ঢাকা, সোমবার, ২৬ জুলাই ২০২১, ১১ শ্রাবণ ১৪২৮ আপডেট : ১৩ মিনিট আগে

প্রকাশ : ২১ জুন ২০২১, ২১:২৮

প্রিন্ট

নেত্রকোনায় ভুল চিকিৎসায় দিনমজুরের মৃত্যুর অভিযোগ

নেত্রকোনায় ভুল চিকিৎসায় দিনমজুরের মৃত্যুর অভিযোগ

নেত্রকোনা প্রতিনিধি

নেত্রকোনার খালিয়াজুরীতে ভুল চিকিৎসায় মো. মহসিন মিয়া (৪০) নামে এক দিনমজুরের মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। রোববার দিবাগত রাত ১২টার দিকে মারা যান তিনি।

পুলিশ ওই দিনমজুরের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্যে মর্গে পাঠিয়েছে।

মহসিন উপজেলার পাঁচহাট গ্রামের মো. মোক্তার আলী ছেলে। আর ওই পল্লী চিকিৎসক একই গ্রামের মো. তোফাজ্জল হোসেন। তিনি গ্রামের বাজারে তারেক মেডিকেল হল নামে একটি ওষুধের দোকান চালান।

মহসিন মিয়ার স্ত্রী আমেনা আক্তার অভিযোগ করে বলেন, মহসিন অন্যের জমিতে কাজ করে ৬ সন্তানসহ আটজনের সংসার চালাতেন। কিছুদিন ধরে তার শরীর দুর্বল লাগছিল। এ কারণে রোববার সন্ধ্যায় চিকিৎসার জন্যে পল্লী চিকিৎসক তোফাজ্জল হোসেনের কাছে গেলে তিনি তাৎক্ষণিক কিছু ভিটামিন ওষুধ দেন। পরে রাত ৮ টার দিকে বাড়িতে গিয়ে একটি স্যালাইন ও দুটি ইনজেকশন দেন মহসিনকে।

তিনি জানান, রাতে স্যালাইন শেষ হওয়ার পর মহসিনের শারিরীক অবস্থায় অবনতি হতে থাকে। এসময় ছটফট করতে থাকেন। একপর্যায়ে যৌনাঙ্গ ও পায়ুপথ দিয়ে রক্ত বের হতে শুরু করে। এরপর রাত ১২টার দিকে তিনি মারা যান। আমেনা আক্তার বলেন, ওই ডাক্তার ভুল চিকিৎসা করেই আমার স্বামীকে মেরে ফেলেছে। আমি এই ডাক্তারের বিচার চাই।

এদিকে ভুল চিকিৎসা দেয়ার অভিযোগ অস্বীকার করে তোফাজ্জল হোসেন মুঠোফোনে বলেন, আমার চিকিৎসা ঠিকই আছে। কোন ভুল চিকিৎসা হয়নি। রাতে তাকে ডেক্সটোজ ১০০০ এমএল স্যালাইন দেই। মিনিটে ৬০ ফোটা করে। তাছাড়া বি-প্লেক্স-১০ এমএল ও ক্যালসিয়াম-৫ এমএল ইনজেকশন দেই। পরে কেন সে মারা গেছে তা আমি জানি না।

খালিয়াজুরীর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. আতাউর গনি ওসমানী বলেন, মহসিনকে যে ইনজেকশন এবং স্যালাইন পুশ করার কথা বলা হচ্ছে তাতে তার মৃত্যু হওয়ার কথা নয়। তবে মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ বা দ্রুত স্যালাইন পুশ করার কারণে তার মৃত্যু হতে পারে। কি কারণে মারা গেছেন তদন্ত করে বিষয়টি বলা যাবে।

খালিয়াজুরী থানার ওসি মো. মজিবুর রহমান বলেন, পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। মহসিন মিয়া মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্যে নেত্রকোণা আধুনিক সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানোর হয়েছে। তার পরিবারের পক্ষ থেকে লিখিত অভিযোগ দিলে মামলা নেয়া হবে। এ ব্যাপারে আইনগত সব পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে বলেও জানান ওসি।

বাংলাদেশ জার্নাল/আর

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত