ঢাকা, শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭ আপডেট : ৪ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১৯ অক্টোবর ২০২০, ১৫:৪৪

প্রিন্ট

বিএনপিকে ফ্রেশ হতে হবে: নৌ প্রতিমন্ত্রী

বিএনপিকে ফ্রেশ হতে হবে: নৌ প্রতিমন্ত্রী

দিনাজপুর প্রতিনিধি

ফ্রেশ নির্বাচনের জন্য বিএনপিকে যুদ্ধাপরাধী, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ ছেড়ে রাজনৈতিকভাবে ফ্রেশ হয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন নৌ পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলামকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, আপনারা ফ্রেস চিন্তা আর ফ্রেস মন নিয়ে আগামী নির্বাচনের জন্য অপেক্ষা করেন। নিজের আত্মঘাতী সিন্তান্ধের জন্য জনগণের নিকট ক্ষমা চেয়ে ফ্রেসভাবে রাজনীতি করেন।

সোমবার দিনাজপুরের বিরল উপজেলা অডিটোরিয়ামে দুর্গাপূজা উপলক্ষে সকল পূজামণ্ডপে সরকারি অর্থ বিতরণকালে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ডা. জাফরউল্লাহ বলছেন মধ্যবর্তী নির্বাচন দিতে হবে। মধ্যবর্তী নির্বাচন কখন হয়, যখন একটি সরকার দেশ চালাতে পারে না, তখন হয় মধ্যবর্তী নির্বাচন। বাংলাদেশের অর্থনীতি ঠিক আছে, বাংলাদেশের স্বাস্থ্য ব্যবস্থা ঠিক আছে। দেশ এগিয়ে যাচ্ছে, এখন বলছে মধ্যবর্তী নির্বাচন। মির্জা ফখরুল আবার বলেন যে, না মধ্যবর্তী নির্বাচন না, ফ্রেশ নির্বাচন দিতে হবে।

মির্জা ফখরুলের উদ্দেশ্যে নৌ প্রতিমন্ত্রী বলেন, রাজনৈতিকভাবে আগে আপনারা ফ্রেশ হয়ে আসেন। তারপর আপানারা ফ্রেশ নির্বাচনের কথা বলেন। আপনারা রাজনৈতিকভাবে ফ্রেশ না। কারণ, যুদ্ধাপরাধী, খুনি ও মাদক সম্রাটদের সঙ্গে আপনাদের এখনো আতাত আছে। আপনারা সেই রাজনীতি এখনো চালিয়ে যাচ্ছেন। রাজনৈতিকভাবে ফ্রেশ হন, পবিত্র হয়ে আসেন, তারপর এ ধরনের কথাবার্তা বইলেন। এ অপবিত্র মুখে জনগণকে আর এসব কথা বলবেন না। জনগণ ভালো আছে। জনগণকে আতঙ্কিত করবেন না।

রুহুল কবির রিজভীকে বিএনপির আবাসিক প্রতিনিধি আখ্যা দিয়ে খালিদ মাহমুদ বলেন, কথা বলতে বলতে অসুস্থ হয়ে এখন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। তারপরও বলে যে, কথা বলতে দেয় না। মির্জা ফখরুল প্রতিদিন কথা বলে, টকশোতে বিএনপি নেতারা প্রতিদিন কথা বলে। পার্লামেন্টে প্রতিনিয়ত কথা বলে। মিথ্যা কথা এত সুন্দরভাবে বলা যায়, এটা বিএনপির নেতাদের কথা না শুনলে বোঝা যায় না। এরা তারপরও বলে কথা বলতে দেয় না। তারা হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছে, আবার বলে বাংলাদেশে চিকিৎসা নাই।

খালেদা জিয়ার সমালোচনা করে খালিদ মাহমুদ বলেন, কোন কিছুতে নাকি আপস করেন না। এখন আপনি যে জেল থেকে বের হয়ে আসলেন নির্বাহী আদেশে, আদালত আপনাকে জামিন দেয়নাই? নির্বাহী প্রধান শেখ হাসিনার নির্দেশে আপনি বের হয়েছেন। এরপরও আপনাকে আপসহীন বলতে হবে! তারপরও ওরা বলবে যে, আমাদের নেত্রী আপসহীন। বিএনপি রাজনীতি বোঝে না। ওরা বোঝে সন্ত্রাস, লুটপাট, নৈরাজ্য, জঙ্গিবাদ। এই ধরনের বিষয়ের সঙ্গে তারা সম্পৃক্ত। তারা রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত নয়।

করোনাকালে র্প্রধানমন্ত্রীর দূরদর্শী নেতৃত্বের কথা তুলে ধরে খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, আমি বলেছিলাম, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী যখন শেখ হাসিনা, তখন আমাদের করোনা নিয়ে দুশ্চিন্তার কোন কারণ নাই। তখন বাংলাদেশের অনেক সমালোচক সেই কথাটার সমালোচনা করেছিল। বিভিন্ন গণমাধ্যমে এটা ট্রল হয়েছিল। সেই কথাটা আমি এখনো বিশ্বাস করি। শেখ হাসিনা যখন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী, বাংলাদেশের মানুষ অনেক নিরাপদ।

খালিদ বলেন, করোনা মহামারীর মধ্যেও ভারত যখন বলে আমরা বাংলাদেশের পাশে থাকতে চাই, আমরা যখন দেখি আমেরিকার উপপররাষ্ট্রমন্ত্রী এসে বলে আমরা বাংলাদেশকে পাশে পেতে চাই। আমরা যখন দেখি চায়নার রাষ্ট্রদূত পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করে বলে আমরা বাংলাদেশের পাশে থাকতে চাই- এসব দেশ আমাদের আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিকভাবে পরাশক্তির ভূমিকায় আছে, তখন আমরা গর্ববোধ করি বাংলাদেশের জন্য। শেখ হাসিনার দূরদর্শী নেতৃত্বের কারণে এসব পরাশক্তিগুলো বাংলাদেশকে মর্যাদার চোখে দেখে। এরকম একটি দেশের নাগরিক হিসেবে আমরা গর্ববোধ করি।

তিনি বলেন, এই করোনা মহামারীর মধ্যে যখন সমগ্র পৃথিবীর অর্থনীতি অস্থির যেখানে হয়ে গেছে, সেখানে বাংলাদেশের অর্থনীতি যতটা বিপর্যস্ত হয়েছিল ঠিক একইভাবে সামনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশের অর্থনীতি ভেঙে পড়েনি। স্বাস্থ্য ব্যবস্থা ভেঙে পড়েনি। গত বছর মহামারী ছিল না, আমরা তখন প্রতি মণ্ডপে ১২ হাজার করে টাকা দিয়েছিলাম। এবার দীর্ঘ লকডাউনের পর প্রত্যেকটি পূজামণ্ডপে ১৮ হাজার করে টাকা দিয়েছি।

পরে প্রতিমন্ত্রী বিরল উপজেলা পরিষদ কমপ্লেক্স থেকেই উপজেলার ৯৪টি পূজামণ্ডপে নগদ অর্থ, নতুন কাপড় ও করোনাকালে প্রয়োজনীয় সামগ্রী বিতরণ করেন।

ভারপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাবের মোহাম্মদ শোয়াইবের সভাপতিত্বে আরো উপস্থিত ছিলেন বিরল উপজেলা চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান বাবু, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সবুজার সিদ্দিক সাগর, সাধারণ সম্পাদক রমাকান্ত রায় প্রমুখ।

বাংলাদেশ জার্নাল/এসকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত