ঢাকা, সোমবার, ১৫ অক্টোবর ২০১৮, ৩০ আশ্বিন ১৪২৫ অাপডেট : ৬ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১৩ জুন ২০১৮, ১৫:৩০

প্রিন্ট

প্রথম বিসিএসেই ক্যাডার হয়েছেন তারা

প্রথম বিসিএসেই ক্যাডার হয়েছেন তারা
অনলাইন ডেস্ক

প্রথম বিসিএসেই ক্যাডার হলেন বুয়েটের তকী ফয়সাল এবং ঢাবির রহমত আলী। একজন প্রশাসন ক্যাডের প্রথম, আরেকজন হলেন পররাষ্ট্র ক্যাডারে প্রথম। বিসিএসই ছিল তাদের জীবনের একমাত্র লক্ষ্য। মঙ্গলবার ৩৭তম বিসিএসের চূড়ান্ত ফলাফল দিয়েছে বাংলাদেশ সরকারি কর্মকমিশন (পিএসসি)।

প্রশাসন ক্যাডারে প্রথম হয়েছেন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের তকী ফয়সাল আর পররাষ্ট্র ক্যাডারে প্রথম হয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রহমত আলী শাকিল।

বগুড়া জিলা স্কুল থেকে মাধ্যমিক আর আজিজুল হক কলেজ থেকে উচ্চমাধ্যমিক পাস করেন তকী। দুটোতেই গোল্ডেন জিপিএ-৫ পেয়ে ভর্তি হলেন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ইলেকট্রিক অ্যান্ড ইলেকট্রনিকস ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ফলাফলও করেছেন ভালো। তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সময় শুধু একাডেমিক পড়াশোনাকেই প্রাধান্য দিয়েছি। বিএসসি চূড়ান্ত ফলাফলের পর বড় ভাইয়ের উৎসাহে বিসিএসের পড়া শুরু করে দিলাম। বড় ভাই রফি ফয়সালও ৩৪তম বিসিএসে প্রাণিসম্পদ ক্যাডার। তার পরামর্শ বেশি কাজে লেগেছে। তিনি বলে দিয়েছিলেন কীভাবে এগোতে হবে।

ভাইয়ের দেখানো পথে হেঁটে নিজের জীবনে প্রথম চাকরির পরীক্ষা দেন তকী ফয়সাল। গতকাল যখন ফলাফল ঘোষণা করা হলো, তখন ফয়সাল নিজেই খুদে বার্তার মাধ্যমে ফলাফল দেখে কিছুটা বিস্মিত হলেন।

পররাষ্ট্র ক্যাডারের মতো আকর্ষণীয় ক্যাডারে প্রথম হয়েছেন রহমত আলী। গাজীপুর কাওরাইত কে এন উচ্চবিদ্যালয় থেকে মাধ্যমিক আর ঢাকার বিএফ শাহীন কলেজ থেকে উচ্চমাধ্যমিক পাস করেন তিনি।

দুই পরীক্ষাতেই গোল্ডেন জিপিএ-৫ পান। ইচ্ছা ছিল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মাইক্রোবায়োলজি বিভাগে ভর্তি হবেন। পরীক্ষা দিয়ে সেই সুযোগও পান রহমত আলী।

শুরু থেকেই তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়াশোনা নিয়ে মনোযোগী ছিলেন। অনার্স ও মাস্টার্স—দুই পরীক্ষাতেই প্রথম। অনার্সে সিজিপিএ-৪-এর মধ্যে ৩ দশমিক ৯৮ আর মাস্টার্সে ৩ দশমিক ৯৬। তাঁর বিভাগে এই ফলাফলই সবচেয়ে সেরা। ভালো ফলের জন্য পেলেন প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক।

আলী বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা শেষে বিসিএস পরীক্ষায় প্রস্তুতি নিই। কোথাও কোচিং নয়, নিজে নিজেই পড়তে শুরু করলাম। প্রথম পছন্দ ছিল পররাষ্ট্র ক্যাডার। পরীক্ষা ভালোই হয়েছিল। বিসিএসের ভাইভা বোর্ডে ছিলাম ২৫ মিনিটের মতো। প্রায় সব প্রশ্নের উত্তর দিয়েছিলাম। আশা ছিল পররাষ্ট্র বা প্রশাসন ক্যাডারে সুযোগ পাব।

ফলাফল ঘোষণার পর কেমন হয়েছিল অনুভূতি? রহমত বললেন, ফলাফলের পর যখন দেখলাম পররাষ্ট্র প্রথম হয়েছি, নিজের চোখকে বিশ্বাস হচ্ছিল না। ভালো ফলের জন্য সব সময় পরিবাররে সমর্থন পেয়েছেন রহমত আলী।

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • অালোচিত