ঢাকা, রোববার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ৯ কার্তিক ১৪২৮ আপডেট : কিছুক্ষণ আগে

আয়-ইনকাম নাই, ব্রিজ বানাতে আমার কষ্ট হবে: ব্যারিস্টার সুমন

  জার্নাল ডেস্ক

প্রকাশ : ১১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২২:২৫

আয়-ইনকাম নাই, ব্রিজ বানাতে আমার কষ্ট হবে: ব্যারিস্টার সুমন
সংগৃহীত
জার্নাল ডেস্ক

নিজ উদ্যোগে তৈরি কাঠের ব্রিজ ভেঙে যাওয়ায় এটি নতুন করে পাকা করার ঘোষণা দিয়েছেন ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন। শনিবার ফেসবুক লাইভে এসে এ ঘোষণা দেন ব্যারিস্টার সুমন।

ব্যারিস্টার সুমন বলেন, ‘জন্মস্থানের জন্য দায়িত্ব কখনো শেষ হয় না। আপনারা দেখছেন, এটা একটা ব্রিজ আমরা কাঠ দিয়ে বানিয়েছিলাম। কাঠের ব্রিজ আমি বানিয়েছিলাম। এটা ছিল আমার ৩১তম ব্রিজ। তিন বছর যাওয়ার পর এখন দেখা যাচ্ছে ব্রিজটি ভেঙে গেছে। আগামী সোমবার থেকে পাকা ব্রিজ বানাতে চাই। দুই থেকে আড়াই লাখ টাকা লাগবে। তেমন আয়-ইনকাম নাই। আমার কষ্ট হবে।’

তিনি বলেন, আখেরাত যদি পার হতে হয়, তাহলে দুনিয়ার কাজ দিয়ে তাকে সামনের দিকে এগিয়ে যেতে হবে।

তিনি আরও বলেন, ‘আমি এলাকায় ৩৫টি ব্রিজ বানিয়েছি। আমি কথা দিয়েছি যে পাকা ব্রিজ হওয়ার আগ পর্যন্ত যতবার ভাঙবে ততবার এই ব্রিজ করব। আমার জন্মস্থানের দায়িত্ব আমি নিয়ে নিতে চাই। আমি দেখাতে চাই কীভাবে একটি দেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া যায়।’

‘আমি আমার এলাকার জন্য করছি। আপনিও আপনার এলাকার যদি পারেন একটা ব্রিজ বানান জীবনে। ৩৫-৪০টা বানানো লাগবে না। একটা ব্রিজও যদি বানাতে পারেন তাও আপনাদের জন্মস্থানের মানুষের মুখোমুখি হয়ে বলতে পারবেন, যে এলাকার জন্য একটা ব্রিজ বানাইছি। আপনারা ভাবতে পারেন ব্রিজ বানাতে অনেক টাকা লাগে। অনেক টাকার চেয়ে একটা হৃদয় লাগে, একটা বড় মন লাগে। মানুষ জীবনে বহু টাকা খরচ করে, হাসপাতালে খরচ করে, টাকা-পয়সা বিভিন্ন জায়গায় খরচ করে। কিন্তু একবার একটা ব্রিজ বানিয়ে দেখেন কী ধরনের শান্তি লাগবে আপনার। এটার জন্য আপনার এমপি-মন্ত্রী হওয়া লাগবে না। এমপি-মন্ত্রী হয়ে আপনি ব্রিজ বানাবেন, এই চিন্তা বাদ দেন।’

সুমন আরও বলেন, ‘এটা পর্যটনের জন্য একটা উৎকৃষ্ট জায়গা। এটা হচ্ছে চুনারুঘাট উপজেলার চা বাগান। আপনি এদিকে চন্ডিচড়া চা বাগানের পাশে দেখতে পাবেন। এখানের দু-চারজন যারা ব্রিজটি ব্যবহার করতেন। তাদের সঙ্গে কথা বলেছি।’

এসময় উপস্থিত এক ব্যক্তির কাছে সুমন তাদের সমস্যার কথা জানতে চান। তখন উপস্থিতদের মধ্য থেকে এক ব্যক্তি বলেন, ‘ব্রিজ ভেঙে যাওয়ায় আমরা নিচ দিয়ে যাতায়াত করি। রোগী আইলে সমস্যা হয়। ডেলিভারির কোনো রোগী থাকলে আনা-নেওয়ায় খুব সমস্যা হয়।’

সুমন বলেন, ‘আগামী সোমবার স্থায়ীভাবে একটা পাকা ব্রিজ বানাতে চাচ্ছি আমরা। আপনারা যদি একটু সহযোগিতা করেন কাজে, আমরা সবাই মিলে, সব জিনিস তো আর সরকার করতে পারে না। মিলেমিশে চাচ্ছি যে এলাকাটা সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে।’

বাংলাদেশ জার্নাল/এমজে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত