ঢাকা, শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৩ আশ্বিন ১৪২৮ আপডেট : ২ ঘন্টা আগে

সরকারি খালে বাঁধ: খবর প্রকাশের পর ইউএনওর ‘অ্যাকশন’

  পটুয়াখালী প্রতিনিধি

প্রকাশ : ২৬ জুলাই ২০২১, ১৮:৪৯

সরকারি খালে বাঁধ: খবর প্রকাশের পর ইউএনওর ‘অ্যাকশন’
ছবি- প্রতিনিধি
পটুয়াখালী প্রতিনিধি

পটুয়াখালীর কলাপাড়ার ধানখালী ইউনিয়নের পাঁচজুনিয়া সরকারি খালে অবৈধ বাঁধ দিয়ে মাছ চাষের খবর গণমাধ্যমে প্রকাশের পর কলাপাড়ার ইউএনও আবু হাসনাত মোহম্মদ শহিদুল হক জনস্বার্থে অ্যাকশন শুরু করেছেন।

সোমবার বৃষ্টি উপেক্ষা করে তিনি সাড়ে তিন কিলোমিটার দীর্ঘ খালে প্রভাবশালীদের দেয়া ১৬টি অবৈধ বাঁধের ১০টি বাঁধ কেটে দিয়েছেন। এ সময় তার সাথে ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান এসএম রাকিবুল আহসান, ইউপি চেয়ারম্যান রিয়াজ উদ্দীন তালুকদার সহ স্থানীয়রা।

বৈরী আবহাওয়ার কারণে বাকি ৬টি অবৈধ বাঁধ মঙ্গলবার কেটে দেয়া হবে বলে জানিয়েছে উপজেলা প্রশাসন সূত্র।

স্থানীয় কৃষকরা জানান, পাঁচজুনিয়া খালটি দীর্ঘদিন ধরে চাষাবাদের সুবিধার্থে প্রয়োজনীয় পানি সরবরাহ ও নিষ্কাশনের জন্য ব্যবহার হয়ে আসছে। কিন্তু স্থানীয় কিছু প্রভাবশালী ব্যক্তি খালটির বিভিন্ন পয়েন্টে অবৈধ বাঁধ দিয়ে মাছ চাষ শুরু করেন। এতে প্রায় দুই হাজার একর জমি বছরের অর্ধেক সময় ধরে পানিতে ডুবে থাকায় চাষাবাদ বন্ধ হয়ে যায়। সোমবার ইউএনও, উপজেলা চেয়ারম্যান গিয়ে বাঁধ কেটে দেয়ায় পানি নামতে শুরু করেছে। বাকি বাঁধগুলো কেটে দিলে এ বছর চাষাবাদ করা যেতে পারে।

ধানখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. রিয়াজ উদ্দিন তালুকদার বলেন, জনগণের স্বার্থে খালের অবৈধ বাঁধ কেটে দেয়া হয়েছে। গ্রামের কৃষকরা এখন চাষাবাদের জন্য জমি প্রস্তুত করতে পারবেন।

কলাপাড়ার ইউএনও আবু হাসনাত মোহম্মদ শহিদুল হক বলেন, নদী, সরকারি খাল, জলাশয় ও স্লুইজগেট দখলে তৈরি যেকোন অবৈধ বাঁধ জনস্বার্থে পর্যায়ক্রমে অপসারণ করা হবে। এগুলো অপসারণে ইতোমধ্যে বেশকিছু কেস নথি তৈরি করে জেলায় পাঠানো হয়েছে। লকডাউনের পর জেলা থেকে ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ দেয়া হলে অপসারণ প্রক্রিয়া শুরু করা হবে।

বাংলাদেশ জার্নাল/এসকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত