ঢাকা, শুক্রবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৭, ১ পৌষ ১৪২৪ অাপডেট : ৩৭ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ০৭ ডিসেম্বর ২০১৭, ১৪:১২

প্রিন্ট

কর ফাঁকি দেওয়া ১৭ দেশ ইইউ'র তালিকায়

অনলাইন ডেস্ক

ইউরোপীয় ইউনিয়ন সবচেয়ে বেশি কর ফাঁকি দেওয়া হয় এমন ১৭টি দেশের তালিকা প্রকাশ করেছে৷ 

বেশ কয়েক মাস ধরে টানাপোড়েন ও বিভিন্ন দেশের শেষ মুহূর্তে কর প্রণালী বদলে ইইউ-এর ‘কালো খাতায়’ নাম ওঠা বন্ধ করার প্রচেষ্টার পর ইইউ'র অর্থমন্ত্রীরা মঙ্গলবার তালিকাটি অনুমোদন করেন৷

মার্কিন সামোয়া, বাহরাইন, বার্বাডোস, গ্রেনাডা, গুয়াম, দক্ষিণ কোরিয়া, ম্যাকাও, মার্শাল দ্বীপপুঞ্জ, মঙ্গোলিয়া, নামিবিয়া, পালাউ, পানামা, সেন্ট লুসিয়া, সামোয়া, ত্রিনিদাদ ও টোবাগো, টিউনিশিয়া এবং সংযুক্ত আরব আমিরাতকে ইউরোপীয় ইউনিয়নের মানের অনুপযোগী বলে গণ্য করা হয়েছে৷ খবর ডয়চে ভেলের। 

যেসব দেশ ইইউ’র নিয়মাবলী সঠিকভাবে মেনে চলে না, কিন্তু তাদের কর প্রণালী পরিবর্তন করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে, সে ধরণের ৪৭টি দেশকে ‘গ্রে লিস্টে’ রাখা হয়েছে৷

বিভিন্ন সংস্থা ও ব্যক্তিবর্গ তাদের করের বোঝা কমানোর জন্য যেসব পন্থা অবলম্বন করে থাকে, তার সঙ্গে জড়িত নানা কেলেংকারি ইত্যাদির পরিপ্রেক্ষিতে ইউরোপীয় ইউনিয়ন কর এড়ানোর বিরুদ্ধে আরো সক্রিয় হবার সিদ্ধান্ত নিয়েছে৷ ইইউ বলেছে যে, জোট হিসেবে সমন্বয়কৃত পদক্ষেপের মাধ্যমে যেসব দেশ ও সরকার কর প্রসঙ্গে ন্যায্য আচরণ করতে অস্বীকার করবে, তাদের ক্ষেত্রে ‘আরো জোরালো’ ব্যবস্থা নেওয়া সম্ভব হবে৷

তবে ইউরোপীয় কমিশনের একাধিক সদস্যের মতে, কর ফাঁকি দেওয়ার ‘স্বর্গের’ তালিকাটি প্রকাশ করাই যথেষ্ট নয়, যেসব দেশ বা সরকার ইইউ-এর নিয়মাবলী মানছে না, তাদের বিরুদ্ধে বাস্তব শাস্তিমূলক ব্যবস্থার উপযোগ রাখা হয়নি৷ ফলে এই ‘ব্ল্যাক লিস্ট' বাস্তবিক কোনো পরিবর্তন আনতে পারবে না বলেই সমালোচকদের ধারণা৷ কাজেই ইইউ’র কর কমিশনার পিয়ের মস্কোভিচি ব্ল্যাক লিস্টটিকে একটি গুরুত্বপূর্ণ অগ্রণী পদক্ষেপ হিসেবে অভিহিত করলেও, যুগপৎ তাকে ‘বিশ্বব্যাপী কর ফাঁকি দেওয়ার মাত্রার তুলনায় অপর্যাপ্ত প্রতিক্রিয়া’ বলে বর্ণনা করেছেন৷

অক্সফাম ত্রাণ সংস্থা আরো এক ধাপ এগিয়ে ইইউকে তাদের কোনো সদস্যদেশের নাম এই তালিকায় না রাখার কারণে সমালোচনা করেছে৷ মঙ্গলবারের ঘোষণার আগেই অক্সফাম ‘ব্ল্যাকলিস্ট নাকি হোয়াইটওয়াশ’, এই শিরোনাম দিয়ে একটি রিপোর্ট প্রকাশ করে৷ ইইউ-এর নিজের শর্তাবলী অনুযায়ী, লুক্সেমবুর্গ, মাল্টা, নেদারল্যান্ডস ও আয়ারল্যান্ড, এই চারটি দেশের নাম ঐ ব্ল্যাকলিস্টে থাকা উচিত ছিল বলে অক্সফামের রিপোর্টে মত প্রকাশ করা হয়েছে৷

অসাম্য ও কর প্রসঙ্গে ইইউ’র নীতি সম্পর্কে অক্সফামের উপদেষ্টা অরোর শার্দোনে বলেছেন, ‘এই চূড়ান্ত ইইউ ব্ল্যাকলিস্ট কিছুটা হতাশাজনক৷ তালিকায় মাত্র ১৭টি দেশকে রাখা হয়েছে ও তাদের অধিকাংশ ছোট ছোট দেশ, এমনকি উন্নয়নশীল দেশ৷

/এসবি/

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • অালোচিত