ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০, ৭ আশ্বিন ১৪২৭ আপডেট : ২ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ০৬ জুন ২০২০, ১৫:৩৯

প্রিন্ট

চিঠি ফাঁস হওয়ারও তদন্ত হবে: পুলিশ কমিশনার

চিঠি ফাঁস হওয়ারও তদন্ত হবে: পুলিশ কমিশনার
অনলাইন ডেস্ক

ডিএমপির কমিশনার মোহা.শফিকুল ইসলামকে ঘুষের পার্সেন্টেজ গ্রহণের প্রস্তাব দিয়েছিলেন তারই অধিনস্ত অন্য এক পুলিশ কর্মকর্তা। এই ঘটনায় তিনি ওই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য উর্ধ্বতন কর্মকর্তার কাছে চিঠি লেখেন। এই খবর ফাঁস হয়ে যাওয়ার পর দেশজুড়ে প্রশংসায় ভাসছেন ওই পুলিশ কমিশনার।

তবে তিনি জানিয়েছেন, অধস্তন কর্মকর্তার ঘুষের প্রস্তাবের পাশাপাশি এই ঘটনাটি মিডিয়ার কাছে কীভাবে গেল, তা নিয়েও তদন্ত হবে।

জানা যায়, গত ৩০ মে ডিএমপির যুগ্ম-কমিশনার (লজিস্টিকস) মো. ইমাম হোসেনের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ এনে পুলিশ মহাপরিদর্শকের কাছে একটি চিঠি পাঠান শফিকুল। চিঠিতে তিনি মো. ইমাম হোসেনকে ‘দুর্নীতিপরায়ণ’ হিসাবে আখ্যায়িত করে তাকে জরুরি ভিত্তিতে বদলি করার সুপারিশ করেন।

বেশ কিছু পত্রিকায় তার ওই চিঠির খবর প্রকাশিত হয়। এরপর এই ঘটনা সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। পুলিশ কমিশনার শফিকুলের প্রশংসা করে অনেকেই ফেসবুকে পোস্ট দেন।বিষয়টি ভালোভাবে নেননি পুলিশের ওই কর্মকর্তা। পুলিশ বিভাগের এত গোপন ঘটনাটি প্রকাশে আসায় তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, এ ঘটনারও তদন্ত হবে।

যদিও শফিকুল দেশের এক সংবাদ মাধ্যমের কাছে সহকর্মীর বিরুদ্ধে চিঠি দেয়ার বিষয়টি স্বীকার করেছেন। তবে তিনি বলেন, বিষয়টি একবারে অভ্যন্তরীণ। চিঠি পাঠানোর মতো এত গোপন বিষয়টি কীভাবে মিডিয়ার কাছে গেলো, তা নিয়ে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হচ্ছে। ওই কমিটি কারা মিডিয়ার কাছে এই খবর ফাঁস করেছে সেটি খতিয়ে দেখবে।

জানা যায়, ইমাম হোসেন ২০১২ সালে ডিএমপির তেজগাঁও বিভাগের উপ-কমিশনার হিসেবে যোগ দেন। পরে নানা সময়ে তিনি ডিএমপির উপ-কমিশনার (অর্থ) ও উপ-কমিশনার (লজিস্টিকস) হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। পদোন্নতি পেয়ে এখন তিনি যুগ্ম কমিশনার হিসেবে লজিস্টিকস বিভাগে কর্মরত আছেন।

গত ৩০ মে এই ইমাম হোসেনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণেরর জন্য পুলিশের মহাপরিদর্শকের কাছে চিঠি পাঠান তিনি।

চিঠিতে বলা হয়, ডিএমপির বিভিন্ন কেনাকাটায় তার (ইমাম হোসেন) বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে। এছাড়া তিনি ডিএমপির কেনাকাটায় স্বয়ং পুলিশ কমিশনারকে‘পার্সেন্টেজ’ নেয়ার প্রস্তাব দিয়েছেন। ফলে তার মতো একজন অসৎ কর্মকর্তাকে ডিএমপিতে রাখা ঠিক নয়।

তবে তার ওই চিঠি পাঠানোর খবর গণমাধ্যমে প্রকাশ হয়ে যাওয়ায় এখনএ ঘটনাটিও খতিয়ে দেখা হবে বলে জানান ডিএমপির কমিশনার শফিকুল।

তিনি আরও আশা করছেন, সহকর্মী মো. ইমাম হোসেনের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ খতিয়ে দেখবেন পুলিশ মহাপরিদর্শক বেনজীর আহমেদ।

ডিএমপির যুগ্ম-কমিশনার ইমাম হোসেন এবং তার বিরুদ্ধে পাঠানো চিঠি

এমএ/

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত