ঢাকা, শুক্রবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৭, ১ পৌষ ১৪২৪ অাপডেট : ৪৬ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ২২ নভেম্বর ২০১৭, ১৪:৫৯

প্রিন্ট

স্টার্লিংয়ের গোলে জিতলো ম্যানসিটি

স্পোর্টস ডেস্ক

রাহিম স্টার্লিংয়ের একমাত্র গোলে ফেইনুর্ডকে পরাজিত করে চ্যাম্পিয়নস লীগে গ্রুপ-এইচ'র শীর্ষ স্থানটি নিজেদের দখলেই রেখেছে ম্যানচেস্টার সিটি।

যদিও ইউরোপের শীর্ষ এই প্রতিযোগিতায় আগেই নক আউট পর্ব নিশ্চিত করেছিল সিটিজেনরা। সে কারণেই সিটি বস পেপ গার্দিওলা মূল একাদশে সাতটি পরিবর্তন করে দল সাজিয়েছিলেন। ডাচ জায়ান্ট ফেইনুর্ডের বিপক্ষে ম্যাচে গোল পেতে অবশ্য সিটিকে ৮৮ মিনিট পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হয়েছে। ইলকে গুনডোগানের সাথে বল আদান প্রদান করে সিটিকে জয়সূচক গোল উপহার দিতে খুব একটা কষ্ট করতে হয়নি স্টার্লিংকে।

সব ধরনের প্রতিযোগিতা মিলিয়ে এই নিয়ে শেষ ১৭টি ম্যাচেই জয় তুলে নিল সিটি। এর মধ্যে রয়েছে লীগ কাপে উলভারহ্যাম্পটন ওয়ান্ডারার্সের বিপক্ষে পেনাল্টিতে জয়ী হওয়া ম্যাচটি। ম্যাচ শেষে গার্দিওলা বলেছেন, ‘অবশ্যই জয় না পাওয়া থেকে জয়ী হওয়া ভাল। প্রথমার্ধে আমাদের খেলা আরো ভাল হতে পারতো। কিন্তু পরিস্থিতি অনেক সময় অনুকূলে থাকেনা। ইতোমধ্যেই আমরা নক আউট পর্ব নিশ্চিত করেছি, অনেকগুলো ম্যাচ জিতেছি। প্রথমে এটাই নিশ্চিত করতে হবে। কাল আমাদের মধ্যে সেই চাপটা ছিলনা। কিন্তু এটাই স্বাভাবিক। ম্যাচের শেষের দিকে স্টার্লিংয়ের দুর্দান্ত গোলে আমাদের জয় নিশ্চিত হয়েছে।’

গ্রুপের অপর ম্যাচে শাখতার দোনেতাস্ক ইতালিয়ান জায়ান্ট নাপোলির কাছে ৩-০ গোলে বিধ্বস্ত হওয়ায় ইতিহাদ স্টেডিয়ামের ম্যাচটির ফলাফল মূলত কোন কাজে আসেনি। এই ম্যাচে না জিতলেও গ্রুপের শীর্ষ দল হিসেবে সিটিই থাকতো। তবে স্টার্লিংয়ের গোলে সিটির শতভাগ জয় নিশ্চিত হয়েছে। গতকাল নাপোলি জিতে যাওয়ায় ফেইনুর্ডের সামনে সান্ত্বনা হিসেবে ইউরোপা লীগে খেলার সুযোগও শেষ হয়ে গেছে। ম্যাচ শেষে হতাশ কোচ গিওভানি ভ্যান ব্রঙ্কহর্স্ট বলেছেন, ৮৮ মিনিটে গোল হজম করা সত্যিই হতাশার। আমি মনে করি আজ আমাদের আরো বেশী কিছু পাওয়া উচিত ছিল। এই পারফরমেন্সে আমি দারুণ সন্তুষ্ট।

এই ম্যাচের মাধ্যমে সিটির হয়ে প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচে অভিষেক হয়েছে ১৭ বছর বয়সী ইংলিশ মিডফিল্ডার ফিল ফোডেনের। সম্প্রতি ইংল্যান্ডের অনুর্ধ্ব-১৭ দলের হয়ে তারকা খ্যাতি পাওয়া ফোডেন ৭৫ মিনিটে ইয়াইয়া টোরের স্থানে মাঠে নামেন।

প্রথমার্ধে প্রায় পুরোটা সময় ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নিজেদের কাছে থাকলেও প্রিমিয়ার লীগের শীর্ষে থাকা দলটি কাঙ্খিত গোলের দেখা পায়নি। সার্জিও আগুয়েরোর দুর্বল শট আটকাতে ফেইনুর্ড গোলরক্ষক ব্র্যাড জোনস কোন কঠিন বাঁধার মুখে পড়েননি। ইনজুরি আক্রান্ত জন স্টোনসের স্থানে রক্ষণভাগে এলিয়াকুইম মানগালা মাঠে নামার কারণে সম্প্রতি সিটির ডিফেন্স খুব একটা সুরক্ষিত থাকে না। সেই সুযোগে সফরকারীরা বেশ কয়েকটি আক্রমণের সুযোগও নিয়েছে। কিন্তু জিন-পল বোয়েথিয়াস, টনি ভিলহেনা ও স্যাম লারসনের প্রচেষ্টাগুলো সিটি গোলরক্ষক এডারসনের দক্ষতায় সফল হয়নি। ৬০ মিনিটে স্টিভেন বারগুইসকে বাজেভাবে ট্যাকেলের কারণে কেভিন ডি ব্রুয়েনকে হলুদ কার্ড দিয়ে সতর্ক করা হয়। এই কার্ডের কারণে আগামী ৬ ডিসেম্বর দোনেতাস্ক সফরে আর খেলা হচ্ছেনা এই বেলজিয়াম মিডফিল্ডারের।

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • অালোচিত