছেন ঢাকা, বগুড়া ও রংপুরের ২৩ জন। এদের মধ্যে দুজন নারী হলেন পূর্ণিমা খাতুন ও মিতু আখতার।

জানতে চাইলে সাইফুল ইসলাম রাসেল বাংলাদেশ জার্নালকে বলেন, এটা আমার প্রথম কোনো সাঁতার প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করা। এর আগে আমি কোনো সাঁতার প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করিনি। প্রথম কোনো প্রতিযোগিতায় অংশ করেই রেকর্ড করা আসলে ভাগ্যের ব্যাপার।

তিনি আরো বলেন, এবারের আয়োজনে মোট ২৮জন সাঁতারু অংশ নেয়। এর মধ্যে ২জন নারী প্রতিযোগীও ছিলো। তাদের মধ্যে ১৮জন সাঁতার সম্পূর্ণ করতে পারে। বাকি ১০জন প্রতিকূল পরিবেশের কারণে তথা সমুদ্রে প্রচুর ঢেউয়ের কারণে সাঁতার সম্পূর্ণ করতে পারে নি।

প্রয়াত কাজী হামিদুল হকের স্মরণে এ সাঁতার প্রতিযোগিতার আয়োজন করে ষড়জ অ্যাডভেঞ্চার ও এক্সট্রিম বাংলা। ২০০৬ সালের ১৪ জানুয়ারি সেন্টমার্টিনে বাংলা চ্যানেলের যাত্রা শুরু হয়।

জেডআই

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • অালোচিত