ঢাকা, বুধবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৮, ৩০ কার্তিক ১৪২৫ অাপডেট : কিছুক্ষণ আগে English

প্রকাশ : ২৩ অক্টোবর ২০১৮, ১৬:১৫

প্রিন্ট

৭ মিনিটেই আইএমইআই পাল্টাচ্ছে অপরাধীরা

৭ মিনিটেই আইএমইআই পাল্টাচ্ছে অপরাধীরা
নিজস্ব প্রতিবেদক

চোরাই ও ছিনতাই করা মোবাইল ফোনের আইএমআইএ নম্বর পরিবর্তন করে পুনরায় বিক্রি করে অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে ব্যবহার করতো এই চক্রটি। এছাড়া ফ্ল্যাশ ডিভাইস ব্যবহার করে যেকোনও মোবাইল আনলক করে, বিভিন্ন অপরাধী চক্রদের হাতে তুলে দিত।

বিশেষ এ সফটওয়্যার দিয়ে মাত্র ৫-৭ মিনিটেই মোবাইল ফোনের আইএমআই পরিবর্তন করে ফেলা যেত।

মঙ্গলবার কাওরান বাজারে র‌্যাবের মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাব-৩ এর কমান্ডিং অফিসার (সিও) লেফটেন্যান্ট কর্নেল মো. এমরানুল হাসান এসব কথা বলেন। এর আগে সোমবার অভিযান চালিয়ে ৫৩১টি চোরাই মোবাইল, দু’টি সিপিইউ ও আইএমইএই নম্বর পরিবর্তনের কাজে ব্যবহৃত ৬টি ডিভাইসসহ আটক করে র‌্যাব-৩।

জিজ্ঞাসাবাদে আটকরা জানান, ৫-৬ মাস ধরে এ কাজ করে আসছেন।

আটকরা হলেন- স্বপন (২৬) রানা হামিদ (২২) মাসুদ রানা (২৪) নাজিম (২৬) কামাল হোসেন (১৭)। মোতালেব (২৬), রিপন (৩৭), মান্নান (৩৯), রাশেদ খান (২৪) আনিস মোল্লা (২৮) জাহিদুল ইসলাম (২১) পলক (১৯) রাশেদুল ইসলাম (২১) নাঈম সর্দার (১৮)।

গুলিস্তান পাতাল মার্কেট ও ভাসানী হকি স্টেডিয়ামে সোমবার সন্ধ্যা ৭টা থেকে রাত ১১টা পর্যন্ত অভিযান চলিয়ে এই চক্রের সঙ্গে জড়িত ১১টি দোকানে তল্লাশি করে, উদ্ধার করা হয় কাগজবিহীন পাঁচ শতাধিক মোবাইল।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আটকরা জানিয়েছে, ছিনতাই, চোরাই মোবাইল কিনে আইএমইআই পরিবর্তন করে নানান অপরাধ কর্মকাণ্ড ব্যবহার করে আসছিল। অভিযানের সময় আইএমইআই নম্বর পরিবর্তনের কাজ করছিল। তারা বিশেষ সফটওয়্যারের মাধ্যমে মাত্র পাঁচ-সাত মিনিটের মধ্যেই আইএমইআই নম্বর পরিবর্তন করে ফেলে। এছাড়া যেকোনও আন্ড্রয়েড মোবাইলের লক খুলে আবার বিক্রি করতো।

র‌্যাব-৩ এর লেফটেন্যান্ট কমান্ডার আশেকুর রহমান বলেন, ‘আইএমআইএ নম্বর পরিবর্তানের সময় কয়েকজনকে হাতেনাতে আটক করা হয়েছে। মাসুদ লাকুরিয়া এ চক্রে মূল হোতা। প্রায় ৬ মাস ধরে তারা এ কাজ করছে। মোতালেব ও মান্নান নামে দুজন নিজস্ব লোক দিয়ে দোকানে মোবাইল বিক্রি করতো।’

এনএসএস/ওয়াইএ

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • অালোচিত