ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৩ নভেম্বর ২০১৭, ৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৪ অাপডেট : ৩১ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১৪ নভেম্বর ২০১৭, ১৬:৪৭

প্রিন্ট

পোলার্ড ঝড়ে ঢাকার জয়

অনলাইন ডেস্ক

খুলনা টাইটান্সের বিপক্ষে এক বল বাকি থাকতে ৪ উইকেটের জয় তুলে নিয়েছে ঢাকা ডায়নামাইটস। খুলনার দেয়া ১৫৬ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে শুরুটা ভালো হয়নি ঢাকার। ৫০ রানের মধ্যে ঢাকা হারায় পাঁচ উইকেট। এরপরই শুরু হয় পোলার্ড ঝড়। তিনি মাত্র ২৪ বলে করেন ৫৫ রান।

এটি বিপিএলের তৃতীয় দ্রুততম হাফসেঞ্চুরি। বিপিএলের ২০১২ সালের আসরে বরিশাল বার্নার্সের হয়ে দুরন্ত রাজশাহীর হয়ে ১৬ বলে হাফসেঞ্চুরি করে টুর্নামেন্টের রেকর্ড দখলে রেখেছেন পাকিস্তানের ব্যাটসম্যান আহমেদ শেহজাদ। গত মৌসুমে খুলনা টাইটান্সের বিপক্ষে ঢাকার সেকুগে প্রসন্ন করেন ১৮ বলে হাফসেঞ্চুরি। পোলার্ডের সমান ১৯ বলে হাফসেঞ্চুরি করেন লুক রনকিও। চলতি আসরে চিটাগং ভাইকিংসের হযে রংপুর রাইডার্সের হয়ে ঝড় তোলার পথে এই কীর্তি গড়েন কিউই ব্যাটসম্যান।

ম্যাচে টস জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন ডায়নামাইটস দলপতি সাকিব আল হাসান। ব্যাটিংয়ে নেমে ঢাকার নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে খুব একটা স্বস্তি পায়নি খুলনা। ওপেনার নাজমুল হোসেন শান্ত ২৫ বলে তিনটি বাউন্ডারিতে করেন ২৪ রান। মাইকেল ক্লিনগার ১৪ বলে ১০ রান করে সাজঘরে ফেরেন। তিন নম্বরে নেমে ধীমান ঘোষ করেন মাত্র ২ রান। দলপতি মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ ফেরেন ১০ বলে ১৪ রান করেন। এরপর কিছুটা হাল ধরেন রিলে রুশো এবং কার্লোস ব্রাথওয়েইট। ৩৩ বলে ৫৪ রান তুলে নেয় এই জুটি। ৩০ বলে তিনটি বাউন্ডারিতে ৩৪ রান করেন রুশো। ২৫ বলে টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারের প্রথম হাফ-সেঞ্চুরি তুলে নেন ব্রাথওয়েইট। ৪টি চার আর ৬টি ছক্কায় ২৯ বলে ৬৪ রান করে অপরাজিত থাকেন ব্রাথওয়েইট। আরিফুল হক ৪ রানে অপরাজিত থাকেন।

ঢাকা ৭ বোলার ব্যবহার করে। শহীদ আফ্রিদি ৪ ওভারে ২৩ রান দিয়ে ১টি, সাকিব আল হাসান ৩ ওভারে ৩২ রান দিয়ে ১টি, আবু হায়দার রনি ৪ ওভারে ৪০ রান দিয়ে ২টি, সুনীল নারাইন ৪ ওভারে ২২ রান দিয়ে ১টি উইকেট নেন। মোসাদ্দেক হোসেন ৩ ওভারে ১৫ রান দিয়ে কোনো উইকেট পাননি। কাইরন পোলার্ড ১ ওভারে ১৩ রান দিয়ে উইকেট শূন্য থাকেন। খালেদ আহমেদ ১ ওভারে ৯ রান দিয়ে উইকেট পাননি।

১৫৭ রানের টার্গেটে ব্যাটিংয়ে নেমে ঢাকার শুরুটা বাজে হয়। দলীয় ৪১ রানের মাথায় বিদায় নেন টপঅর্ডারের পাঁচ ব্যাটসম্যান। এভিন লুইস ৪, সুনীল নারাইন ৭, শহীদ আফ্রিদি ১, ক্যামেরন ডেলপোর্ট ২ রান করে সাজঘরে ফেরেন। আর সাকিবের ব্যাট থেকে ১৭ বলে আসে ২০ রান।

এরপরই ঘুরে দাঁড়ান কাইরন পোলার্ড। জহুরুল ইসলামকে নিয়ে ৩৭ বলে ৭৩ রান স্কোরবোর্ডে যোগ করেন তিনি। বিদায় নেওয়ার আগে মিরপুরে ঝড় তোলেন ব্যাট হাতে। ষষ্ঠ ব্যাটসম্যান হিসেবে সাজঘরে ফেরার আগে ২৪ বলে করেন ৫৫ রান। তার ইনিংসে ছিল তিনটি চার এবং ৬টি ছক্কার মার। জহুরুল ইসলাম ৩৯ বলে ৫টি চারের সাহায্যে ৪৫ রান করে অপরাজিত থাকেন। মোসাদ্দেক হোসেন ১২ বলে ১৪ রান করে অপরাজিত থাকেন।

খুলনার আবু জায়েদ ৩ ওভারে ২৪ রান দিয়ে ১টি, শফিউল ইসলাম ৪ ওভারে ২৪ রান দিয়ে ২টি, জোফরা আরচার ৪ ওভারে ২৬ রান দিয়ে ১টি, ধনাঞ্জয়া ৪ ওভারে ১৭ রান দিয়ে ১টি, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ ২ ওভারে ২৯ রান দিয়ে ১টি উইকেট তুলে নেন। শেষ ওভারে আসেন ব্রাথওয়েইট। ৬ বলে ঢাকার দরকার ছিল ৬ রান। ব্রাথওয়েইট প্রথম দুটি বল ডট দেন। তৃতীয় ও চতুর্থ বলে সিঙ্গেল হয়। পঞ্চম বলে জহুরুল বাউন্ডারি হাঁকিয়ে জয় পাইয়ে দেন ঢাকাকে।

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • অালোচিত