ঢাকা, বুধবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৮, ৩০ কার্তিক ১৪২৫ অাপডেট : ১০ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ২১ অক্টোবর ২০১৮, ০৭:০২

প্রিন্ট

গণধর্ষণের শিকার ছাত্রীর ভর্তি নেয়নি কোনো স্কুল

গণধর্ষণের শিকার ছাত্রীর ভর্তি নেয়নি কোনো স্কুল
অনলাইন ডেস্ক

গণধর্ষণের শিকার হয়েছিলো। এই অভিযোগ তুলে দশম শ্রেণির ছাত্রীর ভর্তি নিতে অস্বীকার করলো স্কুল। সব স্কুলের তরফে ওই ছাত্রীকে ভর্তি না নেওয়ার স্পষ্ট কোনও কারণ দেখানো হয়নি। কিন্তু একটি স্কুল সরাসরি জানিয়ে দিয়েছে ধর্ষিতাকে তারা তাদের স্কুলে ভর্তি নেবে না।

ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের উত্তরখণ্ড প্রদেশের দেরাদুনে। এই নিয়ে ওই ছাত্রীর বাবা ও মা পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করেছেন। শুক্রবার পুলিশের তরফে এই তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে।

গত ১৪ আগস্ট সেখানকার একটি স্কুলে গণধর্ষণের শিকার হয়েছিলো এক ছাত্রী। ১৭ সেপ্টেম্বর ঘটনাটি প্রকাশ্যে আসে। পুলিশ সুপার নিবেদিতা কুকরেতি জানিয়েছেন, এই ঘটনার পর থেকে কোনও স্কুল ওই ছাত্রীকে ভর্তি নিতে চাইছে না। একটি স্কুলের তরফে এক অদ্ভুত যুক্তি দেওয়া হয়েছে। বলা হয়েছে, ওই ছাত্রী যেই স্কুলে ভর্তি হবে, সেই স্কুলেরই পরিবেশ নষ্ট হবে। তাই ওই ছাত্রীকে স্কুলে ভর্তি নেওয়া যাবে না।

নিবেদিতা কুকরেতি আরও জানিয়েছেন, ঘটনাটি নিয়ে তারাও বেশ অবাক। তবে এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার কথাও জানিয়েছেন তিনি। বলেছেন, এখন স্কুলে পূজার ছুটি চলছে। সোমবার থেকে স্কুলগুলি খুলবে। তারপরই ওই স্কুলে তারা একটি টিম পাঠাবেন। বিষয়টি খতিয়ে দেখবে তারা। এর পাশাপাশি অভিযোগের ভিত্তিতে আইনি ব্যবস্থাও নিতে পারে পুলিশ। জানানো হয়েছে এমনই। তবে সোমবারের আগে কোনও পদক্ষেপ নেওয়া যাবে না। অভিযোগ সত্যি প্রমাণিত হলে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে।

দেরাদুনের স্কুলগুলি ওই ছাত্রীকে ভর্তি নিতে অস্বীকার করায় তাকে বাইরের স্কুলে পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তার বাবা ও মা। উত্তরাখণ্ডের শিশু সুরক্ষা ও অধিকার দপ্তরের চেয়ারম্যান যোগেন্দ্র খান্দুরি জানিয়েছেন, মেয়েটির সঙ্গে এমন ব্যবহার মেনে নেওয়া যায় না। ঘটনাটি দুর্ভাগ্যজনক বলে মন্তব্য করেছেন তিনি। বলেছেন, ওই ছাত্রীকে ভর্তি নিতে কীভাবে অস্বীকার করতে পারে স্কুল? যদি তার মেধা থাকে, তবে কেন তাকে ভর্তি নেওয়া হবে না?

বাংলাদেশ জার্নাল/জেডআই

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • অালোচিত