ঢাকা, বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০, ১৩ কার্তিক ১৪২৭ আপডেট : কিছুক্ষণ আগে English

প্রকাশ : ০৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৬:৩৪

প্রিন্ট

গ্রিড উপকেন্দ্রে অগ্নিকাণ্ড

ময়মনসিংহে পালাক্রমে বিদ্যুৎ সরবরাহ, স্বাভাবিক হতে ২-৩ দিন

ময়মনসিংহে পালাক্রমে বিদ্যুৎ সরবরাহ, স্বাভাবিক হতে ২-৩ দিন
ময়মনসিংহ প্রতিনিধি

কেওয়াটখালি পাওয়ার গ্রিডে অগ্নিকাণ্ডের পর ময়মনসিংহে বিভিন্ন এলাকায় পালাক্রমে বিদ্যুৎ সরবরাহ শুরু হয়েছে। এদিকে সরবরাহ স্বাভাবিক হতে দুই-তিন দিন সময় লাগতে পারে বলে জানিয়েছেন ময়মনসিংহ পাওয়ার গ্রিডের নির্বাহী প্রকৌশলী মাসুদুর রহমান।

তিনি বলেন, পাওয়ার গ্রিডের তিনটি পাওয়ার ট্রান্সফরমারের মধ্যে একটি আগুনে পুড়ে যাওয়ায় আগামী দুই থেকে তিন দিনের মধ্যেই ট্রান্সফরমার সারিয়ে তোলার পর ময়মনসিংহের বিদ্যুৎ সরবরাহ স্বাভাবিক হবে। পুড়ে যাওয়া ট্রান্সফরমারটি সারিয়ে তোলার জন্য প্রকৌশলী এবং কর্মীরা কাজ করছেন।

পাওয়ার গ্রিডের বাকি দুটি ট্রান্সফরমারের মধ্যে একটি ব্যবহার করে নেত্রকোনা, জামালপুর ও শেরপুরে বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হয়েছে। অপরটি ব্যবহার করে ময়মনসিংহ মহানগরীর বিভিন্ন এলাকায় পালাক্রমে বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হচ্ছে। তবে জেলার ১২টি উপজেলা বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন রয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুর ১ টার দিকে হঠাৎ বিকট শব্দে পিজিসিবির ময়মনসিংহ নগরীর কেওয়াটখালিস্থ পাওয়ার গ্রীডে আগুন ধরে যায়। মাত্র দশ মিনিটের মধ্যেই আগুন ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে ময়মনসিংহ ফায়ার সার্ভিসের দুইটি ইউনিট প্রায় এক ঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে মূল আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

প্রত্যক্ষদর্শী আনসার সদস্যরা জানায়, পশ্চিমপাশের সাব স্টেশন থেকে পূর্ব ও দক্ষিণ পাশের মূল পাওয়ার গ্রীডে আগুন ছড়িয়ে পড়ে। এসময় গ্রীডের একটি পাওয়ার ট্রান্সফরমার পুড়ে যায় এবং এর পাশের আরেকটি পাওয়ার ট্রান্সফরমারও ক্ষতিগ্রস্থ হয়।

স্থানীয় সংশ্লিষ্ট প্রকৌশলী সূত্র জানায়, গ্রীডের ভেতর ৩৩ কেভি সাবস্টেশন থেকে আগুন পাশের ১ লাখ ৩৩ হাজার কেভি গ্রীডে ছড়িয়ে পড়ে।

এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসন ও পিজিসিবির পক্ষ থেকে আলাদা দুটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

ময়মনসিংহের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক জাহাঙ্গীর আলমকে প্রধান করে পাঁচ সদস্যের কমিটিতে আছেন- ফায়ার সার্ভিসের উপ পরিচালক আবুল কাশেম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার প্রশাসন শাহজাহান মিয়া, পিডিবির অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী আবুল কালাম আজাদ ও পিজিসিবির স্থানীয় নির্বাহী প্রকৌশলী মাসুদুর রহমান। কমিটিকে আগামী ৩ কর্মদিবসে রিপোর্ট দিতে বলা হয়েছে।

এছাড়া পিজিসিবি, পিডিবি এবং আরইবির পক্ষ থেকে পিজিসিবির নির্বাহী পরিচালক (অপারেশন অ্যান্ড মেইনটেন্যান্স) মাসুম আলম বকসিকে প্রধান করে গঠিত আরও একটি তদন্ত কমিটি ইতোমধ্যে কাজ শুরু করেছে। ঢাকা থেকে আসা উচ্চ পর্যায়ের এই টিম ঘটনাস্থল পরির্দশনসহ অগ্নিকাণ্ডের কারণ খতিয়ে দেখছে।

বাংলাদেশ জার্নাল/আর

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত