ঢাকা, শুক্রবার, ০৫ মার্চ ২০২১, ২০ ফাল্গুন ১৪২৭ আপডেট : ৪ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ০৩:৫৬

প্রিন্ট

বৃদ্ধাশ্রমে ফকির আলমগীরের ৭১তম জন্মবার্ষিকী

বৃদ্ধাশ্রমে ফকির আলমগীরের ৭১তম জন্মবার্ষিকী
ছবি- সংগৃহীত

গাজীপুর প্রতিনিধি

গণসঙ্গীত শিল্পী ও বীর মুক্তিযোদ্ধা ফকির আলমগীরের ৭১তম জন্মবাষিকী উপলক্ষে এবার গাজীপুরের হোতাপাড়ার বিশিয়া কুড়িবাড়ি এলাকার বৃদ্ধাশ্রম চত্বরে এক ব্যতিক্রমী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।

সোমববার বিকেলে গাজীপুর বয়স্ক পুনর্বাসন কেন্দ্রে কেককেটে ও গান গেয়ে আনন্দ-উল্লাসের মধ্যে ফকির আলমগীরের এ জন্মদিন পালন করা হয়। এতে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী মো. এনামুর রহমান, একুশ পদকপ্রাপ্ত বিশিষ্ট অভিনেত্রী সালমা বেগম সজাতা (সুজাতা আজিম), কন্ঠ শিল্পী মো. খুরশীদ আলম, পল্লীমা সংসদের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি হাফিজুর রহমান ময়না, বয়স্ক পুনর্বাসন কেন্দ্রের চেয়্যারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক খতিব আব্দুল জাহিদ মুকুল, তার স্ত্রী মাসুমা খাতুন নিপা, গাজীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. রাসেল শেখ, গাজীপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল জাকীসহ বৃদ্ধাশ্রমের নিবাসীরা অংশ নেন।

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী মোঃ এনামুর রহমান এমপি বলেন, ফকির আলমগীর দেশকে ভালবেসে গান গেয়েছেন, এখনও গাইছেন। মুক্তিযুদ্ধের সময় তার গাওয়া গান স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র থেকে প্রচার হতো। তার গাওয়া গণ সঙ্গীত, রণসঙ্গীত দেশের মানুষকে, মুক্তিযোদ্ধাদের উদ্বেলিত করতো, সাহস ও শক্তি যোগাত। আমি তার শতায়ু কামনা করি।

প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, এ প্রতিষ্ঠানে আর্থিক সহায়তার কথা বললে কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা মুকুল তা গ্রহণে অসম্মতি দেন। তবে তার অনুরোধে এ প্রতিষ্ঠানটি ভালভাবে চালানোর জন্য পরামর্শ চেয়েছেন তিনি। অতিথিরা তার এ গুনী শিল্পীর জন্ম দিনে বয়স্কপুনর্বাসন কেন্দ্রে ফলজ বৃক্ষ রোপন করেন।

ফকির আলমগীর বলেন, এখন থেকে তিনি অসহায় মানুষ যেমন পথশিশু, বৃদ্ধাশ্রমের নিবাসীদের মতো লোকদের সঙ্গে প্রতিবছর তার জন্মদিনের আনন্দ ভাগাভাগি করবেন। ওই কেন্দ্রে তিনি বাশের বাঁশি বাজিয়ে, কেক কেটে এবং বয়স্ক পুনর্বাসনের নিবাসীদের মাঝে বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা তুলে দিয়ে তাদের দেশ প্রেম সমুন্নত রাখতে উপস্থিত সকলকে আহ্বান জানান।

ফকির আলমগীর তার ৭১তম জন্ম বার্ষিকীকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শতবার্কিীকে উতসর্গ করে বলেন, একজন মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে আমি এ ইচ্ছা পোষণ করেছি।

অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে সঙ্গীত পরিবেশন করে বয়স্ক পুনর্বাসন কেন্দ্রের বাসিন্দা ও শুভাকাঙ্খীরা আনন্দে মুখরিত করেন শিল্পী ফকির আলমগীর, মোঃ খুরশিদ আলম,বিশিষ্ট চলচ্চিত্র অভিনেত্রী সুজাতা ও বাংলাদেশ গণসংগীত সমন্বয় পরিষদের শিল্পীদের পরিবেশনা।

বাংলাদেশ জার্নাল/আর

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত