ঢাকা, শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১ কার্তিক ১৪২৮ আপডেট : কিছুক্ষণ আগে

অসচ্ছল মুক্তিযোদ্ধা পাচ্ছেন সরকারের দেওয়া নান্দনিক ঘর

  ধামরাই প্রতিনিধি

প্রকাশ : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩:৩১  
আপডেট :
 ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩:৪৫

অসচ্ছল মুক্তিযোদ্ধা পাচ্ছেন সরকারের দেওয়া নান্দনিক ঘর
প্রতীকী ছবি
ধামরাই প্রতিনিধি

স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তি ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শতবার্ষিকী উপলক্ষে ‘অসচ্ছল বীর মুক্তিযোদ্ধা, বীরাঙ্গনা, শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধা, প্রয়াত বীর মুক্তিযোদ্ধাদের বিধবা স্ত্রী ও সন্তানদের সামাজিক মর্যাদা বৃদ্ধি ও আর্থ-সামাজিক অবস্থান উন্নয়নের ক্ষেত্রে ৩০ হাজার অসচ্ছল মুক্তিযোদ্ধাদেরকে একতলা বিশিষ্ট পাকা ঘর তৈরি করে দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার।

সেই প্রকল্পের আওতায় ঢাকার ধামরাইয়ে ১১ জন অসচ্ছল বীরমুক্তিযোদ্ধা পাচ্ছেন সরকারের দেওয়া উপহার হিসেবে এই নান্দনিক ঘর। কিন্তু মোট ১২ জন বীরমুক্তিযোদ্ধার নামে ঘরের তালিকা ছিল। যাদবপুর ইউনিয়নের গোমগ্রাম এলাকার আব্দুল মজিদ নামে এক বীরমুক্তিযোদ্ধার নাম তালিকা থেকে বাদ পরে। কারণ তার নিজের জায়গা রয়েছে কিন্তু তা নকশা অনুযায়ী দৈর্ঘ্য ও প্রস্থ নেই। তাই নামটি বাদ পড়েছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, সারা দেশের ন্যায় ঢাকার ধামরাইতেও ১১ জন অসচ্ছল মুক্তিযোদ্ধা তাদের নিজের ভিটায় দুইটি বেড, দুইটি টয়লেট, ডাইনিং ও কিচেনসহ ৬৩৫ বর্গফুটের এই ঘর তৈরি করে দেওয়া হবে। মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় ডিপিপি প্রকল্প গঠন করে সারাদেশে প্রায় ৪ হাজার ১২৩ কোটি টাকায় ‘অসচ্ছল মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য আবাসন নির্মাণ’ শীর্ষক একটি প্রকল্প নেওয়া হয়েছে। প্রকল্পের কাজ ২০২৩ সালের মধ্যে শেষ করা হবে বলে জানা যায় । প্রতিটি ঘর তৈরিতে ব্যয় ধরা হয়েছে ১৩ লাখ ৪৩ হাজার ৬১৮ টাকা।

ধামরাই থানা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার বীরমুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রহমান বলেন, ধামরাই উপজেলা হতে ১১ জন মুক্তিযোদ্ধা সরকারের এই ঘর পাচ্ছেন। আব্দুল মজিদ নামে একজন মুক্তিযোদ্ধার নাম বাদ পড়েছে। তার জায়গা ছিল তবে যে মাপে জায়গা থাকার কথা সেভাবে নেই। নকশা অনুযায়ী না থাকায় তিনি ঘর আপাতত পাচ্ছে না। তবে আমরা উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে বিষয়টি জানিয়েছি। তিনিও একজন অসচ্ছল মুক্তিযোদ্ধা। তিনি যদি জায়গা কিনে বা যে কোন উপায়ে ব্যবস্থা করতে পারে তাকে যেন একটি ঘর দেওয়া হয়।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার হোসাইন মোহাম্মদ হাই জকী বলেন, সারা দেশে ৩০ হাজার অসচ্ছল বীরমুক্তিযোদ্ধারা পাচ্ছেন সরকারের পক্ষ থেকে একতলা বিশিষ্ট এই নান্দনিক ঘর। ধামরাইতেও প্রথম পর্যায়ে ১১ জন বীরমুক্তিযোদ্ধা এই ঘর পাবেন। তাদের নামের তালিকা তৈরি হয়ে গেছে। পরে আরো বরাদ্ধ আসবে। পর্যায়ক্রমে ধামরাই উপজেলায় আরো প্রায় ৫০ জন বীর মুক্তিযোদ্ধাকে এমন ঘর নির্মাণ করে দেয়ার পরিকল্পনা রয়েছে সরকারের।

বাংলাদেশ জার্নাল / এএম

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত