ঢাকা, শনিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২১, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ আপডেট : ৩ মিনিট আগে

‘গন্ডারের পঁচা মাংস দিয়ে রান্না হচ্ছে হাজী বিরিয়ানি’ তথ্যটি ভুল ছিলো

  নোয়াখালী প্রতিনিধি

প্রকাশ : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১০:৫৫  
আপডেট :
 ২৩ নভেম্বর ২০২১, ১৭:৪৮

‘গন্ডারের পঁচা মাংস দিয়ে রান্না হচ্ছে হাজী বিরিয়ানি’ তথ্যটি ভুল ছিলো
ছবি: সংগৃহীত
নোয়াখালী প্রতিনিধি

গত ১৭ অক্টোবর ‘গন্ডারের পঁচা মাংস দিয়ে রান্না হচ্ছে হাজী বিরিয়ানি’ এমন শিরোনামে বাংলাদেশ জার্নালে একটি নিউজ প্রকাশিত হয়। যেখানে তথ্য বিভ্রাট ছিলো বলে বাংলাদেশ জার্নাল কর্তৃপক্ষ বুঝতে সক্ষম হয়েছে।

নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী বাজারের হাজী বিরিয়ানি হাউজ নামের একটি খাবারের দোকান পঁচা মাংস দিয়ে বিরিয়ানি রান্না করে বিক্রি করছে— এমন খবরের ভিত্তিতে সোনাইমুড়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ ফজলুর রহমান ঐ হোটেলে অভিযান চালিয়ে ৩০ কেজি রান্না করা ও ৭০ কেজি পঁচা কাঁচা মাংস জব্দ করে। তবে মাংসগুলো কীসের ছিল তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

কিন্তু ‘বাংলাদেশ জার্নালে’ গন্ডারের পঁচা মাংস দিয়ে রান্না হচ্ছে বিরিয়ানি এমন শিরোনামে নিউজ প্রকাশিত হয়। যা পাঠকদের জন্য বিভ্রান্তিকর ছিল।

এরপর ‘www.fact-watch.org/web/’ বাংলাদেশ জার্নালের নিউজটিকে ‘ফেইক নিউজ’ আখ্যা দিয়ে সংবাদ প্রকাশিত করে।

এমতাবস্থায়, অনবধানতাবশত এ ধরনের অসত্য তথ্য প্রকাশের জন্য আমরা দুঃখিত। ভবিষ্যতে যাতে এ ধরনের খবর প্রকাশ না হয়, সে জন্য আমরা সর্বোচ্চ সতর্ক থাকবো।


পূর্বের হেডলাইন​

গন্ডারের পঁচা মাংস দিয়ে রান্না হচ্ছে হাজী বিরিয়ানি

পূর্বের নিউজটি​

নোয়াখালীর সোনাইমুড়ীতে হাজী বিরিয়ানি হাউজ থেকে ৭০ কেজি কাঁচা ও ৩০ কেজি রান্না করা গন্ডারের পঁচা মাংস জব্দ করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। এসময় গন্ডারের পঁচা মাংস দিয়ে বিরিয়ানি বিক্রির দায়ে খাবারের দোকানটিকে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা ও সাময়িক বন্ধ করে দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

শনিবার রাত ১০টার দিকে সোনাইমুড়ী উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. ফজলুর রহমানের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়। অভিযানের সময় উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হাফিজুল হক ও সংশ্লিষ্ট বিভাগের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. ফজলুর রহমান গণমাধ্যমকে বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সোনাইমুড়ী বাজারের হাজী বিরিয়ানি হাউজে অভিযান পরিচালনা করে ১০০ কেজি ক্ষতিকর ও গন্ডারের পঁচা মাংস জব্দ করা হয়েছে। প্রতিষ্ঠানটিকে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা ও সাময়িক বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। জনপ্রিয় এ বিরিয়ানির দোকানটিতে দীর্ঘ দিন ধরে মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করে আসছিল।

এমন কাণ্ডে ক্ষুব্ধ স্থানীয় বাসিন্দারা। তারা বলছেন, স্বাদের জন্য হাজী বিরিয়ানি হাউজ জনপ্রিয়তা অনেক। কিন্তু এমন ক্ষতিকর পঁচা মাংস বিক্রি করবে তা কখনো ভাবতেও পারিনি।

বাংলাদেশ জার্নাল/এমজে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত