ঢাকা, সোমবার, ২৬ জুলাই ২০২১, ১১ শ্রাবণ ১৪২৮ আপডেট : ১১ মিনিট আগে

প্রকাশ : ১৬ জুন ২০২১, ২১:০০

প্রিন্ট

ডিবি পরিচয়ে ব্যবসায়ীকে অপহরণ, ১১ জনের বিরুদ্ধে মামলা

ডিবি পরিচয়ে ব্যবসায়ীকে অপহরণ, ১১ জনের বিরুদ্ধে মামলা
গৌরনদী মডেল থানা ফটক

বরিশাল প্রতিনিধি

বরিশালের গৌরনদীতে ডিবি পুলিশ পরিচয়ে ওষুধ ব্যবসায়ী শাহাদাত হোসেনকে অপহরণ করে বেদম নির্যাতন শেষে ফেরত দেয়ার ঘটনায় ১১ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

বুধবার দুপুরে উপজেলার বাটাজোর ইউনিয়নের সিংগা গ্রামের শাহাদাতের স্ত্রী শিক্ষিকা ফাতেমা ইয়াসমিন বাদী হয়ে এ মামলা দায়ের করেন। বাদী ঢাকার আদাবর শেখেরটেক বিদ্যাময়ী আইডিয়াল ইন্সটিটিউটের সহকারী শিক্ষিকা।

মামলায় নামধারী আসামি হলেন- শহীদ প্যাদা, লোকমান হোসেন বেপারী ও নাসির হাওলাদার। এছাড়া আরো ৮ জনকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়।

বাদী জানান, প্রতিদিনের মতো স্বামী সন্তান নিয়ে সোমবার রাতে নিজ বসতঘরে ঘুমিয়েছিলেন। রাত দেড়টার দিকে ঘরের বাহির থেকে ডিবি পুলিশ পরিচয় দিয়ে দরজা খুলতে বলে। দরজা খুলে দেয়ার সঙ্গে সঙ্গে ৫ ব্যক্তি ভেতর ঢুকে শাহাদাতকে মারধর করতে থাকে। এক পর্যায়ে স্বামীর হাতে হ্যান্ডকাপ পরিয়ে ঘরের সামনে থাকা মাইক্রোবাসে তুলে নিয়ে যায়।

‘রাত সোয়া ২টার দিকে আমি চন্দ্রহার বাজারে গিয়ে দোকানদারদের জাগিয়ে ঘটনাটি বলি। এরই মধ্যে রাত পৌনে তিনটার দিকে একটি নাম্বর থেকে আমার স্বামীর নাম্বরে কল করে ৫ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে অপহরণকারীরা। রাতের মধ্যে টাকা নিয়ে চন্দ্রহার বাজারের সেতুর কাছে থাকতে বলে। টাকা না দিলে হত্যার হুমকি দেয়।’

বাদী আরও বলেন, ওই রাতে এত টাকা কোথায় পাবো, কাকুতি মিনতি করলে মোবাইলের কলটি কেটে দেয়। আমি ও আমার দেবর নাসির উদ্দিন ঘরে থাকা নগদ ২৫ হাজার টাকা এবং আমার ব্যবহৃত গলার স্বর্ণের চেইন ও কানের দুল (যার মূল্য ১ লাখ ৬০ হাজার) নিয়ে তাদের নির্দেশ মোতাবেক চন্দ্রহার বাজারের সেতুর কাছে অপেক্ষা করতে থাকি। কিছুক্ষণের মধ্যে ডিবি পুলিশ পরিচয় দেয়া ব্যক্তিরা সেখানে এসে টাকা ও স্বর্ণালঙ্কার নিয়ে যায়। মঙ্গলবার ভোর সাড়ে ৫টার দিকে মাইক্রোবাসযোগে অপহরণকারীরা পার্শ্ববর্তী চন্দ্রহার বাজারের কাছে রাস্তায় শাহাদাতকে ফেরত দেয়। গুরুতর আহত অবস্থায় আমরা তাকে গৌরনদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করি।

স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন শাহাদাত হোসেন বলেন, ওরা আমাকে গাড়িতে তুলেই চোখ-মুখ বেঁধে ফেলে এবং হাতুড়ি দিয়ে পেটাতে থাকে। গাড়ির মধ্যে হাতুড়ি দিয়ে আমাকে ৩/৪ ঘণ্টা নির্যাতন চালায়।

গৌরনদী মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. তৌহিদুজ্জামান জানান, ডিবি পুলিশ পরিচয়ে অপহরণ করে মুক্তিপণ দাবির বিষয়ে সত্যতা পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় দায়েরকৃত মামলায় এজাহারভুক্ত আসামিদের গ্রেপ্তারের জোর চেষ্টা চলছে। আসামিরা মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত বলে জানান তিনি।

প্রসঙ্গত, শাহাদাত হোসেন ঢাকায় ফার্মেসি চালাতেন এবং তার স্ত্রী শিক্ষকতা করতেন। কিন্তু করোনার কারণে স্কুল বন্ধ হয়ে যায় এবং তার ব্যবসা ভালো চলছিল না। এ কারণে ঢাকায় বসবাস করা দুরহ হয়ে পড়ায় ৫ মাস আগে পরিবার-পরিজনসহ গ্রামের বাড়িতে চলে আসেন তারা। কোনো আয়ের পথ না পেয়ে দিনমজুরি খেটে কোনোরকম জীবন যাপন করছেন শাহাদাত।

বাংলাদেশ জার্নাল/এসকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত