ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ আগস্ট ২০২০, ২৯ শ্রাবণ ১৪২৭ আপডেট : কিছুক্ষণ আগে English

প্রকাশ : ০৬ জুলাই ২০২০, ১৯:৫৪

প্রিন্ট

কিট সঙ্কটে কমছে টেস্ট, বাড়ছে মৃত্যু

কিট সঙ্কটে কমছে টেস্ট, বাড়ছে মৃত্যু
প্রতীকী ছবি
নিজস্ব প্রতিবেদক

দেশে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা বাড়ছে। কিন্তু কিট সঙ্কটের কারণে টেস্ট কমছে। আর কিট সঙ্কটের জন্য পরীক্ষা কম হওয়ায় শনাক্তও কম হচ্ছে। তবে জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, করোনা পরীক্ষার ফি নির্ধারণ এবং কিট সঙ্কটের কারণে পরীক্ষা কম হচ্ছে।

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় ৩ হাজার ২০১ জন করোনায় সংক্রমিত বলে শনাক্ত হয়েছে। একই সময়ে করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৪৪ জনের। এ নিয়ে করোনা শনাক্ত হয়েছে ১ লাখ ৬৫ হাজার ৬১৮ জনের। এ পর্যন্ত মারা গেছেন ২ হাজার ৯৬ জন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়মিত অনলাইন ব্রিফিংয়ের তথ্য অনুযায়ী, গত ১ জুলাই নমুনা সংগ্রহ করা হয় ১৬ হাজার ৮৯৮টি। এর মধ্যে আগের নমুনা মিলে পরীক্ষা করা হয়েছে ১৭ হাজার ৮৭৫টি। আর গত ২ জুলাই করোনাভাইরাস শনাক্তে ১৭ হাজার ৯৪৭টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়, গত ৩ জুলাই করোনা শনাক্তে ১৪ হাজার ৬৫০টি নমুনা পরীক্ষা করা হয় এবং গত ৪ জুলাই ১৩ হাজার ৮৭১টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়। আর পরীক্ষা করা হয় আগের কিছু মিলিয়ে ১৪ হাজার ৭২৭টি নমুনা।

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় ১৪ হাজার ২৪৫ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এর আগের দিন ১৩ হাজার ৯৮৮ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এ পর্যন্ত পরীক্ষা হয়েছে ৮ লাখ ৬০ হাজার ৩০৭টি নমুনা।

অন্যদিকে ল্যাবগুলোতে নমুনা সংগ্রহ বাড়ছে। এর সাথে সাথে উপসর্গ নিয়ে অপেক্ষমাণ মানুষের সারিও বাড়ছে। কিন্তু টেস্ট করতে দেওয়ার ২০ দিনেও রিপোর্ট মিলছে না বলে অভিযোগ উঠছে। আবার অনেক জায়গায় উপসর্গ থাকা ব্যক্তিদের পেশার ভিত্তিতে তালিকা করে নমুনা নেওয়া হচ্ছে। আর এসব দীর্ঘসূত্রতায় রোগীর অবস্থার অবনতি ঘটছে। যার ফলশ্রুতি মৃত্যুর সংখ্যা বাড়ছে।

এ বিষয়ে রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের (আইইডিসিআর) উপদেষ্টা ডা. মুশতাক হোসেন বলেন, গত সপ্তাহের কিট সঙ্কটের কারণে পরীক্ষা কম হতে পারে। কারণ ওই নমুনাগুলো এখনো পরীক্ষা করা হচ্ছে। আর পরীক্ষার ফি নির্ধারণের কারণে কম পরীক্ষা হচ্ছে কি না তা এখন বলা যাবে না। কারণ এজন্য আরো এক সপ্তাহ অপেক্ষা করতে হবে।

করোনার পরীক্ষা কমে যাওয়ার বিষয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) সাবেক ভিসি অধ্যাপক ডা. নজরুল ইসলাম বলেন, প্রাথমিকভাবে সন্দেহ হচ্ছে, পরীক্ষার ফি নির্ধারণের জন্য নমুনা সংগ্রহ কম হতে পারে। তবে এজন্য আরো কয়েকদিন দেখতে হবে। এই সংখ্যা যদি আরো কমতে থাকে তখন প্রমাণিত হবে যে, এটা টাকা নেয়ার কারণে হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত ৮ মার্চ দেশে করোনায় প্রথম ব্যক্তি শনাক্তের ঘোষণা আসে। আর ১৮ মার্চ প্রথম মৃত্যুর ঘটনা ঘটে।

বাংলাদেশ জার্নাল/আর, কেএস

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত