ঢাকা, সোমবার, ১৩ জুলাই ২০২০, ২৯ আষাঢ় ১৪২৭ আপডেট : ৩ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ০৩ জুন ২০২০, ১৯:৪৪

প্রিন্ট

ধামরাইয়ে আক্রান্তরা মানছে না হোম কোয়ারেন্টাইন

ধামরাইয়ে আক্রান্তরা মানছে না হোম কোয়ারেন্টাইন
ধামরাই প্রতিনিধি

ঢাকার ধামরাইয়ে হোমকোয়ারেন্টাইন মানছে না করোনা আক্রান্ত রোগীরা এমন অভিযোগ উঠেছে বেশ কয়েকটি এলাকার আক্রান্ত রোগীদের বিরুদ্ধে। এদিকে হোম কোয়ারান্টাইন না মানার কারণে ১৪ দিন পর পূণরায় নমুনা পরিক্ষা করা হলে তাদের পজেটিভ আসে বলে জানা যায়।

সরেজমিনে জানা যায়, উপজেলার সূতিপাড়া ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মোঃ ইদ্রিস আলীর ছেলে মোঃ হাবিবুর রহমান করোনা ভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছে। এছাড়াও তার বাসার আরো দুইজন ভাড়াটিয়া করোনা পজেটিভ। কিন্তু তারা ঔই এলাকার বাজারে, রাস্তাঘাটে খোলামেলা ঘুরাঘুরি করছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক শ্রীরামপুর এলাকার একাধিক বাসিন্দারা বলেন, ইদ্রিস আলী এলাকার একজন প্রভাবশালী ব্যক্তি। আওয়ামী লীগের রাজনীতি করে। সে কারো কোন কথা মানছে না। উল্টো তিনি বলেন, আমি জনপ্রতিনিধি আমার ঘরে থাকলে চলে। এলাকাবাসী তার ও তার পরিবারের মাধ্যমে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানান।

এ বিষয়ে ৭ নং সূতিপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য মোঃ ইদ্রিস আলী কাজের ব্যস্ততা দেখিয়ে কথা বলা এড়িয়ে যান।

সূতিপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ রেজাউল করিম রাজা বলেন, আমি করোনা আক্রান্তের খবর জানতে পেরে ইউপি সদস্য মোঃ ইদ্রিস আলীর বাড়ি যাই।তার বড় ছেলে করোনা পজিটিভ। আমি বাড়ি লকডাউন করে দিয়েছি।আমি আবার খবর নিবো।যদি লকডাউন না মানে তবে তাদের বিরুদ্ধে অন্য ব্যবস্থা নিতে হবে।আমি জনপ্রতিনিধি। সবার ভালো মন্দ আমার দেখা উচিত। এক জনের জন্য সবাই ক্ষতিগ্রস্থ হবে তা করতে দেওয়া যাবে না।

আরো জানা যায়, শ্রীরামপুর এলাকায় বেশ কিছু কলকারখানার শ্রমিকরা করোনা ভাইরাস পজেটিভ। তারা মানিকগঞ্জ সরকারি হাসপাতাল থেকে পরিক্ষা করিয়াছে।তাদের খবর অনেকেই জানে না। তারা করোনা পজিটিভ বলে এলাকাবাসী ধারণা করছে। কিন্তু তারা মানছে না কোন সামাজিক দূরত্ব। করছে না লকডাউনের তোয়াক্কা। তারা অবাধে রাস্তা ঘাট,হাটবাজারে ঘুরে বেড়াচ্ছে বলে একাধিক এলাকাবাসীর অভিযোগ। অনেকে ঘর থেকে বের হতে ভয় করছে।কারণ আক্রান্তরাই বাহিরে ঘুরে বেড়াচ্ছে, মানছে না সামাজিক দূরত্ব।

এছাড়াও ধামরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা যায়, হাজিপুর,ইকুরিয়া, ছোট চন্দ্রাইল, তেতুলিয়া, কাকরান এলাকার করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ৬ জন রোগী চিকিৎসককের পরামর্শ অনুযায়ী স্বাস্থ্য না মানায় ১৪ দিন পর ঔ করোনা আক্রান্ত রোগীর নতুনভাবে নমুনা পরিক্ষা করা হলে তাদের করোনা পজেটিভ আসে।

বাংলাদেশ জার্নাল/ এমএম

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত
best