ঢাকা, বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৪ আশ্বিন ১৪২৫ অাপডেট : ৫ ঘন্টা আগে English

প্রকাশ : ১৫ এপ্রিল ২০১৮, ১৭:৫৩

প্রিন্ট

ফেসবুক এখন একটি ‘ফেইকবুক’: জয়

ফেসবুক এখন একটি ‘ফেইকবুক’: জয়
নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রধানমন্ত্রীর তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় ফেসবুককে ‘ফেইকবুক’ বলে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেন, সোশাল মিডিয়ায় তরুণদের আসক্তি ক্রমেই বিপদের হয়ে উঠছে। বিশাল শক্তির আধার এই তরুণদের সমাজের প্রতি অনেক দায়িত্ব রয়েছে। তাদের ইন্টারনেট আসক্তি দেখে এখন আমাকে বলতে হয়, ফেসবুক এখন একটি ফেইকবুক।

রোববার রাজধানীতে তৃতীয় আন্তর্জাতিক বিপিও সামিটের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের বক্তব্যে তিনি তরুণদের ইন্টারনেটের অপব্যবহার নিয়ে এসব কথা বলেন।

এসময় জয় বলেন, যুবসমাজের চাকরির জন্য সরকারের দিকে তাকিয়ে থাকার প্রয়োজন নেই। তথ্য-প্রযুক্তি খাতে কর্মসংস্থানের অবারিত সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে।

ইন্টারনেটে বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মিথ্যা, বিদ্বেষপূর্ণ তথ্য ও মন্তব্য প্রচারে ক্ষুব্ধ জয় বলেন, বাংলাদেশে বসে গোটা ইন্টারনেট ব্যবস্থাকে নিয়ন্ত্রণ করা আমাদের একার পক্ষে সম্ভব নয়। আমরা যদি এ মুহূর্তে সোশাল মিডিয়া বন্ধ করে দেই, তো সবাই আমাদের তীব্র সমালোচনা করবেন। আর এটা ঠিকও হবে না।

একটা ওয়েবসাইট বন্ধ করব, আরো দশটা ওয়েবসাইট দশ মিনিটে তৈরি হয়ে যাবে। একটা ফেসবুক পেইজ বন্ধ করে দিলে আরো দশটা ফেসবুক পেইজ তৈরি হয়ে যাবে। ইন্টারনেটে বিদ্বেষপূর্ণ বক্তব্য যা সমাজে সংঘাত ডেকে আনে, তাকে কোনোভাবেই মুক্তবাক বলা যাবে না। এটা কোনোভাবেই সমর্থন করা যাবে না।

ডাক-টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক সংসদীয় স্থায়ী কমিটি ডিজিটাল অ্যাক্টের খসড়া তৈরি করেছে জানিয়ে তিনি মিথ্যা অপপ্রচারের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলেন।

জয় বলেন, কোনো একটি গোষ্ঠীর প্রতি বিদ্বেষমূলক বক্তব্য, মিথ্যা অপপ্রচারকে আমরা কোনোভাবেই গ্রাহ্য করব না। গোটা বিশ্বের মতো আমরাও সাম্প্রদায়িক সংঘাতপূর্ণ বক্তব্যের বিরুদ্ধে অবস্থান করছি। ডিজিটাল মিডিয়াকে ব্যবহার করে কেউ যেন সংঘাত ছড়াতে না পারে সেজন্য আমরা আরো কড়া অবস্থানে যাচ্ছি। তিনি তরুণদের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারে সতর্ক থাকার অনুরোধ করেন।

ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক; ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয় বিষয়ক সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ইমরান আহমেদ, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সচিব সুবীর কিশোর চৌধুরী, সভাপতি ওয়াহিদ শরীফ।

বাংলাদেশ অ্যাসোসিসেয়শন অফ কল সেন্টার অ্যান্ড আউটসোর্সিং (বাক্য)- এর আয়োজনে বিপিও সামিটের তৃতীয় এই আসরে সহযোগিতা দিচ্ছে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি অধিদপ্তর।

এবারের আয়োজনে দেশের আউটসোর্সিং খাতকে আরও কীভাবে ভালো করা যায় সে বিষয়ে বিশ্বকে জানানো হবে এবং সরকারের রূপকল্প-২০২১ বাস্তবায়নে বিপিও খাতের বিভিন্ন উদ্যোগ তুলে ধরা হবে।

এসআইএস/

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • অালোচিত