ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর ২০২০, ৭ কার্তিক ১৪২৭ আপডেট : ২ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২০:২৩

প্রিন্ট

অনলাইন ক্লাসে দেশসেরা হয়েছে যে জেলা

অনলাইন ক্লাসে দেশসেরা হয়েছে যে জেলা
রাজবাড়ী প্রতিনিধি

কোভিড সংক্রমণের হাত থেকে শিক্ষার্থীদের রক্ষা করতে গত মার্চ মাস থেকে দেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা হয়েছে। বিকল্প মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের পড়াশোনা চালিয়ে যেতে সরকার বিভিন্ন পদ্ধতি অবলম্বন করেছে। এ ক্ষেত্রে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো শিক্ষার্থীদের কথা চিন্তা করে অনলাইন ক্লাস গ্রহণের ওপর জোর দিয়েছেন।

শিক্ষার্থীদের পড়াশোনা চলমান রাখতে অনলাইন ক্লাস করার কারণে দেশসেরা হয়েছে রাজবাড়ী জেলা। এটুআই ও শিক্ষক বাতায়নের রিপোর্ট অনুসারে রাজবাড়ী জেলা সবচেয়ে বেশি ক্লাস গ্রহণ করায় দেশের সেরা হয়েছে।

কোভিডকালীন সময়ে রাজবাড়ীতে ২০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান অনলাইন ক্লাস চালু রেখেছে। প্রতিদিন শিক্ষকরা অনলাইন ক্লাসের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের শিক্ষাদান কার্যক্রম চালিয়ে আসছেন। এতে প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকলেও শিক্ষার্থীরা অনলাইন ক্লাসের মাধ্যমে তাদের শিক্ষা কার্যক্রম ও পড়াশোনা চালিয়ে যেতে পারছেন। দীর্ঘ সময় পড়াশোনায় ভাটা পড়লেও অনলাইন ক্লাসের মাধ্যমে তা পুষিয়ে নিতে পারছেন।

জেলার সবচেয়ে বেশি অনলাইন ক্লাস করছেন ইয়াছিন উচ্চ বিদ্যালয়, যেখানে প্রতিদিন প্রায় ১০ থেকে ১৩টি অনলাইন ক্লাস নিচ্ছেন শিক্ষকরা। সদর উপজেলার ১৬টি এবং বাকি ৪টি উপজেলার ৪টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে তাদের অনলাইন ক্লাস চলছে।

ইয়াছিন উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ইকবাল হোসেন জানান, কোভিডকালীন সময় স্কুল বন্ধ। এ সময় থাকায় শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ায় যাতে ব্যাঘাত না ঘটে, সেদিকে লক্ষ্য রেখে প্রতিদিন প্রায় ১০ থেকে ১৩টি অনলাইন ক্লাস নেয়া হচ্ছে। এই বন্ধের সময় তারা এ পর্যন্ত প্রায় ৫শ'র কাছাকাছি ক্লাস নিয়েছেন। তাদের এই ক্লাসগুলো স্কুল বন্ধের সময় চলমান থাকবে।

জেলা সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অমরেশ চন্দ্র বিশ্বাস বলেন, কোভিডকালীন সময়ে স্কুল বন্ধ থাকায় শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ায় ব্যাঘাত ঘটছে। শিক্ষার্থীদের পড়াশোনার কথা চিন্তা করে অনলাই ক্লাসের ওপর গুরুত্ব দেয়া হয়। তাদের স্কুলে প্রতিদিন ৫ থেকে ৬টি ক্লাস নেয়া হচ্ছে। তবে শিক্ষক সঙ্কট থাকায় তারা বেশি ক্লাস নিতে পারছেন না।

সদর উপজেলা শিক্ষা অফিসার মো. ইকবাল হোসেন বলেন, জেলার ২০ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অনলাইন ক্লাস নেয়া করা হচ্ছে। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি সদর উপজেলার ১৬টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অনলাইন ক্লাস কার্যক্রম চালু রয়েছে। যে কারণে সদর উপজেলার ১৬টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ অন্যান উপজেলার ৪টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও শিক্ষকদের পরিশ্রমে রাজবাড়ী জেলা অনলাইন ক্লাসের দিক দিয়ে প্রথম স্থান অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে।

তবে তিনি বেশি জোর দিচ্ছেন অনলাইন ক্লাসগুলো কিভাবে আরো মানোন্নয়ন করা যায় সেদিকে। সঠিকভাবে সঠিক পদ্ধতিতে ক্লাস গ্রহণের মাধ্যমে পাঠদান কার্যক্রম আরো গতিশীল করার ওপর গুরুত্ব আরোপ করেন তিনি।

রাজবাড়ী জেলা শিক্ষা অফিসার সামসুন্নাহার বেগম বলেন, অনলাইন ক্লাসে রাজবাড়ী জেলা সারাদেশের মধ্যে প্রথম স্থানে রয়েছে। জেলায় আজ পর্যন্ত ক্লাসের সংখ্যা ৪ হাজার ৭শ’রও বেশি। সারাদেশের মধ্যে যারা দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে, তাদের থেকেও ১ হাজার ৩শ' ক্লাস বেশি করানো হয় রাজবাড়ীর শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে।

জেলা শিক্ষা অফিসার আরও বলেন, অনলাইন ক্লাস গ্রহণে জেলা প্রশাসক ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) এই দুজনের অবদান সবচেয়ে বেশি। তাদের অবদানেই রাজবাড়ী জেলা অনলাইন ক্লাসে দেশের সেরা হয়েছে। সারাদেশের অনলাইন ক্লাসগুলো এটুআই কাউন্ট করে এবং যারা অনলাইন ক্লাস নিচ্ছেন রাজবাড়ীতে এই শিক্ষকদের মধ্যে শিক্ষক বাতায়নের অন্তর্ভুক্ত বা সদস্য শিক্ষকই বেশি। শিক্ষক বাতায়নের শিক্ষকদের দিয়ে যে ক্লাসগুলো নেয়া হচ্ছে, শুধু তাদের ক্লাসগুলোর হিসাবই আসবে এটুআই এর অন্তর্ভুক্ত অনলাইন ক্লাস নেয়ার ক্ষেত্রে। তাই একদিকে অনলাইন ক্লাসের সংখ্যা বেশি, অন্যদিকে শিক্ষক বাতায়নের শিক্ষকদের মাধ্যমে ক্লাস নেয়ার হার বেশি বলে এটুআই রাজবাড়ী জেলাকে অনলাইন ক্লাসের মধ্যে সেরা বলে বিবেচিত করেছে।

তিনি বলেন, শুরু থেকেই জেলা প্রশাসকের নির্দেশে রাজবাড়ীর অনলাইন ক্লাস চলমান থাকায় দেশসেরা এই অবস্থানে পৌঁছেছে। তবে শিক্ষকদের অক্লান্ত পরিশ্রম, স্বার্থকতা এবং স্বোচ্ছায় এই ক্লাসগুলো করানোর কারণে আজ রাজবাড়ী জেলা অনলাইন ক্লাসে সেরা হয়েছে।

রাজবাড়ীর অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মুশফিকুর রহমান বলেন, অনলাইন ক্লাসের দিক দিয়ে রাজাবাড়ীতে বেশি ক্লাস গ্রহণ করা হয়েছে। আসলে সফল একটি টিমওয়ার্কের মাধ্যমে কঠোর পরিশ্রমে এই সফলতা অর্জন করা সম্ভব হয়েছে। সার্বক্ষাণিক টিমওয়ার্কের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের অনলাইন ক্লাসের ওপর গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। ভবিষ্যতে এটা আরো কিভাবে ইফেক্টিভ করা যায়, সে প্রচেষ্টাও চালিয়ে যাওয়া হচ্ছে।

এটুআই ও শিক্ষক বাতায়নের রিপোর্ট অনুসারে রাজবাড়ী জেলা সবচেয়ে বেশি ক্লাস গ্রহণ করায় দেশের সেরা হয়েছে বলে জানান তিনি।

বাংলাদেশ জার্নাল/এসকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত