ঢাকা, শনিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৮, ৫ কার্তিক ১৪২৫ অাপডেট : ১ ঘন্টা আগে English

প্রকাশ : ১২ জানুয়ারি ২০১৮, ১৮:৩২

প্রিন্ট

জন্মদিনের শুভেচ্ছায় ভাসছেন দ্রাবিড়

জন্মদিনের শুভেচ্ছায় ভাসছেন দ্রাবিড়
স্পোর্টস ডেস্ক

৪৪ পেরিয়ে ৪৫। বয়সটা বাড়ছে। কিন্তু জন্মদিনে উৎসব করে কাটানোর ফুরসত নেই রাহুল দ্রাবিড়ের। অনূর্ধ্ব ১৯ ভারতীয় দলকে নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছে নিউজিল্যান্ডের যুব বিশ্বকাপের আসরে।

জন্মদিন উপলক্ষে সাবেক ও বর্তমান ক্রিকেটাররা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শুভেচ্ছার বন্যা বইয়ে দিলেন। তবে প্রত্যেকের টুইটেই ছিল অভিনব কিছু। আর প্রত্যেকেই বুঝিয়েছেন ‘‌দ্য ওয়াল’কেন আলাদা।

শচীন টেন্ডুলকার যেমন টুইট করেন, ‘‌হতে পারে আমাদের আশপাশে অনেক কঠিন দেওয়াল আছে, কিন্তু আমি বলব, গ্রেটেস্ট ওয়াল যদি কিছু থেকে থাকে, সেটা শুধুই রাহুল দ্রাবিড়। হ্যাপি বার্থ ডে জ্যামি। অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপের জন্য শুভেচ্ছা রইল।’‌

ভি ভি এস লক্ষ্মণ বলেছেন, ‘‌বন্ধুত্ব মানে শুধু জীবনের অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ নয়। বন্ধুত্ব মানে, রোজ না দেখা হওয়ার পরও সম্পর্কটা একই থেকে যাওয়া। বন্ধু, হ্যাপি বার্থ ডে। রাহুল, তোমার সঙ্গে আমার বেশ কিছু দুর্দান্ত স্মৃতি রয়েছে।’‌

শেহবাগ তো অভিনব টুইট করে চমক দিতে বিশেষজ্ঞ। এদিন দুটি ছবি পোস্ট করেছেন শেহবাগ। একটা চীনের প্রাচীরের, অন্যটি দ্রাবিড় বাইক চালাচ্ছেন, তিনি বসে আছেন পেছনের সিটে। ছবি দুটি পোস্ট করে শেহবাগ লিখেছেন, ‘‌প্রথম ছবির ওয়াল, ভঙ্গুর হতে পারে, আবার নাও পারে। কিন্তু যে আমাকে বাইকে বসিয়ে নিয়ে যাচ্ছে, সেই ওয়াল কোনও দিন ভাঙার নয়। ওর বাইকের পেছনের সিটে বসে তাই এত নিশ্চিন্ত লাগে!‌ হ্যাপি বার্থ ডে দ্রাবিড়। অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপের জন্যও শুভেচ্ছা।

হরভজন সিং শুভেচ্ছা জানিয়েছেন গানের সুরে, ‘‌গ্রেট ওয়াল অফ ইন্ডিয়াকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা। বলিউডের একটা হিন্দি গান তোমায় উৎসর্গ করছি বন্ধু, না কোই হ্যায়, না কোই থা.‌.‌. ‌ক্রিকেট মে তুমাহারে য্যায়সা‌। অসাধারণ ব্যাটিং, অসাধারণ স্লিপ ক্যাচ!‌’

সুরেশ রায়না লিখেছেন, ‘‌হ্যাপি বার্থ ডে রাহুলভাই। নিষ্ঠা আর ত্যাগের সঠিক অর্থ তোমার কাছ থেকেই আমরা শিখেছি। তোমার হাত থেকে টেস্ট আর একদিনের ক্রিকেটে ভারতীয় দলে খেলার প্রথম টুপিটা পেয়েছিলাম। যা আজীবন আমার হৃদয়ে থাকবে। আশা করি, তোমার দল অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপে আমাদের গর্বিত করবে।’

আজিঙ্কা রাহানের টুইট, ‘‌রাহুল ভাইকে দেখেই আমি বড় হয়েছি। শুধু তার ক্রিকেটের জন্য নয়, তার সাধারণ জীবনধারণ আর গর্বের সঙ্গে মাথা উঁচু করে বেঁচে থাকাটা অনুপ্রাণিত করে।’‌

শুভেচ্ছা জানাতে বাদ যাননি চেতেশ্বর পুজারাও। শুভেচ্ছা জানিয়ে লিখেছেন, ‘ভারতের সবচেয়ে প্রিয় এবং সবচেয়ে নির্ভরযোগ্য ক্রিকেটারকে হ্যাপি বার্থ ডে।’‌

সতীর্থ ও জুনিয়র ক্রিকেটারদের কাছ থেকে এমন শুভেচ্ছা বার্তা পেয়ে নিশ্চিতভাবেই খুশি হয়েছেন দ্রাবিড়। তবে তিনি তো খুশি জাহির করার মানুষ নন। আবেগকে শেকল পরিয়ে রাখতেই অভ্যস্ত। ‌‌

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • অালোচিত