ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩ আশ্বিন ১৪২৮ আপডেট : ৩৬ মিনিট আগে

সতর্ক সংকেত নামলেও কাটেনি আতঙ্ক

  নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশ : ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৯:৫৭  
আপডেট :
 ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২০:৩০

সতর্ক সংকেত নামলেও কাটেনি আতঙ্ক
ছবি- সংগৃহীত
নিজস্ব প্রতিবেদক

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট গভীর নিম্নচাপটি ভারতের স্থলভাগে প্রবেশ করে ক্রমেই অগ্রসর ও দুর্বল হচ্ছে। নিম্নচাপের প্রভাবে বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকায় ঝড়ো হাওয়া বয়ে যাওয়ারও সম্ভাবনা নেই বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। এজন্য দেশের সমুদ্র বন্দরসমূহকে সতর্ক সংকেত নামিয়ে ফেলতে বলা হয়েছে। একই সঙ্গে সাগরে অবস্থানরত সকল মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে বুধবার সকাল পর্যন্ত সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে।

তবে নিম্নচাপের প্রভাবে গত দুইদিন ধরে বরিশালসহ দক্ষিণ উপকূলে থেমে থেমে বৃষ্টি এবং দমকা ও ঝোড়ো হাওয়া বইছে। সাগর এখনো উত্তল রয়েছে। এর প্রভাবে নদ-নদীতে পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। এতে ভোগান্তিতে পড়েছেন শ্রমজীবীরা। একইসঙ্গে আতঙ্কে রয়েছেন উপকূলীয় অঞ্চলের বাসিন্দারা।

এদিকে আগামীকাল বুধবারের মধ্যে সবকিছু পরিস্থিতি স্বাভাবিক হতে পারে বলেও ধারণা করছেন আবহাওয়াবিদরা।

নিম্নচাপের সর্বশেষ পরিস্থিতি সম্পর্কে আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ মো. শাহীনুল ইসলামের এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ভারতের উড়িষ্যা-ঝাড়খন্ড ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত গভীর নিম্নচাপটি আরও পশ্চিম-উত্তরপশ্চিম দিকে অগ্রসর ও দুর্বল হয়ে মঙ্গলবার বিকেল ৩টায় ছত্রিশগড় ও তৎসংলগ্ন এলাকায় নিম্নচাপ আকারে অবস্থান করছে। এটি আরও উত্তরপশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে ক্রমান্বয়ে দুর্বল হতে পারে।

আবহাওয়া অফিস বলছে, মৌসুমী বায়ুর অক্ষের বর্ধিতাংশ রাজস্থান, গুজরাট, মধ্যপ্রদেশ, নিম্নচাপের কেন্দ্রস্থল ও পশ্চিম বঙ্গ এবং বাংলাদেশের মধ্যাঞ্চল হয়ে উত্তরপূর্ব দিকে আসাম পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। নিম্নচাপের বর্ধিতাংশ উত্তর বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত। মৌসুমী বায়ু বাংলাদেশের উপর মোটামুটি সক্রিয় এবং উত্তর বঙ্গোপসাগরে মাঝারি অবস্থায় রয়েছে।

মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়, খুলনা ও বরিশাল বিভাগের অনেক জায়গায়, রাজশাহী, ঢাকা ও চট্রগ্রাম বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় এবং রংপুর, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের দু-এক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরণের বৃষ্টি/বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সাথে দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরণের ভারী থেকে ভারি বর্ষণ হতে পারে।

ঘুর্ণিঝড়ের বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, নিম্নচাপের প্রভাবে বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকায় ঝড়ো হাওয়া বয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা নেই। তাই চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মোংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরসমূহকে সতর্ক সংকেত নামিয়ে ফেলতে বলা হয়েছে। সেই সাথে উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত সকল মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে বুধবার সকাল পর্যন্ত সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে। এরআগে সাগরে সৃষ্ট নিম্নচাপে বৈরি আবহাওয়ার কারণে সমুদ্রবন্দরগুলোতে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্কসংকেত জারি করা হয়।

বাংলাদেশ জার্নাল/এমআর/ওয়াইএ

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত