ঢাকা, বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৪ আশ্বিন ১৪২৫ অাপডেট : ১০ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ১৮:৩৩

প্রিন্ট

জানুন নায়িকাদের রূপ রহস্য

জানুন নায়িকাদের রূপ রহস্য
বিনোদন ডেস্ক

যেসব টিনএজ মেয়েরা নিজেদের নিয়ে আফসোস করে যে কেন তাকে সেলিব্রেটিদের মতো দেখাচ্ছে না।কেন তাদের মত সুন্দর হচ্ছে না। তাহলে জেনে নাও কেউ ই এমনি এমনি সুন্দর হয় নি। তাদেরও রয়েছে অনেক পরিশ্রম নিজেকে আকর্ষণীয় করতে।

হালের বলিউড অভিনেত্রীদের মধ্যে অন্যতম সুন্দরী হিসেবে সোনম কাপুরের নাম আসে।সম্প্রতি রূপ সচেতনতা বিষয়ে বিশেষ করে বয়ঃসন্ধিকালের কিশোরীদের চিন্তার জগতকে বাস্তবের ছোঁয়ায় উজ্জীবিত করার লক্ষ্যে সামাজিক মাধ্যমে তার একটি লেখার অংশ বেশ প্রশংসিত হয়েছে।

সেখানে তিনি বলেন, যে কোন পাবলিক অ্যাপিয়ারেন্সে যাওয়ার আগে আমাকে ৯০ মিনিট মেকআপের চেয়ারে বসে থাকতে হয়। আমার রূপচর্চা আর চুল পরিচর্যায় তিন থেকে ছয়জন লোককে ব্যস্ত থাকে। আর আমার নখের যত্নে নিতে নিয়োজিত আছেন একজন পেশাদার লোক। আমার ভ্রুগুলো প্লাকিং আর থ্রেড করতে হয় প্রতি সপ্তাহে।

মেকআপ নিচ্ছেন সোনম

আমার শরীরে কিছু কালোদাগ এবং চোখের নিচের ডার্ক সার্কেল ঢাকার জন্য কন-সিলার ব্যবহার করতে হয়- অথচ আমি কখনো কল্পনাও করিনি যে আমাকে কন-সিলার ব্যবহার করতে হবে?

প্রতিদিন ভোর ছয়টায় আমাকে বিছানা ছাড়তে হয় আর সাড়ে সাতটার মধ্যে জিমে উপস্থিত হতে হয়। সেখানে আমাকে ৯০ মিনিট ব্যায়াম করতে হয়, কখনো কখনো সন্ধ্যাকালেও, আবার বিছানায় যাওয়ার আগেও একদফা। আমি কি খাবো আর কি খাবো না- এটা নির্ধারণে যে সময় ব্যয় হয় তা একজনের ফুলটাইম চাকরির কর্মঘণ্টা হতে পারে। আমার দৈনিক খাবারের চেয়ে আমার ফেসপ্যাকের উপাদানের সংখ্যা বেশি।

নিখুঁত অপরূপা বানানোর কাজ চলছে

একটি আত্মনিবেদিত টিম রয়েছে যারা সারাক্ষণ আমাকে চিত্তাকর্ষক পোশাকে দেখানোর জন্য ব্যস্ত থাকেন। এতকিছুর পরেও যদি আমাকে যথেষ্ট পরিমাণে নিখুঁত না দেখায়- সেক্ষেত্রে ছবিতে আমাকে নিখুঁত দেখানোর জন্য ফটোশপের উদার সেবা তো আছেই।

তিনি আরও বলেন, আমি এটা আগেও বলেছি এবং এটা আমি বলতেই থাকবো: তোমরা একজন সেলিব্রেটিকে যেমন দেখ তাকে সেই অবস্থায় উপস্থাপন করতে রীতিমতো একটি ‘সেনা বাহিনীর’ প্রয়োজন পড়ে, আরো প্রয়োজন পড়ে প্রচুর অর্থের আর বিশাল পরিমাণ সময়ের। এটা মোটেই বাস্তব জগত নয়- এবং এটা ব্যাকুলভাবে কামনা করে লালায়িত হবার মতো কোন বিষয়ও নয়।

তোমাদের বরঞ্চ আত্মবিশ্বাসী হতে সচেষ্ট হতে হবে, নিজেকে সুন্দর, সুখী এবং ভাবনাহীন ভাবতে অভ্যস্ত হতে হবে। অন্য কোন রকমের বা বিশেষ কারো মতো দেখাতে হবে তোমাকে- মাথা থেকে এটা বাদ দিতে হবে।

চলছে মেকআপ

তাকে বলুন যে সে নিজে আসলে কতোটা সুন্দরী। তার মুচকি হাসির বা মুখ ভরে হাসির প্রশংসা করুন, তার মনের সৌন্দর্যের কথা বলুন কিংবা বলুন তার হাঁটার ভঙ্গিটা কতো সুন্দর!

পরিপাটি সুশোভিত অবস্থায় এমন দেখায় তাদের

তাকে এই ধারণা নিয়ে বেড়ে উঠতে দেবেন না যে সে নিখুঁত, অথবা এটা বলবেন না যে বিলবোর্ডে দেখা কোন নারীর সঙ্গে তাকে পুরো মেলানো যাচ্ছে না তার কোন খামতির জন্য। তাকে এমন কোনো স্টান্ডার্ডে নিজেকে তুলে ধরতে দিবেন না যা খুবই উচ্চাকাঙ্খী, এমনকি বিলবোর্ডে দেখা মেয়েটির জন্যও না।

এনএইচ/

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • অালোচিত