ঢাকা, শনিবার, ০৬ জুন ২০২০, ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ আপডেট : ২১ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ০৭ মে ২০২০, ১৯:৫০

প্রিন্ট

ডিএসইর পরিচালকসহ আরও ৩ জনের রিমান্ড চায় পুলিশ

ডিএসইর পরিচালকসহ আরও ৩ জনের রিমান্ড চায় পুলিশ

Evaly

রিমান্ড
পুলিশ

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় গ্রেপ্তার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের পরিচালক মিনহাজ মান্নান ইমনসহ আরও ৩ জনকে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করতে চায় পুলিশ। ডিএসইর পরিচালক ছাড়া বাকি ৩ জন হচ্ছে ‘রাষ্ট্রচিন্তার’ সদস্য দিদারুল ভূঁইয়া, কার্টুনিস্ট আহমেদ কবির কিশোর এবং ব্যবসায়ী মুশতাক আহমদ।

এদিকে বৃহস্পতিবার রিমান্ড আবেদনের শুনানির জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র না থাকায় ঢাকার মহানগর হাকিম রাজেশ চৌধুরী তাদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। এসময় আদালত খোলার পর রিমান্ড শুনানির জন্য পরবর্তী তারিখ ঠিক করে দেওয়া হবে বলেও জনান বিচারক।

বিএলআই সিকিউরিটিজের কর্ণধার মিনহাজ মান্নান ইমনের (৫২) ভাই ঢাকায় মার্কিন দূতাবাসের কর্মকর্তা জুলহাজ মান্নানকে ২০১৬ সালে জঙ্গিরা হত্যা করেছিল। বুধবার ঢাকার বনানী থেকে গ্রেপ্তারের পর রাতে ইমনকে রমনা থানায় হস্তান্তর করা হয়।

একই সঙ্গে থানায় হস্তান্তর আগের দিন বাসা থেকে তুলে নেওয়া দিদারুল ভূঁইয়াকে, যিনি দুর্যোগ সহায়তা মনিটরিং সেল ও ‘রাষ্ট্রচিন্তা’ নামের একটি সংগঠনের সদস্য।

তাদের দুজনকে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের একটি মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়, যে মামলায় ইতোপূর্বে গ্রেপ্তার কার্টুনিস্ট আহমেদ কবির কিশোর এবং ব্যবসায়ী মুশতাক আহমদও আসামি।

কার্টুনিস্ট কিশোর রাজনৈতিক কার্টুন এঁকে থাকেন, আর ব্যবসায়ী মুশতাক অনলাইনে লেখালেখিতে সক্রিয়। র‌্যাব-৩ এর ডিএডি আবু বকর সিদ্দিকের করা এই মামলায় আসামিদের বিরুদ্ধে ফেইসবুকে রাষ্ট্রবিরোধী প্রচারের অভিযোগ আনা হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে রাষ্ট্রপক্ষের সহকারী পাবলিক প্রসিকিউটর হেমায়েত উদ্দিন খান হিরন বলেন, ইমন ও দিদারুলকে বৃহস্পতিবার আদালতে হাজির করে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৭ দিন করে রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এস আই জামসেদুল ইসলাম।

আসামিপক্ষের আইনজীবীরা এ সময় রিমান্ড আবেদনের বিরোধিতা কর জামিনের আবেদন করেন। কিন্তু রিমান্ড শুনানির কাগজপত্র না থাকায় দুই শুনানিই পিছিয়ে দেন বিচারক।

এদিকে আগের দিন কারাগারে পাঠানো কার্টুনিস্ট কিশোর ও ব্যবসায়ী মুশতাককেও জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৭ দিনের রিমান্ডের আবেদন করেন এস আই জামসেদুল।

আদালত পুলিশের সাধারণ নিবন্ধন কমৃকর্তা এস আই নিজাম উদ্দিন ফকির জানান, তাদের ক্ষেত্রেও বিচারক একই আদেশ দেন। মঙ্গলবার কিশোরকে কাকরাইল এবং মুশতাককে লালমাটিয়ার বাসা থেকে গ্রেপ্তার করে পরে রমনা থানায় হস্তান্তর করে র‌্যাব।

বাংলাদেশ জার্নাল/ এমএম

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত