ঢাকা, বুধবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৮, ৩০ কার্তিক ১৪২৫ অাপডেট : ৪ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১৯ আগস্ট ২০১৮, ০০:৩২

প্রিন্ট

আন্দোলনের বার্তা নিয়ে এলাকায় যাচ্ছেন বিএনপির নেতারা

আন্দোলনের বার্তা নিয়ে এলাকায় যাচ্ছেন বিএনপির নেতারা
কিরণ সেখ

দলের চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার মুক্তি ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের দাবির আন্দোলনে জনগণকে সংগঠিত করা এবং নেতাকর্মীদের প্রস্তুত হওয়ার বার্তা নিয়ে ঈদ উদযাপনে নিজ নিজ এলাকায় যাচ্ছেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতারা। এছাড়া নেতাদের নিজ নিজ এলাকাবাসির সাথে মতবিনিময় সভা করে জাতীয় ঐক্যের পক্ষে জনমত তৈরীর জন্য কাজ করতে নির্দেশ দিয়েছেন দলটির হাই কমান্ড। বিএনপির একটি নির্ভরযোগ্য সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

আগামী বুধবার মুসলিম জাহানের অন্যতম প্রধান ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল আজহা উদযাপিত হবে। দিনটি মুসলিম সম্প্রদায় ভাবগাম্ভীর্য ও উৎসব আমেজে সারাদেশে পশু কোরবানির মধ্যদিয়ে উদযাপিত করবে। তবে পবিত্র ঈদুল আজহা উদযাপনের পাশাপাশি এবার বিএনপির নেতাকর্মীরা নিজ নিজ এলাকাবাসির সাথে মতবিনিময় করে জাতীয় ঐক্য, বেগম খালেদা জিয়ার মুক্ত এবং সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও অবাধ নির্বাচনের পক্ষে জনমত গঠনের কাজ করবেন। কারণ সব কিছু ঠিক থাকলে আগামী ডিসেম্বর মাসের শেষ সপ্তাহে একাদশ জাতীয় সংষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

তবে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বাংলাদেশ জার্নালকে বলেন, ঈদ উপলক্ষে বিএনপির বিশেষ কোন পরিকল্পনা নেই। কারণ রাজনীতিবিদদের দৈনন্দিন কর্মকাণ্ড হচ্ছে, জনগণের সঙ্গে সম্পৃক্তা ও যোগাযোগ করা। আর ঈদকে তারা সেই সুযোগ হিসেবে গ্রহণ করবেন, এটাই স্বাভাবিক।

এবিষয়ে বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান হাবিব বাংলাদেশ জার্নালকে বলেন, ঈদ উপলক্ষে নতুন করে কোন দিক-নির্দেশনা দেওয়া হয়নি। কারণ জনগণের সাথে দেখা করা, কথা বলা এবং গণসংযোগ করা নির্দেশনা আমাদেরকে অনেক আগে থেকেই দেওয়া আছে। আর দলের যেসকল নেতাকর্মীরা আহত বা পঙ্গু, তাদের সঙ্গে দেখা এবং সহযোগিতা করার নির্দেশনাও রয়েছে। তবে ঈদে বিএনপির নেতারা নিজ এলাকার ভোটারদের সাথে মতবিনিময় সভা ও গণসংযোগ করবেন।

‘বেগম খালেদা জিয়াকে যে রাজনৈতিকভাবে আটকে রাখা হয়েছে, সেই বিষয়ে জনমত গঠনে নেতাদের কাজ করতে বলা হয়েছে’ বলেন হাবিব।

দলটির সাংগঠনিক সম্পাদক এমরান সালেহ প্রিন্স বাংলাদেশ জার্নালকে বলেন, আমরা ঈদের জন্য বাড়িতে যাচ্ছি। সুতরাং এলাকাবাসির সাথে ঈদ করবো। কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে এলাকাবাসি উদ্বিগ্ন। কারণ দেশে নির্বাচন হবে কী হবে না, জনগণ ভোট দিতে পারবে কী পারবে না- এমন একটি দুশ্চিন্তার মধ্যে তারা আছে। আমরা বাড়ি গেলে সাধারণ মানুষ আমাদের সাথে এসব বিষয় নিয়ে কথা বলে। আমরাও বলি। আমরা এবার ঈদেও এটা করবো।

কেএস

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • অালোচিত