ঢাকা, শনিবার, ২১ জুলাই ২০১৮, ৬ শ্রাবণ ১৪২৫ অাপডেট : ১ ঘন্টা আগে English

প্রকাশ : ১৫ মে ২০১৮, ১৪:২৯

প্রিন্ট

আদিত্য নন্দী : এক অনন্য আর অবিচ্ছেদ্য গরীবি ইতিহাস

আদিত্য নন্দী : এক অনন্য আর অবিচ্ছেদ্য গরীবি ইতিহাস
রাহুল নন্দী

আদিত্য নন্দী - এক অনন্য আর অবিচ্ছেদ্য গরীবি ইতিহাস। মানুষ চায় অর্থ, মান, যশ-এ পরিপূর্ণ হতে, আর সে চায় তার বিপরীত। পেশাজীবি কখনো ভাবনায় ও আনে না তার কর্ম ফল তাকে বন্দনা দিবে। বড় ভাই হয়ে ছোট ভাইয়ের গরীবি ইতিহাস লিখছি। কোনো পরিবার চায় না তার মেধাবী সন্তান রাজনীতি করে জীবনকে নষ্ট করুক (এটাই সমাজের বাস্তবতা)। তবে আদিত্য কেন? এখনো মনে পড়ে, দুই ভাই পিটাপিটি পড়া লিখা করছি, আমি পুরকৌশল নিয়ে কুয়েট থেকে স্নাতক শেষ করলাম আর সে স্নাতক এ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হল। পরিবারের একমাত্র রুজিরোজগার আমাদের বাবার ঘাড়ে। 

বাবা এমন এক আদর্শের মানুষ, নিজের দৈনিক রোজগার না হলে খালি হাতে বাড়ি ফিরবে কিন্তু কারো কাছ থেকে নিয়ে পরিবার চালাবে না। সে কাজটা মা সেরে নিত। তাই আমাদের পড়ালেখার জীবন সংগ্রাম না বললেই হয়। পড়ালেখা আমাদের দুই ভাইয়ের একমাত্র মেরুদণ্ড যার পেছনে স্বপ্ন তৈরি করতে অশেষ মানসিক শক্তি দিয়ে প্রেরণা  দিয়েছে আমাদের মা। আজ মার কাছে শুনলাম কে বা কারা আমার বাবার ভাঙা দোকানে এসে জিজ্ঞেস করল উনার গাড়ির শো রুম আছে কিনা। ছোট ভাই মেধাবি হয়েও এক প্রকার বেকার রাজনীতি করে। তাই পরিবার আমার কাঁধেচাপা। পরিবার নিয়ে ভাবে না সেই বিষয়টা না আমাকে যতটা পীড়া দেই, তার চেয়ে বেশী ব্যাথা লাগে সময় এর সাথে পিছিয়ে পরা ছোট ভাই এর মেধাবি অস্বচ্ছলতা। যে বাবার দৈনিক ১০০-২০০ টাকা আয় করতে হিমশিম খেতে হয়, তাকে নাকি জনৈক অনুসন্ধানকারী জিজ্ঞেস করে গাড়ির শো-রুম কোথায়? 

আমার ছোট ভাই বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি প্রার্থী, ভাবনায় এলো সে কারণে বাবার গাড়ির শো-রুমের উদ্ভাবন। আজ ছোটো ভাইকে প্রশ্ন করতে ইচ্ছে হয় 'কিছু না করেও আজ তোর কাঁধে অন্যায় আর দুর্নীতির অভিযোগ তবে কার জন্যে সৎ রাজনীতি করছিস? কেন তোকে আজও দুই বেলা ভাত খাওয়ার পয়সা পরিবার থেকে চেয়ে নিতে হয়? এত সব অভিযোগ থাকা সত্বেও আনন্দ এক জায়গাতে আজ সভাপতি না হয়েও মানুষের ঘরে ঘরে তার সভাপতি হয়ে উঠার প্রার্থনা। প্রার্থনা দুই ধরনের, সকাম - যেখানে নিজেই নিজের জন্যে কিছু চাওয়া হয়; নিষ্কাম - যেখানে অন্যে নিজের জন্যে চায়। ঈশ্বর নিষ্কাম প্রার্থনাকে সফল করে। তাই ছোট ভাই সভাপতি হোক বা না হোক, একটা ব্যাপার সত্যি সে মঙ্গল কামাইছে। 

আজ সবার মধ্যে তার সভাপতি হয়ে উঠার মঙ্গল প্রার্থনা সেটাই আসল অর্জন। তাই যে বা যারা তার নামে অপপ্রচার চালায় তারা শুধু অর্থ, মান, যশের অধিকারী হবা, মঙ্গল কামাই তে পারবা না। প্রধানমন্ত্রী কেন বা কি জন্যে আদিত্যর মত গরীব দুঃখী ঘরের ছেলে ফেলেকে বড় রাজনীতিজ্ঞ হবার প্রেরণা জোগায় তা আমার মত বামুনের মাথায় আসে না। রাজনীতি আজ তাদের জন্যে, যাদের লম্বা হাত আছে।

(লেখকের ফেসবুক স্ট্যাটাস থেকে নেওয়া)

বাংলাদেশ জার্নাল/এসকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • অালোচিত