ঢাকা, শনিবার, ১৮ আগস্ট ২০১৮, ৩ ভাদ্র ১৪২৫ অাপডেট : ২৭ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১২ জুন ২০১৮, ২২:৩৩

প্রিন্ট

কোনো ঈদেই মেয়েদের নতুন কাপড় দিতে পারিনি: আক্ষেপ শিক্ষকের

কোনো ঈদেই মেয়েদের নতুন কাপড় দিতে পারিনি: আক্ষেপ শিক্ষকের
অনলাইন ডেস্ক

এমপিওভুক্তির দাবিতে আবারো আন্দোলনে নেমেছেন নন-এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীরা। এই রমজানের মধ্যে দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এসে অবস্থান নিয়েছেন। তেমনি একজন শিক্ষক হলেন মো. আমিনুল ইসলাম। দিনাজপুরের ভাদুরিয়া মডেল নিম্ন মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের শিক্ষক তিনি। 

 

পরিবারকে রেখে ঈদের আগে দিনাজপুর থেকে ঢাকায় এসেছেন তিনি। অংশ নিয়েছেন আন্দোলনে। কান্না জড়িত কণ্ঠে আমিনুল ইসলাম বলেন, ২০০১ সালে স্কুলটি প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই তিনি বিনাবেতনে শিক্ষকতা করছেন। সব যোগ্যতা অর্জনের পরও গত ১৭ বছরে স্কুলটি এমপিভুক্ত হয়নি। এমপিওভুক্তির দাবিতে গত ডিসেম্বরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে শীতের মধ্যে আন্দোলন করতে গিয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন। সরকারের আশ্বাসে বাড়ি ফিরে গিয়েছিলেন। কিন্তু বাজেটে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তিতে কোনো বরাদ্দ না রাখায় তিনি হতাশ হয়েছেন। নিরুপায় হয়ে ঈদের আগে পরিবার রেখে এই আন্দোলনে এসেছেন তিনি।

 

এই শিক্ষক আরো বলেন, প্রতিবছর বাজেটে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তিতে বরাদ্দ দেবে সেই আশায় বুক বেঁধে থাকতে থাকতে ১৭ বছর পার হয়ে গেছে। এখন চাকরির বয়সও নেই। ক্লাসের ফাঁকে কৃষিকাজ করে সামান্য আয়ে সংসার সামলাতে পারছি না। কোনো ঈদেই স্ত্রী ও দুই মেয়েকে নতুন কাপড় কিনে দিতে পারিনি। এবার সরকার আশ্বাস দিয়েছিল এমপিওভুক্ত করবে। অর্থমন্ত্রীর বাজেট বক্তৃতা শুনে হতাশ হয়েছি। ঈদের আগে তিনি আমাদের রাজপথে ঠেলে দিয়েছেন।
আরেক শিক্ষক শফিকুল ইসলাম। তিনি ঝিনাইদহ থেকে এসেছেন। হরিণাকুণ্ডু উপজেলার হাজী বিশারদ আলী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক তিনি।  

 

শফিকুল ইসলাম বলেন, গ্রামের দরিদ্র পরিবারের সন্তানরা স্কুলে পড়াশোনা করে। তাদের অনেককেই বিনাবেতনে পড়াতে হয়। কেউ কেউ বেতন দিলেও তা খুবই কম। এই টাকা দিয়ে একজন শিক্ষকের বেতন দেয়া সম্ভব হয় না। এলাকার পিছিয়ে পড়া শিক্ষার্থীদের শিক্ষা দিতে ২০০৩ সাল থেকে বিনাবেতনে চাকরি করছি। এখন সংসার হয়েছে। সন্তানরা পড়াশোনা করছে। বিনাবেতনে চাকরি করায় তাদের খরচ চালাতে পারছি না।

 

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত গত ৭ জুন যে বাজেট প্রস্তাব করেন, সেখানে নতুন এমপিওভুক্তির বিষয়ে সুস্পষ্ট কিছু বলেননি তিনি। ফলে শিক্ষকরা আবারো আন্দোলনের ঘোষণা দেন। পুলিশি বাধা উপেক্ষা করে মঙ্গলবার জাতীয় প্রেসক্লাবের বিপরীত পাশে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেন শিক্ষকরা।

জেডএইচ/

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • অালোচিত