ঢাকা, সোমবার, ২১ মে ২০১৮, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫ অাপডেট : কিছুক্ষণ আগে English

প্রকাশ : ১৪ মে ২০১৮, ০৬:২০

প্রিন্ট

শুভ জন্মদিন মার্ক জাকারবার্গ

শুভ জন্মদিন মার্ক জাকারবার্গ
অনলাইন ডেস্ক

ফেসবুকের সহ-প্রতিষ্ঠাতা এবং প্রধান নির্বাহী মার্ক জাকারবার্গের ৩৪তম জন্মদিন আজ। ১৯৮৪ সালের এই দিনে জন্মগ্রহন করেন তিনি। পুরো নাম মার্ক এলিয়ট জাকারবার্গ। পৃথিবীর সবচেয়ে কম বয়সী বিলিয়নীয়র তিনি।

হার্ভার্ড ইউনিভার্সিটি থেকে ঝরে পড়া এই ছাত্র বর্তমানে সারাবিশ্বের প্রভাবশালী ব্যক্তিদের মধ্যে অন্যতম। আর ইন্টারনেট জগতে তার প্রভাবের কথা অস্বীকার করার কোন উপায় নেই। সামাজিক যোগাযোগের জন্য প্রতিষ্ঠা করেছেন ফেসবুক যা বর্তমানে ইন্টারনেট দুনিয়াকে এক প্রকার শাসন করছে বলা যায়।

এর বাইরে ইন্টারনেট সুবিধা বঞ্চিত মানুষের জন্যও উদ্যোগ নিয়েছেন তিনি। সমমনা কয়েকটি প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানের সহায়তায় প্রতিষ্ঠা করেছেন ইন্টারনেট ডট অর্গ। আর এর মাধ্যমে বিশ্বের ১০০ কোটি মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিয়েছেন ইন্টারনেট সেবা।

হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নকালে জাকারবার্গ এবং তার কয়েকজন সহপাঠী মিলে ২০০৪ সালে ফেসবুক প্রতিষ্ঠা করেন। মাত্র ২৬ বছর বয়সে টাইম ম্যাগাজিনের দৃষ্টিতে বর্ষসেরা ব্যক্তিত্ব নির্বাচিত হয়েছিলেন জাকারবার্গ।

১৯৯০ সালে বাবার মাধ্যমে প্রোগ্রামিংয়ে হাতেখড়ি জাকারবার্গের। হার্ভার্ডে তার দ্বিতীয় বর্ষ চলাকালীন অক্টোবর ২৮, ২০০৩-এ তৈরি করেন ফেসবুকের পূর্বসূরি সাইট ফেসম্যাস। এতে তিনি হার্ভার্ডের নয়টি হাউসের শিক্ষার্থীদের ছবি ব্যবহার করেন।

তিনি দুটি করে ছবি পাশাপাশি দেখান এবং হার্ভার্ডের সব শিক্ষার্থীদের ভোট দিতে বলেন। এ জন্য মার্ক জাকারবার্গ হার্ভার্ডের সংরক্ষিত তথ্যকেন্দ্র হ্যাক করেন। ২০০৪-এর জানুয়ারিতে মার্ক তার নতুন সাইটের কোড লেখা শুরু করেন এবং ফেব্রুয়ারিতে হার্ভার্ডের ডরমিটরিতে ‘দ্য ফেসবুক’ উদ্বোধন করেন। মার্ক জাকারবার্গের সঙ্গে ছিলেন ডাস্টিন মস্কোভিজ, ক্রস হুগেস ও এডোয়ার্ডো স্যাভেরিন এবং অ্যান্ড্রু ম্যাককালাম। বছর না ঘুরতেই ফেসবুক ব্যবহারকারীর সংখ্যা ১০ লাখ ছাড়িয়ে যায়। ২০০৫ সালে ‘দ্য ফেসবুক ডটকম’ নাম পালটে কোম্পানির নাম রাখা হয় শুধু ‘ফেসবুক’। ২০১০ সাল সাল নাগাদ ব্যবহারকারী ৫০ কোটি ছাড়িয়ে যায়। বর্তমানে ১২০ কোটিরও বেশি ব্যবহারকারী রয়েছে ফেসবুকে।

২০১২ সালে পাবলিক লিমিটেড প্রতিষ্ঠান হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেছে ফেসবুক। গবেষণা প্রতিষ্ঠান ইমার্কেটারের তথ্য অনুযায়ী, ডিজিটাল বিজ্ঞাপনে আয়ের দিক থেকে বর্তমানে গুগলের পরের অবস্থানেই রয়েছে ফেসবুক। মোবাইল বিজ্ঞাপন থেকেও ফেসবুকের আয় বাড়ছে। যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে ফেসবুক পরিবর্তন আনছে নিয়মিত। কিনছে বিভিন্ন প্রযুক্তি উদ্যোক্তা প্রতিষ্ঠান। এসব প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন সেবা ফেসবুকের সঙ্গে যুক্তও করছে। ফেসবুকের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, এখন পর্যন্ত মোট ৪৩টি প্রযুক্তি উদ্যোক্তা প্রতিষ্ঠান কিনেছে ফেসবুক যার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে গোয়ালা, ইনস্টাগ্রাম, লাইটবক্স, লিটল আই ল্যাবস, ব্রা, অকুলাস ভিআর প্রভৃতি।

ফেসবুক ও ওপেন কম্পিউটিং প্রকল্পের পাশাপাশি জাকারবার্গ কাজ করছেন ইন্টারনেট অরগানাইজেশন নামের আরেকটি প্রকল্প নিয়ে। বিশ্বজুড়ে ইন্টারনেট সাশ্রয়ী করতে জাকারাবার্গের এই উদ্যোগের সঙ্গে রয়েছে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রতিষ্ঠান স্যামসাং, মার্কিন সেমিকন্ডাক্টার নির্মাতা প্রতিষ্ঠান কোয়ালকম, এরিকসন, মিডিয়াটেক, নকিয়া ও অপেরা। এ প্রকল্পের অধীনে প্রযুক্তিপণ্য নির্মাতাপ্রতিষ্ঠানগুলো সাশ্রয়ী দামে উন্নত প্রযুক্তি ও ইন্টারনেট সুবিধার স্মার্টফোন তৈরি করবে।

জাকারবার্গ তার বান্ধবী প্রিসিলা চ্যানকে বিয়ে করেছেন। তাদের রয়েছে দুই কন্যা সন্তান। জাকারবার্গের প্রিয় খাবার নিজের শিকার করা পশুর মাংস। বিস্ট নামে তার একটি পোষা কুকুর তার অন্যতম প্রিয় সঙ্গী।

শুভ জন্মদিন মার্ক জাকারবার্গ।

জেডআই

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • অালোচিত