ঢাকা, বুধবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৮, ৩০ কার্তিক ১৪২৫ অাপডেট : ২১ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৪:১৬

প্রিন্ট

সুবর্ণা রায় আবৃত্তি’র তিনটি কবিতা

সুবর্ণা রায় আবৃত্তি’র তিনটি কবিতা
সুবর্ণা রায় আবৃত্তি

উপপাদ্য

পিথাগোরাসের উপপাদ্য নিয়ে ছেলেটা খেলতে নামলো মাঠে

বিশাল মাঠ ওপারে বন, সরু নদী

আর কিছু উড়ে আসা বক।

সাদা কাগজ, পেন্সিল টুকরো ইরেজার..

বিন্দু আর ব্যাসের মূল্য জানে কাঁচা ঘাস

ঘাস সবুজ।

ইনাম আঁকা কাঠ আর সরু পেন্সিল নিয়ে

প্রতিদিন ছেলেটা স্নান করে নদীতে

বনের পাখিকে খাদ্য দেয় আর জ্যামিতিক পৃথিবীকে দ্যাখে

পৃথিবী মা হয়ে যায়!

বকুনি খায়, কানমলা তবু

কিছুতেই উপপাদ্যের প্রমাণ করতে পারে না

একদিন এক সুষম এসে বলল

কি ছেলে প্রমাণ চাও?

রঙ ধনু নাও

তিন রঙ মেলাও

আর বাকীদের শূন্যে উড়াও

ছেলেটা তিনটে রঙ দিয়ে একটা গাছ আঁকলো

গাছটা পাখি

পাখি বন আর বন নদী

নদী পৃথিবী

পৃথিবী মা

মৃত্তিকা

সময়ের কাছে চাঁদ নামেনি

তাই পা ফেলা হয়নি কোনও জল জোছনায়।

তুমি আসলে গায়ে মাখতাম কত আলো।

তোমার আসা হলো না!

এসেছে সব অমাবশ্যা

যেনো সব কালোয় পরিপূর্ণ এক পৃথিবী

আমার জরায়ুর কান্নার দীর্ঘ নয় মাস পর জন্ম হয়েছে তোমার।

নাড়ি কাটা হয়নি তাই রক্তের ভিতর তুমিই নেচেছিলে মানচিত্রে।

কথা দিয়েছিলে আসবে তুমি আমার স্বপ্নপূরণ করতে

আমার শিরায় শিরায় মাতাল তুমি নেচেছিলে আনন্দে নেচেছ দুঃখে।

আমি অরুণোদয়ে চোখ বুজেছি।

আমার মৃত্যুর চার যুগ পার হয়েছে

তুমি কথা রাখনি

তুমি তোমার গর্ভকে অস্বীকার করেছো

তুমি আমার মৃত্যুকে হীন করেছো

তুমি মিথ্যা দিয়ে জয় করেছো আমায়।

তোমাদের বাবা কাঁদে এখনও.. কাঁদে

এখনো আমার মাটি ছুঁয়ে আকড়ে পড়ে আছে

মুক্তি মেলেনি তার।

আমি বিধ্বস্ত তোমার দিকে তাকিয়ে আছি!

তুমি ভালো আছতো?

উজ্জ্বয়িনী

সয়ম্বরে তুমি ইর্ষান্বিত পুরুষ

তোমাকে দুর্যোধন বলি না

অর্জুনও না,

আমি উজ্জ্বয়িনী নারী উচ্ছাসিত তরঙ্গমালা।

তুমি ডাক দিলে আমি বৃষ্টি প্রত্যাশিত শ্রাবণ হয়ে যাই।

বাংলাদেশ জার্নাল/এসকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • অালোচিত