ঢাকা, শুক্রবার, ৩০ জুলাই ২০২১, ১৫ শ্রাবণ ১৪২৮ আপডেট : ২৭ মিনিট আগে

গণমানুষের আবেগ-অনুভূতির দল আওয়ামী লীগ: আনোয়ার খান এমপি

  রামগঞ্জ (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধি

প্রকাশ : ২৩ জুন ২০২১, ১৯:৪০  
আপডেট :
 ২৩ জুন ২০২১, ২০:৪৭

গণমানুষের আবেগ-অনুভূতির দল আওয়ামী লীগ: আনোয়ার খান এমপি
বক্তব্য রাখছেন ড. আনোয়ার হোসেন খান এমপি

রামগঞ্জ (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধি

লক্ষ্মীপুর-১ (রামগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য ও রামগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ড. আনোয়ার হোসেন খান বলেছেন, গণমানুষের আবেগ-অনুভূতির দল আওয়ামী লীগ। ১৯৪৯ সালের ২৩ জুন ঢাকার কে এম দাস লেনের রোজ গার্ডেনে আওয়ামী লীগ প্রতিষ্ঠিত হয়। নতুন এই দলের নামকরণ হয় পূর্ব পাকিস্তান আওয়ামী মুসলিম লীগ। মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানীকে সভাপতি, আতাউর রহমান খান, শওকত হোসেন ও আলী আহমদ খানকে সহ-সভাপতি, শামসুল হককে সাধারণ সম্পাদক, শেখ মুজিব (তখন কারাবন্দি) ও এ কে রফিকুল হোসেনকে যুগ্ম সম্পাদক এবং ইয়ার মোহাম্মদ খানকে কোষাধ্যক্ষ করে গঠিত হয় আওয়ামী মুসলিম লীগ।

তিনি বলেন, ১৯৫৫ সালের ২১-২৩ অক্টোবরের তৃতীয় কাউন্সিল সভায় ধর্মনিরপেক্ষ দৃষ্টিভঙ্গির অধিকারী হিসেবে দলের নাম থেকে ‘মুসলিম’ শব্দটি বাদ দেয়া হয়। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সবচেয়ে পুরনো ও বৃহৎ রাজনৈতিক দলের অন্যতম। বাংলাদেশের স্বাধীনতা অর্জনে আওয়ামী লীগ মুখ্য ভূমিকা পালন করে। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই এই দল মানুষের প্রয়োজনে কাজ করে যাচ্ছে। এমনকি বলা যায়, আওয়ামী লীগের জন্মই হয়েছে এই দেশের মানুষের প্রয়োজনে।

বুধবার রামগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের অস্থায়ী কার্যলয় খান টাওয়ারে আওয়ামী লীগের ৭২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে কেক কাটা ও আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

ড. আনোয়ার হোসেন খান বলেন, সময়ের প্রয়োজনে মানুষের পাশে দাঁড়ানো এই দলটির ঐতিহ্য। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই এই দলের নেতৃত্ব দিয়েছিলেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। মুজিব থেকে বঙ্গবন্ধু, বঙ্গবন্ধু থেকে জাতির পিতা হয়েছিলেন শেখ মুজিব এই দলটিকে নেতৃত্ব দিয়ে। এই দেশের মহান স্বাধীনতা অর্জন হয়েছিল এই দলটির নেতৃত্বে।

সংসদ সদস্য আরও বলেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টে বাংলাদেশের ইতিহাসের নির্মম ও জঘন্যতম হত্যাকাণ্ডের মাধ্যমে জাতির পিতাসহ তার পরিবারের সবাইকে হত্যার মাধ্যমে এই দেশ থেকে আওয়ামী লীগ তথা জাতির পিতার অস্তিত্ব বিলীন করে দিতে চেয়েছিল। সেদিন সৌভাগ্যক্রমে বেঁচে গিয়েছিলেন জাতির পিতার দুই কন্যা শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানা। ১৯৮১ সালের ১৭ মে অনেক কাঠখড় পুড়িয়ে দেশে ফিরে আসেন জাতির জনকের পবিত্র আমানত তার কন্যা দেশরত্ন শেখ হাসিনা। দেশে ফিরে আসার পূর্বে ১৯৮১ সালে দলের কাউন্সিল অধিবেশনে সর্বসম্মতিক্রমে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি নির্বাচিত হন। তারপর থেকে আজ অবধি দলটির নেতৃত্ব দিয়ে আসছেন শেখ হাসিনা।

‘অন্ন চাই, পোশাক চাই, গণতন্ত্র চাই- যার মূল কথা ছিল মানুষের ভাত ও ভোটের অধিকার চাই। সেই চরম দারিদ্র্য কবলিত দেশকে আজ তিনি রূপান্তর করেছেন উন্নয়নশীল অয়ের দেশে৷ এ দেশে প্রতিষ্ঠা করেছেন মানুষের ভাত ও ভোটের অধিকার। একটানা তিনবারসহ মোট চারবার এই দেশের নেতৃত্ব দিয়ে যাচ্ছেন দেশরত্ন শেখ হাসিনা। আওয়ামী লীগকে ফিরিয়ে এনেছেন তার মূল ঐতিহ্যে। আজ বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ পরিণত হয়েছে এই দেশের গণমানুষের দলে।’

ড. আনোয়ার হোসেন খান আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত হচ্ছে। তার হাত আরও শক্তিশালী করতে আওয়ামী লীগের প্রতিটি নেতাকর্মীকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। সরকারের বিরুদ্ধে স্বাধীনতাবিরোধী চক্র নানা ষড়যন্ত্রে লিপ্ত, তা প্রতিহত করতে সবাইকে সজাগ থাকতে হবে।

তিনি বলেন, শেখ হাসিনা মানুষের ভাত ও ভোটের অধিকার প্রতিষ্ঠা করেছেন। আওয়ামী লীগ উপমহাদেশের ঐতিহ্যবাহী সংগঠন। এই দলের একজন কাণ্ডারি ও ত্রাতা হিসেবে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে স্বাধীন বাংলাদেশ সেদিন বিশ্বে মাথা তুলে দাঁড়াতে সক্ষম হয়েছিল।

রামগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বেলাল আহম্মেদের সঞ্চালনায় এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আ.ক.ম রুহুল আমিন, রামগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেন দেওয়ান বাচ্ছু ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সুরাইয়া আক্তার শিউলী।

এ সময় আরো বক্তব্য রাখেন সহস্রাধিক নেতাকর্মী নিয়ে সম্মেলনে যোগ দেয়া ভাদুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান জাহিদ হোসেন ভূঁইয়া, করপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. মজিবুল হক মজিব প্রমুখ।

আরও উপস্থিত ছিলেন, দরবেশপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান, লামচর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মাহেনারা পান্না, ইছাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাহানাজ পারবিন, নৌয়াগাও ইনিউন পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ হোসেন রানা, ভোলাকোট ইউনিয়ন পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান কামাল হোসেনসহ পৌরসভার কাউন্সিলরবৃন্দ, বিভিন্ন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকসহ অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা।

এর আগে আওয়ামী লীগের ৭২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে রামগঞ্জ পৌর এলাকায় আনন্দ শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়। এর নেতৃত্ব দেন ড. আনোয়ার হোসেন খান। পরে আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কেক কাটেন আওয়ামী লীগ নেতারা। এ সময় লক্ষ্মীপুর-২ আসনের নবনির্বাচিত সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট নুরউদ্দিন চৌধুরী নয়নকে স্বাগত জানান আনোয়ার খান এমপি।

বাংলাদেশ জার্নাল/এসকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত