ঢাকা, সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২ আশ্বিন ১৪২৮ আপডেট : ৪ মিনিট আগে

পোশাক ও ভাতা পাবেন সরকারি চাকরিজীবীরা

  জার্নাল ডেস্ক

প্রকাশ : ১০ জুলাই ২০২১, ১৯:৫৯

পোশাক ও ভাতা পাবেন সরকারি চাকরিজীবীরা
ফাইল ফটো
জার্নাল ডেস্ক

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) শুল্ক ও ভ্যাট বিভাগের সেপাই ও গাড়িচালক থেকে শুরু করে সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা, সাব-ইন্সপেক্টর ও কমিশনার পর্যন্ত সবাইকে ইউনিফর্ম (পোশাক) ও ধোলাই ভাতা দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

তারা প্রত্যেকে বছরে পাঁচটি শার্ট, তিনটি প্যান্ট পাবেন। তিন বছরে পাবেন দুটি ব্লেজার ও একটি পুলওভার বা জ্যাকেট। এছাড়া তাদের তিন জোড়া জুতা, চার জোড়া মোজা, একটি করে বাঁশি, রেইন কোটসহ আনুষঙ্গিক সবকিছু দেয়া হবে।

আর এতগুলো পোশাক ধোলাই করতে তাদের প্রতি মাসে জনপ্রতি দেয়া হবে মাত্র ১০০ টাকা করে! এভাবে বছরে মিলবে মোট ১ হাজার ২০০ টাকা, যা বর্তমান বাজারে পোশাক ধোলাইয়ের জন্য খুবই নগণ্য। পাড়া-মহল্লার লন্ড্রিতে একটি শার্ট বা প্যান্ট ধোলাইয়ে ৪০ টাকা লাগে। এমন পরিস্থিতিতে পোশাক ধোলাইয়ের টাকা নিজের পকেট থেকেই গুনতে হবে তাদের। আর এতে করে বিপাকে পড়বেন সেপাই-গাড়িচালক ও কর্মচারীরা।

বাংলাদেশ কাস্টমস, এক্সাইজ ও ভ্যাট এক্সিকিউটিভ অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বাকাএভ) সদস্য সচিব মজিবুর রহমান সাংবাদিকদের বলেন, ধোলাই ভাতা প্রয়োজনের তুলনায় কম হয়েছে। এটি বাড়ানো হলে ভালো। তবে শুল্ক ও ভ্যাট কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য দ্রুত ইউনিফর্ম চালু করা হোক। পৃথিবীর প্রায় সব দেশেই কাস্টমস কর্মকর্তারা ইউনিফর্ম পরেন।

অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগের কর্মকর্তারা অবশ্য দাবি করেন, পুলিশসহ অন্যান্য বাহিনীর পোশাক ধোলাই ভাতার সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখেই কাস্টমস ও ভ্যাট বিভাগের ভাতা নির্ধারণ করা হয়েছে।

জানা গেছে, কাস্টমস ও ভ্যাট কর্মকর্তাদের প্যান্ট হবে গাঢ় জলপাই রঙের। আর শার্ট হবে হালকা জলপাই রঙের। এছাড়া টুপি, টাই, রেইন কোট, মোজা, রিবন, বাঁশি, ব্যাজ, পদকসহ যাবতীয় সবকিছুই থাকবে।

কাস্টমস ও ভ্যাট বিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের পোশাকসহ ইউনিফর্মের অন্য আনুষঙ্গিক সামগ্রী বানানোর জন্য অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগ ১৬ কোটি ১৪ লাখ ৮৫ হাজার ৭৬০ টাকা বরাদ্দ দিয়েছে। পোশাকের মান, রং, ডিজাইন ইত্যাদি অভিন্ন রাখার জন্য কেন্দ্রীয়ভাবে পোশাক সরবরাহ করা হবে। কোনো কর্মচারী-কর্মকর্তাকে নগদ অর্থ দেয়া হবে না।

সেপাই থেকে কমিশনার পদমর্যাদার কর্মকর্তাদের পোশাক তৈরি করতে জনপ্রতি ১১ হাজার ৫০০ থেকে ১৬ হাজার ২০০ টাকা ব্যয় হবে। এছাড়া আনুষ্ঠানিক পোশাকে জনপ্রতি খরচ হবে ৪ হাজার ৪০০ টাকা থেকে ৪ হাজার ৯০০ টাকা। এছাড়া গাড়িচালকদের পোশাকে খরচ হবে ৯ হাজার ৩২০ টাকা।

বর্তমানে সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা পর্যন্ত পদবির কর্মকর্তারা সাদা পোশাক পরেন। কয়েক বছর আগে কমিশনার পর্যন্ত পদবির কর্মকর্তাদের পোশাক পরিধানের উদ্যোগ নেয়া হয়। ২০১৯ সালে এ নিয়ে বিধিমালা জারি করা হয়।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) সূত্রে জানা গেছে, চলতি ২০২১–২২ অর্থবছর থেকে জলপাই রঙের নতুন পোশাক চালু হতে যাচ্ছে। সূত্র-প্রথম আলো

বাংলাদেশ জার্নাল/ওয়াইএ

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত