ঢাকা, রবিবার, ২৭ মে ২০১৮, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫ অাপডেট : ২ ঘন্টা আগে English

প্রকাশ : ০৭ মে ২০১৮, ১৮:৫১

প্রিন্ট

গরিবের ঘরে চাঁদের আলো

গরিবের ঘরে চাঁদের আলো
আড়াইহাজার (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি

টানাটানির সংসার। প্রতিনিয়তই চলতে হয় অভাবের সাথে যুদ্ধ করে। তারপরেও থেমে যায়নি। চেষ্টা করে গেছে। আর তার ফলও পেয়েছে। 

বলছিলাম সাবেরা, সাকেরা ও জাকেরার কথা। তারা যমজ তিন বোন। এবার এসএসসি পরীক্ষায় সাবেরা ও জাকেরা জিপিএ ৫ পেয়েছে। আর সাকেরা পেয়েছে জিপিএ ৪.৮৯। গরিবের ঘরে এ যেন চাঁদের আলো। 

তাদের বাবা জিয়াউর রহমান শিঙ্গাড়া-পুরি বিক্রেতা। মা হোসনে আরা রহমান গৃহিণী। নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার উপজেলার ফতেহপুর ইউনিয়নে থাকেন তিন মেয়েকে নিয়ে।

এই তিন বোন প্রথমে আড়াইহাজার মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভর্তি হয়। প্রাথমিক সমাপনীতে তিন বোনই একসঙ্গে জিপিএ ৫ লাভের কৃতিত্ব অর্জন করে। 

এরপর আড়াইহাজার পাইলট মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ে ভর্তি করা হয় তিনজনকে। ২০১৬ সালে এ বিদ্যালয় থেকে জেএসসি পরীক্ষায়ও জিপিএ ৫ পাওয়ার সাফল্য দেখিয়ে চমক সৃষ্টি করে তারা। এ বছর এসএসসি পরীক্ষায় বিজ্ঞান বিভাগ থেকে সাবেরা ও জাকেরা জিপিএ ৫ আর সাকেরা জিপিএ ৪.৮৯ পেয়েছে। এখন এই তিন মেধাবী মেয়েকে ঘিরেই সব স্বপ্ন বাবা-মা’র।

তিন যমজ বোনের মধ্যে সাবেরা বড়। সে জানায়, পড়াশোনা করে প্রশাসনিক কর্মকর্তা হতে চায়। সরকারি সেবা সাধারণ মানুষের দৌরগোড়ায় পৌঁছে দিতে চায়। 

জিয়াউর রহমান জানান, দারিদ্র্যের কারণে এসএসসি পাসের পর পড়াশোনা করতে পারেননি। মেধা থাকা সত্ত্বেও লেখাপড়া না করতে পারার আফসোস তাকে প্রতিনিয়ত যন্ত্রণা দেয়। 

তাদের এ সাফল্যে খুশি এলাকাবাসীও। আড়াইহাজার পাইলট মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক ইয়াহিয়া স্বপন বলেন, তিন বোনই মেধাবী। তাদের এ ফলাফলে আমরা আনন্দিত এবং তাদের উন্নতি কামনা করছি। 

জেডএইচ/

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • অালোচিত