ঢাকা, সোমবার, ১৫ অক্টোবর ২০১৮, ৩০ আশ্বিন ১৪২৫ অাপডেট : ৪ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১৩ জুন ২০১৮, ১৭:০০

প্রিন্ট

সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করার দাবি এমপি এনামুলের

সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করার দাবি এমপি এনামুলের
অনলাইন ডেস্ক

দেশের সকল নন এমপিওভুক্ত স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসাগুলোকে দ্রুত এমপিওভূক্ত করার দাবি জানিয়েছেন রাজশাহী-৪ (বাগমারা) আসনের সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক। মঙ্গলবার জাতীয় সংসদে বাজেট বক্তৃতায় সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক এ সব কথা বলেন।

তিনি আওয়ামী লীগ সরকারের সময়ে বাগমারার আট বছরের উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরে বলেন, এ সময়ে তিনটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে এমপিওভূক্ত করা ছাড়াও বহু শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নতুন ভবন নির্মাণ ও অবকাঠামোগত উন্নয়ন করা হয়েছে।

তিনি বলেন, এ সময়ে দুটি কলেজকে বিশ্ববিদ্যালয় কলেজে এবং ৩টি কলেজকে ডিগ্রী কলেজে রূপান্তর করা হয়েছে। এছাড়াও তিনি বাগমারাসহ দেশের সকল নন এমপিওভূক্ত স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসাগুলোকে দ্রুত এমপিওভূক্ত করার দাবি জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, গত ২০১৪ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সরকার যে সকল প্রতিশ্রুতি দিয়ে ক্ষমতায় এসেছিল তা বাস্তবায়নে অর্থমন্ত্রীর প্রস্তাবিত বাজেট গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। অর্থমন্ত্রী দৃঢ়তার সঙ্গে সেই বাজেট ঘোষণা করবেন। ২০১৮-১৯ অর্থ বছরের বাজেটের মাধ্যমে জাতির জনকের সকল স্বপ্ন পূরণ হবে বলে মাননীয় সংসদ সদস্য তাঁকে বার বার মনোয়নয়ন দেওয়ার জন্য আওয়ামী লীগের দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনাকে এবং তাঁকে নির্বাচিত করায় এলাকার ভোটারদের ধন্যবাদ জানান সাংসদ এনামুল হক।

প্রস্তাবিত এই বাজেটকে দেশের মানুষের চাওয়া-পাওয়া পূরণের বাজেট উল্লেখ করে এনামুল হক বলেন, ২০০৮ সাল থেকে ২০১৪ সালের নির্বাচনের সময় আওয়ামী লীগ যে ইশতেহার দিয়েছিল তা পূরণের লক্ষ্যে যথাযথ কাজ করে চলেছেন। তার প্রতিচ্ছবি রয়েছে ২০১৮-১৯ অর্থ বছরের বাজেটে।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ এরই মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হয়েছে এবং ২০৪১ সালের আগেই বাংলাদেশ বিশ্বের উন্নত দেশে পরিণত হবে।

জাতীয় সংসদে ২০১৮-১৯ অর্থ বছরের প্রস্তাবিত বাজেট বক্তৃতার শুরুতেই সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানান। বক্তব্যে তিনি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা ও বাগমারাবাসীকেও ধন্যবাদ জানান ।

তিনি অর্থমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেছেন, ২০০৮ সালের নির্বাচনের মধ্য দিয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনা দায়িত্ব নেওয়ার পর এদেশের উন্নয়নের জন্য আওয়ামী লীগ সরকার যে পদক্ষেপ নিয়েছে তা যুগোপযোগী। বর্তমান সরকারের নয় বছরে যে বাজেট বাস্তবায়ন করা হয়েছে তাতে দেশের বিদ্যুৎ, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, কৃষি, যোগাযোগ, প্রযুক্তি খাতে অভূতপূর্ব উন্নয়ন সাধিত হয়েছে। এর ফলে মাথাপিচু আয় বেড়েছে, রপ্তানি আয় বেড়েছে, বেড়েছে বৈদেশিক বাণিজ্যের হারও। সেই সাথে কমেছে দারিদ্রের হার।

রুপকল্প ৪১ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে বড় বড় প্রকল্পে কাজ করে যাচ্ছে সরকার। সাংসদ এ বাজেট কে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের বাস্তবায়ন ও উন্নয়ন মুখী বাজেট আখ্যায়িত করে সাংসদ এনামুল হক বলেন, শিক্ষা, যোগাযোগ, প্রযুক্তি, সামাজিক উন্নয়ন, কৃষি সহ বিভিন্ন খাতে বেশি বরাদ্দ দেয়ার দাবি জানিয়েছেন। প্রস্তাবিত বাজেট বাস্তবায়ন করা হলে দারিদ্র বিমোচন এবং বাংলাদেশের মানুষ মাথা উচু করে বিশ্ব দরবারে দাঁড়াতে পারবে।

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • অালোচিত