ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৯ জুলাই ২০১৮, ৪ শ্রাবণ ১৪২৫ অাপডেট : ১০ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১২ জানুয়ারি ২০১৮, ১৪:৪০

প্রিন্ট

‘খালেদা-ফখরুলকে আইনি নোটিস দেবে আ.লীগ’

‘খালেদা-ফখরুলকে আইনি নোটিস দেবে আ.লীগ’
নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আইনি নোটিস পাঠানো বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে একই ধরনের নোটিসের জন্য তৈরি থাকতে বলেছেন আওয়ামী লীগ নেতা ওবায়দুল কাদের। পদ্মাসেতু নিয়ে বক্তব্যের জন্য খালেদার পাশাপাশি দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকেও এই নোটিস দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

ক্ষমতাসীন দলের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীকে ভুয়া উকিল নোটিস দেওয়ার জন্য বিএনপিকে এবং বিএনপি চেয়ারপারসনের বক্তব্য ‘জোড়া তালি দিয়ে পদ্মাসেতু হচ্ছে’- এমন বক্তব্যের জন্য তাকে উকিল নোটিস দেওয়া হবে। বিএনপিকে অপেক্ষা করতে হবে সেই উকিল নোটিসের জন্য।’

শুক্রবার সকালে রাজধানীতে শীতার্তদের মধ্যে বস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন ওবায়দুল কাদের। ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

গত ২ জানুয়ারি ছাত্রদলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে খালেদা জিয়া বলেন, ‘আওয়ামী লীগের আমলে এই সেতু হবে না। কোনো একটা যদি জোড়াতালি বানায়, সেই সেতুতে কেউ উঠতে যাবেন না, অনেক রিস্ক আছে।’

এই বক্তব্যের জন্য আওয়ামী লীগের তোপের মুখে পড়েন খালেদা জিয়া। গত বুধবার খালেদা জিয়াকে প্রধানমন্ত্রী ‘পাগল’ বলেন প্রধানমন্ত্রী। আর বৃহস্পতিবার বিষয়টি নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। এ সময় তিনি খালেদা জিয়ার কথাকে ‘সাচ্চা দেশপ্রেমিকের বক্তব্য’ আখ্যা দেন।

মির্জা ফখরুল বলেন,  ‘বিশেষজ্ঞরাই বলছেন রঙ (ভুল) ডিজেইনের উপর পদ্মা সেতু নির্মিত হচ্ছে।...পাইলিং মাটির যে পর্যন্ত যাওয়া প্রয়োজন ছিল সে পর্যন্ত যাওয়া সম্ভব হচ্ছে না। যে কারণে যে ডিজেইনের উপর সেতু নির্মিত হচ্ছে তা টিকবে না, এটা তো তিনি (খালেদা জিয়া) ভুল বলেননি।’

এর জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘ফখরুল সাহেব বলছেন পদ্মাসেতুর ডিজাইনে ভুল আছে। তথ্য উপাত্ত নিয়ে প্রমাণ করতে আসুন। ডিজাইনের কোথায় ভুল, কোথায় কারিগরি ভুল আছে যদি না পারেন আপনাকেও উকিল নোটিস পাঠানো হবে।’

ভুয়া নথি তৈরি করে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দুর্নীতির দুই মামলা কারা হয়েছে- বিএনপি নেতা মওদুদ আহমেদের এমন বক্তব্যেরও জবাব দেন কাদের। বলেন, ‘মওদুদ আহমেদ সাহেবের কথা শুনে হাসব না, কাঁদব? তিনি তো নিজেই ভুয়া কাগজপত্র দিয়ে বাড়ি দখল করেছেন, আর বলছেন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ভুয়া অভিযোগ করা হয়েছে।’

‘আপনি নিজেই ভুয়া কাজ করেন, তিনি কী করে আসল নকল পৃথকীকরণ করবেন?’।

বিএনপি নেত্রী ও তার দুই সন্তানের দেশের বাইরে ‘সম্পদের পরিমাণ’ নিয়ে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের তথ্য-উপাত্তের ভিত্তিতেই প্রধানমন্ত্রী কথা বলেছেন বলেও জানান কাদের।

‘প্রধানমন্ত্রী এ তথ্য সংসদের মাধ্যমে জাতিকে জানিয়েছেন। তাদের দুর্নীতির কিচ্ছা রূপকথার কাহিনিকেও হার মানিয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর সৎ সাহস আছে বলেই সত্যকে তুলে ধরে তাদের হাটে হাঁড়ি ভেঙে দিয়েছে। সে কারণে বিএনপি নেতাদের অন্তর্জ্বালা শুরু হয়ে গেছে।’

এর আগে গত ৭ ডিসেম্বরের সংবাদ সম্মেলনেও প্রধানমন্ত্রী খালেদা পরিবারের বিদেশে সম্পদ নিয়ে কথা বলেন। আর ক্ষমা চাওয়ার দাবিতে ১৯ ডিসেম্বর তাকে আইন নোটিস পাঠান খালেদা জিয়া। এতে এক মাসের মধ্যে ক্ষমা না চাইলে ক্ষতিপূরণ আদায়ের কথা জানানো হয়েছে।

তেজগাঁওয়ের নাখালপাড়ায় ‘জঙ্গি আস্তানা’য় র‌্যাবের অভিযান নিয়েও কথা বলেন কাদের। বলেন, ‘জঙ্গি দমনে সক্ষমতার দিক থেকে আমাদের আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী সংস্থা রোল মডেল। আজকেও আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী একটি অভিযান করেছে। সেখানে জঙ্গিদের প্রতিরোধ করেছে ও পরাজিত করেছে।’

নিবন্ধন বাতিল হওয়া জামায়াত ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের উপ-নির্বাচনে অংশ নিতে পারবে কি না- সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নে আওয়ামী লীগ নেতা বলেন, ‘এই প্রশ্নের জবাব দেবে নির্বাচন কমিশন, তা আমি দিতে পারি না। আমি যতটুকু জানি এখানে নিবন্ধিত কোন দল ছাড়া অন্য কেউ অংশগ্রহণ করা কথা নয়। কমিশনের এলাও করা ঠিক না।’

এবার শীতবস্ত্র বিতরণে বিএনপির কোনো কর্মসূচি না থাকারও সমালোচনা করেন ওবায়দুল কাদের।

‘মানুষের দুঃখ-কষ্টের এ অবস্থায়ও আমরা আওয়ামী লীগ ছাড়া কোনো রাজনৈতিক দলকে শীতার্ত মানুষের পাশে দাঁড়াতে দেখিনি। হয়তো আওয়ামী লীগ যাওয়ার পর অনেকে যায়। সেটা তো একদিনের জন্য লোক দেখানো সাহায্য।’

বিএনপিকে উদ্দেশ্য করে কাদের বলেন, ‘তারা উপকূলে দুর্যোগ, হাওর ও পাহাড়ের বিপর্যয়ের সময় ছিল না। একবার শুধু গিয়েছে শুধু মুখ দেখানোর জন্য। এটা দায়সারা গোছের সাহার্য ছিল।’

সরকার এখন পর্যন্ত শীতার্তদের মাঝে এক কোটি কম্বল বিতরণ করেছে বলে জানান মন্ত্রী।

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি আবুল হাসনাতের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ। নগর আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের  নেতারা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

/এসকে/

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • অালোচিত