ঢাকা, শনিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৮, ৫ কার্তিক ১৪২৫ অাপডেট : ১ ঘন্টা আগে English

প্রকাশ : ০১ জানুয়ারি ২০১৮, ১০:৩৫

প্রিন্ট

পা দিয়ে লিখে প্রাথমিক সমাপনীতে সফল পলি

পা দিয়ে লিখে প্রাথমিক সমাপনীতে সফল পলি
অনলাইন ডেস্ক

শারীরিক প্রতিবন্ধী পলি রানী পা-দিয়ে লিখে পিইসিই পরীক্ষায় সাফল্যে অর্জন করেছে। সে শারীরিক অক্ষমতাকে হার মানিয়ে রংপুরের গদাই সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এই পরীক্ষায় অংশ নিয়ে জিপিএ-৪.৫৮ পেয়েছে।

ফলাফল প্রকাশের পর তার অনুভূতি জানতে চাওয়া হলে সে জানায়, আমি এ ফলাফলে বেশ খুশি। আমার কঠোর পরিশ্রমের ফল আমি পেয়েছি। সে আরো জানায় তার দুই হাত ও দুই পা অচল। জন্মগত ভাবেই তার এ অবস্থা। বাড়িতে সে প্রথমে মায়ের সাহায্যে পা দিয়ে কলম ধরা শেখে এবং আসতে আসতে লিখতে শিখে। একদিন মা-বাবাকে বলে স্কুলে যাওয়ার কথা। এর পর বাবা তাকে স্কুলে ভর্তি করে দেয়। পা দিয়ে লিখে সে প্রথম শ্রেণি থেকে ৪র্থ শ্রেণি পর্যন্ত সফলভাবে পাশ করে এবছর পিইসিই পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে।

এক সময়ে অনেকে বলেছে পলীর লেখাপড়া অসম্ভব, পলি সেই অসম্ভবকে সম্ভব করে দেখিয়েছে। তার বাড়ি নিজপাড়া গ্রামে। ২০১৪ সালে তার বাবা মনোরঞ্জন চন্দ্র সড়ক দুর্ঘটনায় মারা যান। তার বাবা মনোরঞ্জন চন্দ্র ক্ষুদে কাপড় ব্যবসায়ী ছিলেন ও মা রুপালী রানী গৃহিণী। তাদের ৬ ভাই-বোনের মধ্যে সে সবার ছোট। পলি জানায়, স্কুলের শিক্ষক ও ছাত্র-ছাত্রীরা সবাই তার সাথে ভাল আচরণ করতো। পলী জানায় বাবা মারা যাওয়ার পর তাদের সংসারে এখন খুবই অভাব। বড় ৩ ভাই পড়া লেখা করে। তাদের খরচ মায়ের পক্ষে চালানই কষ্ট হয়ে দাঁড়িয়েছে। সে নিজে খেতেও পারে না, মা না খাইয়ে দিলে তাকে না খেয়ে থাকতে হয়।

পলী আরো জানায়, পরিবার ও সমাজের বোঝা না হয়ে সে প্রকৃত শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে সমাজে মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে চায়। মাঝে মাঝে নিজের শারীরিক অক্ষমতায় মনে কষ্ট লাগে, কিন্তু স্কুলে গেলে সব ভুলে যেত। তার স্বপ্ন পূরণে বাঁধা এখন দরিদ্রতা। সমাজের বৃত্তবানরাই পারে তার স্বপ্ন পূরণে সহায়তা করতে।

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • অালোচিত